দৃশ্যের অগোচর

    সৌম্য দাশগুপ্ত
    কবি | কবিতা প্রকাশিত হয়েছে দেশ‚ কৃত্তিবাস সহ আরও বহু পত্র-পত্রিকায় |
    Soumya Das Gupta poem

    উদ্ভিদ দেখছে এই জল আর মাটি আমাদের
    ঘিরে ঘিরে কথা বলা, গায়ে গায়ে ঝরে পড়া পাতা
    আমাদের ভাবনার তরঙ্গে গাছের ছায়া এসে
    ঘিরে নেয় স্তোত্রগুলি, পরম মমতা আনে হাওয়া

    হাওয়া, যে এতটা পথ অতিক্রম করে এল কাছে,
    তারও সমৃদ্ধি আছে, সামাজিক উপযাচকতা
    যখন দুরন্ত শীত, সে দেখে কাঁপন আমাদের,
    গ্রীষ্মের চূড়ান্তে এসে পায়ে ছুঁড়ে দেয় ভেজা মাটি

    মাটি যে মানুষকে দেখে, সে রহস্য মানুষই কি জানে,
    সে তার দ্রিদ্রিম তালে বুকের দুপুরে তোলে ঢেউ
    প্রতিমার চোখ লাগলে যেভাবে জেনেছে কুম্ভকার
    মাটির বুকের মাঝে লুকিয়ে রয়েছে সেই জল

    জল, তুমি দেখ সব, স্নানের নিরালাময় ত্বকে
    বিচ্ছুরণ দাও, শোনো, স্পর্শ করো, ঘ্রাণ নাও তার
    সমস্ত ইন্দ্রিয় যদি জলের নিভৃত আওচারে
    মগ্ন হয়, তবে আর আগুনের শক্তি কতটুকু

    আগুন মানুষকে দেখে? যে প্রথম ঘর্ষণের পর
    বন্দী করলো তেজ সেই আদিম মুহূর্তে, তার চোখে
    মানুষের দীপ্তি ধরা পড়েছিল? সূর্যের উপর
    মানুষের ছায়া পড়ে? অগ্নিভ প্রাচুর্যে কাটে দিন।

    মানুষ মানুষকে দেখে? কী দেখে সে মানুষে মানুষে?

    SHARE

    LEAVE A REPLY