আমাদের সব সময় বলা হয় যথেষ্ট জল খেতে হবে | সঠিক পরিমাণে জল খাওয়া অত্যন্ত জরুরি আমাদের শরীরের জন্য | কম জল খাওয়ার ফলে ডিহাইড্রেশন হওয়ার সম্ভবনা বেড়ে যায় | জানেন কি বেশি জল খাওয়াও কিন্তু শরীরের জন্য খারাপ ? আসুন দেখে নিন বেশি জল খেলে শরীরের কী ক্ষতি হতে পারে |

) অতিরিক্ত জল পান করলে মাথাব্যথা‚ মাসল ক্রাম্প‚ খিঁচুনি‚ মাংশপেশির দুর্বলতা হতে পারে | এছাড়াও গা বমি‚ খিদে না পাওয়া‚ বমিও হতে পারে | শরীরে অস্বস্তি হওয়া এড়াতে পারবেন না | কিছু জটিল পরিস্থিতিতে অজ্ঞান‚ হ্যালুসিনেশন বা প্রচন্ড রক্তচাপ বেড়ে যাওয়ার মতো সমস্যাও দেখা দিতে পারে | মৃত্যু এবং কোমা অবধি হতে পারে |

) অতিরিক্ত জল খাওয়ার ফলে শরীরে সোডিয়াম ইমব্যালেন্স হতে পারে | আমাদের শরীরে সল্ট এবং মিনারেলের সঠিক ব্যালেন্স থাকা অত্যন্ত জরুরি | সাধারণত শরীরে সোডিয়াম এর পরিমাণ 135 and 145 mEq/L এর মধ্যে থাকা উচিত | কিন্তু 135mEq/L এর নীচে নেমে গেলে তাকে বলা হয়hyponatremia | এইরকম হলে শরীরের কোষে অতিরিক্ত জল জমা হয়ে গিয়ে কোষ ফুলে যায় | এটা কিন্তু শরীরের জন্য বিপজ্জনক |

) কিডনিও ক্ষতিগ্রস্ত হয় | আমাদের শরীরে দুটো কিডনি থাকে যা রক্ত থেকে নোংরা ছেঁকে তোলে‚ শরীরের ফ্লুইড ব্যালেন্স ঠিক রাখে এবং ইউরিন তৈরি করে | কিন্তু অত্যধিক শরীরে জল বেড়ে গেল কিডনি স্বাভাবিক ভাবে কাজ করতে পারে না | রিসার্চ করে দেখা গেছে বেশি জল পান করার জন্য ক্রনিক কিডনি ডিজিজ বাড়ে | এর থেকে বিভিন্ন হার্টের সমস্যাও দেখা দিতে পারে |

আমাদের তাহলে কতটা জল পান করা উচিত ?

এই প্রশ্নের কোন সঠিক জবাব হয় না | The World Health Organization (WHO)-এর মতে প্রত্যেকের শরীরের চাহিদা অনুযায়ী জল খাওয়া উচিত | যেমন ধরুন একজন ক্রীড়াবিদকে বেশি পরিমাণ জল খেতে হবে | অ্যাক্টিভিটি লেভেল‚ মেটাবলিজম এবং পরিবেশগত নানা বিষয়ের কথা মাথায় রেখে জলপান করা উচিত | এছাড়াও শরীরের ওজন‚ বয়স‚ লিঙ্গ এবং যদি কোনও ওষুধ খান তার ওপরেও জলপানের সীমা নির্ভর করবে |

The National Health Services, UK পরামর্শ দেয় সারাদিনে ৬ থেকে ৮ গ্লাস জল খেতে হবে শরীরের স্বাভাবিক ক্রিয়া বজায় রাখতে এবং ডিহাইড্রেশন এড়ানোর জন্য |

আরও পড়ুন:  এক টুকরো বরফে সেরে যেতে পারে ত্বকের অনেক সমস্যা‚ জেনে রাখুন

NO COMMENTS