দক্ষিণ ইরানের দেজগাহর বাসিন্দা ৮০ বছর বয়সী বৃদ্ধ আমৌ হাজির গত ৬৫ বছর ধরে স্নান করেন না | শুধু তাই নয়, তিনি গায়ে এক ফোঁটা জল অবধি লাগান না |

আমৌর পছন্দের খাবার হল পচা মাংস | বিশেষ করে যদি সেটা সজারুর হয় | ধূমপানের জন্য তিনি পাইপ-এ ভরে নেন পশুদের বর্জ্য | তামাকের বদলে এই স্বাদটাই তাঁর ভাল লাগে |

জলকে মনে-প্রাণে ঘৃণা করা আমৌর সঙ্গে একই সারিতে পড়বেন ভারতের বারাণসীর গুরু কৈলাস সিং | তিনি ১৯৭৪ থেকে গত ৪৩ বছর ধরে স্নান করেন না | ১৯৭৪-এই তাঁর বিয়ে হয়েছিল | তখন তিনি ২৯ বছরের যুবক | কৈলাসের দাবি, এক সাধু তাঁকে বলেন, স্নান না করলে তিনি পুত্রলাভ করবেন |

সেই আদেশ শিরোধার্য করে কৈলাসও দিলেন স্নান করা বন্ধ করে | তবে সাধুর কথা কিন্তু মেলেনি | কৈলাসের সাত মেয়ে | কোনও ছেলে হয়নি |

আমৌর ক্ষেত্রে কোনও কারণ অবশ্য জানা যায়নি | কেন তাঁর ‘জলাতঙ্ক’, বলতে পারেননি কেউ | তবে কাশীর কৈলাস বা সুদূর পারস্যের আমৌ, দুজনেই কিন্তু স্নান না করলেও প্রচুর জল খান |

আমৌ একটা মরচে ধরা পাত্র থেকে সারা দিনে পাঁচ লিটার জল পান করেন | কিন্তু দুজনেরই পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে প্রবল অনীহা | আমৌ হাজি যেমন মনে করেন পরিষ্কার থাকলে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়বেন |

তাই চুল কাটার দরকার হলে পুড়িয়ে ফেলেন বাড়তি চুল | আর ঠান্ডার হাত থেকে বাঁচতে মাথায় চাপিয়ে নেন পুরনো আমলের যুদ্ধ শিরস্ত্রাণ |

কিন্তু দুজনের মধ্যে দুর্গন্ধের দৌড়ে কে এগিয়ে ? সেই ‘গন্ধবিচার’ করার লোক অবশ্য পাওয়া যায়নি |

আরও পড়ুন:  ছেলের সঙ্গে বাবা-মা যা করছেন তা নিঃসন্দেহে দৃষ্টান্তমূলক

NO COMMENTS