এখন জোড়াসাঁকো আর ঠাকুরবাড়ি সমার্থক শব্দ হয়ে গেছে | এই ভবনের প্রতিভাদীপ্তিতে ম্লান হয়ে গেছে স্থানীয় আরও বিশেষত্ব | ঠাকুরবাড়ি ছাড়াও জোড়াসাঁকোর স্থানমাহাত্ম্য বিস্তর | ব্রিটিশরা আসার আগে এই এলাকা ছিল সুতানটীর অংশ | তৈরি সুতোর আটি | সেখান থেকেই সুতানটী |

ব্রিটিশ-রেকর্ড বলছে চিৎপুরের এই অংশের আগের নাম ছিল মেছুয়াবাজার | কিন্তু মাছের আঁশটে গন্ধ চাপা পড়ে গেল নবজাগরণের উদ্ভাসে | বঙ্গ নবজাগরণের মূল কেন্দ্র ছিল জোড়াসাঁকো |

এখানে এক টলটলে দীঘি ছিল | তার উপরে কাঠের সাঁকো | কাঠের সেই সাঁকো কোথাও যুক্ত বা জোড়া ছিল | সেটাই হয়ে গেল ল্যান্ডমার্ক | জায়গার নাম হয়ে গেল জোড়াসাঁকো |

ঠাকুর ( আদিতে কুশারী ) বংশ ছাড়াও বহু বনেদী ও অভিজাত পরিবারের বাস ছিল এখানে | কালীপ্রসন্ন সিংহের সিংহি পরিবার‚ কৃষ্ণদাস পালের পাল পরিবার‚ দেওয়ান বানারসী ঘোষের পরিবার‚ গোকুলচন্দ্র ও নরসিংহ চন্দ্রের দাঁ বংশের দুটি শাখা‚ চন্দ্রমোহন চট্টোপাধ্যায়ের পরিবার এবং আরও কত শত |

১৭৮৫ খ্রিস্টাব্দে তৈরি হয়েছিল কলকাতার থানার প্রথম তালিকা | ৩১ টি থানা ছিল | তারমধ্যে অন্যতম ছিল জোড়াসাঁকো | এই চত্বরে যে ঐতিহাসিক প্রতিষ্ঠানগুলো বিকশিত হয়েছিল তার মধ্যে অন্যতম আদি ব্রাহ্ম সমাজ | এছাড়াও ছিল মিনার্ভা থিয়েটার‚ওরিয়েন্টাল সেমিনারি স্কুল | শিক্ষাবিদ ও বিদ্যানুরাগী গৌরমোহন আঢ্য শুরু করেছিলেন এই প্রতিষ্ঠান | আধুনিক শিক্ষার ধারক ও বাহক এই স্কুল ছিল কলকাতার আদি বেসরকারি স্কুলগুলোর মধ্যে বিখ্যাত | এটা রবি ঠাকুরের স্কুলও বটে !

চিতে ডাকাতের নাম থেকে হয়েছিল চিৎপুর | কালের নিয়মে হারিয়ে গেল সেই দস্যুর আখড়ার হুঙ্কার | একদিন এই অংশে রাজপথের নাম হয়ে গেল রবীন্দ্র সরণি |

জোড়াসাঁকোতে নাট্যশালা শুরু করেছিলেন প্যারীমোহন বোস | একটাই মাত্র নাটক মঞ্চস্থ হয়েছিল | উইলিয়াম শেক্সপিয়ারের জুলিয়াস সিজার | ১৮৫৪ সালের ৩ মে |

এর ১১ বছর পরে গগনেন্দ্রনাথ ঠাকুর প্রতিষ্ঠা করেছিলেন দ্বিতীয় জোড়াসাঁকো নাট্যশালা | মঞ্চস্থ হয়েছিল মাইকেল মধুসূদন দত্তের কৃষ্ণকুমারী | তরুণ জ্যোতিরিন্দ্রনাথ ঠাকুর অভিনয় করেছিলেন অহল্যাদেবীর ভূমিকায় | পরে মহিলারাও অভিনয় জগতে প্রবেশ করেন ধীরে ধীরে |

তখন মঞ্চস্থ হওয়ার মতো ভাল বাংলা নাটক ছিল না | তাই গগনেন্দ্রনাথ ঠাকুর নাটক রচনার প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিলেন | প্রথম হয়েছিল রামনারায়ণ তর্কালঙ্কার রচিত নবনাটক | গগন ঠাকুর পুরস্কার দিয়েছিলেন দুশো টাকা | তখনকার দিনে বিশাল অর্থ | প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন হাজার কপি ছাপানোর ব্যয় বহন করবেন |

এভাবেই বঙ্গ মেধা মননের আর এক নাম হয়ে সেতুবন্ধন করে আসছে জোড়াসাঁকো |

আরও পড়ুন:  এবার কি ১২ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণের ধাক্কা খেতে চলেছে অ্যাপোলো!?
- Might Interest You

NO COMMENTS