১১ বছর আর ৭ বছরের দুই ছেলেকে নিয়ে বেড়াতে গিয়েছিলেন বাবা মা | বাড়ি ফিরল একা ছোট ছেলে | চোখের সামনে দেখল বাবা -মা-দাদা ডুবে গেল আগ্নেয়গিরির কাদায় | মর্মান্তিক ঘটনা ইতালির পোজ্জুলি শহরের |

নেপলস-এর কাছেই এই পর্যটন কেন্দ্রে বেড়াতে এসেছিলেন ৪৫ বছর বয়সী মাসিমিলিয়ানো কারার | সঙ্গে ৪১ বছর বয়সী স্ত্রী‚ তিজিয়ানা আর দুই ছেলে | ভেনিসের কাছে বাড়ি তাঁদের | পোজ্জুলি বেড়াতে এসে দেখতে এসেছিলেন সোলফাতারা আগ্নেয়গিরি | নেপলসের পশ্চিমে কাম্পি ফ্লেগেরি এলাকায় ৪০ টি আগ্নেয়গিরির মধ্যে অন্যতম একটি |

জানা গেছে‚ দুষ্টুমি করে ১১ বছরের লোরেঞ্জো কর্ডন করে রাখা এলাকায় ঢুকে পড়ে নিষেধ না মেনে | আগ্নেয়গিরির জ্বালামুখের কাছে ওই এলাকায় কারও যাওয়া নিষিদ্ধ | ১০ ফিট গভীর জ্বালামুখে পড়ে যায় সে | বিষাক্ত গরম গ্যাসে হয়তো সংজ্ঞা হারিয়েছিল সে | ছেলেকে বাঁচানোর চেষ্টা করেছিলেন বাবা মা দুজনেই | কিন্তু তাঁরাও পড়ে যান জ্বালামুখে | 

ঘটনাস্থলের খুব কাছেই দাঁড়িয়ে সাহায্য চেয়ে অসহায় ভাবে মা মা করে কাঁদতে থাকে তাদের ছোট ছেলে | তাকে দেখে এগিয়ে আসেন স্থানীয় বসিন্দারা | পরে দমকলকর্মীদের চেষ্টায় ১০ ফিট গভীর জ্বালামুখ থেকে উদ্ধার কার হয় তিনজনের দেহ |

সোলফাতারা ঘুমন্ত আগ্নেয়গিরি | শেষ অগ্ন্যুৎপাত হয়েছে ১১৯৮ খ্রিস্টাব্দে | কিন্তু এর সঙ্কীর্ণ জ্বালামুখ থেকে সালফার মিশ্রিত গ্যাস নির্গত হতেই থাকে | মনে করা হচ্ছে লোরেঞ্জো তাতে জ্ঞান হারিয়ে ভিতরে পড়ে যায় | যখন তার বাবা মা তাকে উদ্ধার করতে যান‚ মাটি ধসে তাঁরাও পড়ে যান আগ্নেয়গিরির জ্বালামুখে |

আরও পড়ুন:  পুলিশ কনস্টেবলের সঙ্গে পালিয়েছেন গুরমীতের পরীকন্যা হানিপ্রীত ? চিঠি ঘিরে জল্পনা তুঙ্গে !

NO COMMENTS