কুশকুশ

    বীথি চট্টোপাধ্যায়
    বাংলা ভাষার একজন প্রধান কবি। জন্ম যশোরে। ১২টি প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ।কবিতার বই । পুরস্কার ১) কিশোরভারতী ২)প্রমা ৩) ভারত নির্মান ৪) সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় স্মৃতি পুরস্কার

    (একটি উদ্বাস্তু বেড়ালের জন্য)
    বীথি চট্টোপাধ্যায়

    সেইখানে শেষ সিরিয়ার সীমারেখা
    সুখ দুঃখের ঘর ছেড়ে টলোমল
    অনেকের মত তারাও জুটেছে এসে,
    রেডক্রস থেকে দিয়েছে রুটি ও জল।

    তার দুধ লাগে, সে কী করে রুটি খাবে?
    ছেলেমেয়েদের নাম করে দুধ চেয়ে,
    মা তাকেই দেন, নিজের বাচ্চাগুলো
    কাটিয়ে দিচ্ছে জল ; পাউরুটি খেয়ে।

    সবার থেকে সে ছোট, সারা গায়ে লোম।
    অবাক বেড়াল, ভয় পেয়ে যাওয়া চোখ,
    শরণার্থীর বিহ্বল ভিড় থেকে
    চিৎকার করে কেঁদে ওঠে কতলোক।

    ছোট্টো বেড়াল ভয় পেয়ে লাফ দিল,
    ভিড়ের মধ্যে এদিক ওদিক ছোটে
    মা ভাইবোনকে টেনে নিল ইউরোপ
    মধ্যরাত্রে যে দেশে সূর্য ওঠে।

    জানলায় রোদ দেখে মার চোখে জল
    কুশকুশ বড় ভালবাসে মৃদু রোদ,
    খাবার টেবিল নিঃস্ব ও নিশ্চুপ
    গলার কাছে কী আটকে থাকার বোধ।

    কুশকুশ দূরে, ধুলোমাখা তার লোম
    একা একা ঘোরে তুর্কমেনিস্তানে,
    কেউ তাড়া করে, কেউ লাথি মেরে দেয়
    কুশকুশ শেখে দুনিয়াদারির মানে।

    কেউ দয়া করে দুটো ভাত ফেলে দেন
    কেউ ঢিল ছুঁড়ে অদ্ভুত মজা করে,
    এ ওকে মারছে, সে তার ভাঙছে ঘর
    পৃথিবীটা দেখে কুশকুশ ভেঙে পড়ে।

    কুশকুশ কাঁদে দেশ ছুয়ে, কাল ছুঁয়ে
    যুদ্ধ যুদ্ধে কুশকুশ রোজ পোড়ে
    কুশকুশ শুধু কাঁদে বাড়ি যাবে বলে
    মধ্যপ্রাচ্যে কুশকুশ একা ঘোরে।

    কী আশ্চর্য পরিশ্রমে ও প্রেমে
    তার পরিবার তাকে খুঁজে পায় শেষে,
    খাবার টেবিল আনন্দে ভরে গেল
    মধ্যরাত্রে সূর্যদয়ের দেশে।

    SHARE

    LEAVE A REPLY