ডিজিটাল ক্যামেরা ও অন্তহীন মেঘ

    কৌষিকী দাশগুপ্ত
    গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাসের অধ্যাপক। প্রকাশিত কবিতার বই মিয়াঁও।

    কৌষিকী দাশগুপ্ত

    সাতটা বাজার দু মিনিট আগে ধরা পড়লে তুমি, ডিজিটাল ক্যামেরায়।
    সবুজ শাড়িতে ক্যাপুচিনো রঙ, বড় লাল টিপ
    আর একরাশ আতরগন্ধী ভয় নিয়ে ধরা পড়লে আকাশপাড়ির রাস্তায়।
    সঙ্গে ছিল কচি ছেলেটা,
    দুদিন আগেও অ্যালজেব্রা বোঝাতে বোঝাতে চোখ মেরেছে আমাকে।
    পা থেকে মাথা পর্যন্ত গুলে দিয়েছে মধ্যরাত,
    দুপুরবেলার বেডরুম তখন ইয়ো ইয়ো হানি সিং…
    এসব জানতে না তুমি। জানার কথাও নয়।
    বাংলা দিদিমনি… স্বামী ছেড়ে গেছে কবে,
    ছেড়ে গেছে লো-কাট ব্লাউস… এক সমুদ্র নীল,
    সেই তুমি কী করে জানবে বল, দুপুরের নাম আলবাট্রাস,
    রাত্রির নাম মেহবুব!
    কিন্তু ধরা পড়লে আজ।
    এক পৃথিবী ঘৃণা আর দুই পৃথিবী উল্লাস পিছনে রেখে
    তোমাকে দাঁড়াতেই হল এক আদিগন্ত সেমিকোলনের সামনে।
    যাকে তুমি ভালবাসা বল।
    আজ না হোক পালাতই ভালবাসা।
    একটা কচি ছেলের হাত ধরে, একটা নিতান্ত কচি মেয়ে পালিয়ে যেত
    আকাশপাড়ির রাস্তায়… বল, খুব কি বেমানান হত?
    তার বদলে পালাতে গেলে তুমি,
    সাতটা বাজার দু মিনিট আগে ধরাও পড়লে সেই ডিজিটাল ক্যামেরায়।
    সাতটা বাজার দু মিনিট আগে জল নেমে এল
    যদিও বৃষ্টি নামার কথা ছিলনা আজ।

    SHARE

    LEAVE A REPLY