রুকমা দাক্ষী
শিক্ষিকা, সুদক্ষ গায়িকা ও রন্ধন বিশারদ | মাল্টি ট্যালেন্টেড রুকমা রান্নাবান্নার জগতে এক অতি পরিচিত নাম | টেলিভিশনের বিভিন্ন শো-এ পরিচিত মুখ | বানাতে সহজ অথচ অভিনব রেসিপি – রুকমার বিশেষত্ব | প্রকাশিত হয়েছে বেশ কয়েকটি রান্নার বই, ‘রসনারঞ্জনে কলকাতা’, ‘কম তেলে রান্না’, ‘মাইক্রোওভেনে রান্না’, ‘উত্সবের রান্না’, ‘দেশ বিদেশের রান্না’ তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য |

উপকরণ

দেরাদুন রাইস – ৪০০ গ্রাম
মটন কিমা – ২৫০ গ্রাম (কিমা খুব মিহি হবে না)
দুধ – ১০০ মিলি
জল – ৬০০ মিলি
কিসমিস – ১ টেবিল চামচ
পেঁয়াজ কুচি – ১টা (খুব মিহি)
আদাবাটা – ২ চা চামচ
রসুনবাটা – ১ চা চামচ
গোলমরিচ গুড়ো – ১/২ চা চামচ
নুন স্বাদমতো
চিনি – ১ চা চামচ
ঘি – ৬ টেবিল চামচ
সাদা তেল – ২ টেবিল চামচ
গোটা গরমমশলা – ২ চা চামচ
জায়ফল গুড়ো – ১/২ চা চামচ
জয়িত্রী গুড়ো – ১/২ চা চামচ

প্রণালী

চাল ভিজিয়ে রাখুন – আধ ঘন্টা | এবার প্রেসার কুকারে ধুয়ে রাখা কিমা, মেপে রাখা জল, নুন, গোলমরিচ গুড়ো, আদা রসুন বাটা ও জায়ফল-জয়িত্রী গুড়ো দিয়ে ২টো সিটি মাড়িয়ে নিন | ঠান্ডা হলে প্রেসার কুকার খুলে কিমা ও জল ছেঁকে নিন | এইবার চাল থেকে জল ঝরিয়ে রাখুন | এরপর একটা বড় প্যান গরম করুন | তাতে ঘি ও সাদা তেল দিন | ঘি গরম হলে পেঁয়াজ কুচি
ও গোটা গরমমশলা দিন | বেশ সোনালী করে ভাজুন | পেঁয়াজ ভাজা হলে সেদ্ধ করে রাখা কিমা দিয়ে আরো কিছুক্ষণ ভাজুন | এইবার ওই কিমার মধ্যেই চাল দিয়ে আরো দু’মিনিট ভাজুন | সব বেশ ভাজা হলে প্যানের মধ্যে দুধ, চিনি, কিসমিস ও কিমা সেদ্ধ জল দিয়ে ঢাকা দিয়ে মাঝারি আঁচে রান্না করুন | মাঝে মাঝে নেড়ে দেবেন | জল শুকিয়ে এলে ঢাকা দিয়ে গ্যাস বন্ধ করে দেবেন | একটা ভারি কিছু চাপা দিয়ে মিনিট ২০ দমে রাখুন | ২০ মিনিট পরে ঢাকা খুলে ভালো করে নেড়ে দিন | দেখবেন বেশ ঝুরঝুরে কিমা পোলাও রেডি | এবার সার্ভিং ডিসে ঢেলে সার্ভ করুন ডিমের শাহি কোর্মা ও গোলমরিচ মাংসের সাথে |

আরও পড়ুন:  দক্ষিণেশ্বর মন্দিরের এক চিলতে নহবতখানাতেই বিশ্বরূপদর্শন‚ জগজ্জননীর প্রতিমূর্তি তিনিই

NO COMMENTS