window.onload = function() { let frameElement = document.getElementById("bl-radio"); let doc = frameElement.contentDocument; doc.body.innerHTML = doc.body.innerHTML + ''; }

ঘামাচি থেকে রেহাই পাওয়ার ঘরোয়া টোটকা

ঘামাচি থেকে রেহাই পাওয়ার ঘরোয়া টোটকা

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

অত্যধিক ঘাম হওয়ার ফলে গায়ে ঘামাচি বেরোয় | এটা এমন কিছু বড় সমস্যা নয় | কিন্তু তাও এর ঠিক মতো যত্ন নেওয়া উচিত | আজকে রইলো ঘামাচি সারানোর ১০ টা ঘরোয়া উপায় |

১) ওটমিল বাথ : যাদের বাড়িতে বাথ টাব আছে তারা জলে আধ কাপ ওটমিল ভিজিয়ে রাখুন | এরপর এই জলে ১৫-২০ মিনিট ডুবে থাকতে হবে | যাদের বাড়িতে বাথ টাব নেই তারা জলে ভেজানো ওটমিল হাল্কা করে ঘামাচির ওপর ঘষুন | এর ফলে ত্বক একফলিয়েট হবে এবং ত্বকের যে ছিদ্র দিয়ে ঘাম বেরোয় তা খুলে যাবে | ওটমিল লাগালে ঘামাচির চুলকানি থেকেও আরাম পাবেন |

২) অ্যালোভেরা জেল : অ্যালোভেরাতে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টিসেপ্টিক প্রপার্টি আছে | তাই এটা লাগালে খুব সহজেই ঘামাচি সেরে যাবে | এর জন্য অ্যালোভেরা পাতার একটা অংশ গাছ থেকে ছিঁড়ে নিন | এরপর সেই পাতার টুকরো থেকে সব রস বের করে নিয়ে ঘামাচির ওপর লাগান | এক দুবার লাগানোর পরেই দেখবেন লাল ভাব কমে গেছে এবং জ্বালা বা চুলকানিরও অবসান ঘটছে | যাদের বাড়িতে অ্যালোভেরার গাছ নেই তারা দোকান থেকে অ্যালোভেরা জেল কিনে এনেও কাজ চালাতে পারেন |

৩) বেসন : ছোলার বেসন এবং জল দিয়ে একটা গাঢ় পেস্ট বানান | এরপর এই পেস্ট ঘামাচির ওপর লাগান | ২০-২৫ মিনিট রাখার পর ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন | এই ঘরোয়া পদ্ধোতির সাহায্যে খুব সহজেই ঘামাচির জ্বালা এবং চুলকানির হাত থেকে রেহাই পাবেন |

৪) মুলতানি মাটি : বহু যুগ ধরে ঘামাচি সারাতে  মুলতানি মাটির ব্যবহার হয় | চার চা চামচ মুলতানি মাটি নিন | গোলাপ জল দিয়ে একটা পেস্ট বানান | শরীরের যে অংশে ঘামাচি হয়েছে এই পেস্ট সেই জায়গায় লাগান | মোটামুটি তিন ঘন্টা রাখার পর ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন |

৫) বেকিং সোডা : বেকিং সোডাতেও অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল গুন আছে | তাই যে কোন ইনফেকশন সারাতে এটা খুব কার্যকারী | খানিকটা জলে দু চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে নিন | একটা পরিষ্কার সুতির কাপড় ওই জলে ভিজিয়ে ঘামাচির ওপর আলতো হাতে বোলান |

৬) কাঁচা আলু : কয়েকটা আলু টুকরো করে কেটে ঘামাচির ওপর লাগান | শুকিয়ে গেলে আরো একবার লাগিয়ে নিন | খনিক্ষণ রেখে ঠান্ডা জলে ধুয়ে ফেলুন | এই পদ্ধতি মেনে চললে খুব তাড়াতাড়ি ঘামাচির থেকে আরাম পাবেন |

৭) তরমুজ : গরমকালে সহজেই তরমুজ পাওয়া যায় | খানিকটা তরমুজ নিন | তার থেকে বিচি ছাড়িয়ে তরমুজের পাল্প বানান | এটা ঘামাচির ওপর লাগালে সঙ্গে সঙ্গে আরাম পাবেন |

৮) আদা : খানিকটা আদা গ্রেট করে নিন | এই গ্রেট করা আদা জলের মধ্যে দিয়ে ফুটিয়ে নিন | জল ঠান্ডা করে একটা পরিস্কার সুতির কাপড় এই জলে ভিজিয়ে ঘামাচির ওপর লাগান |

৯) কর্পুর : কর্পুরের টুকরো নিয়ে তার পাউডার বানান | এইবার এই পাউডারে কয়েক ফোঁটা নিম তেল মেশান | নিম পাতাও বেটে নিয়ে মেশাতে পারেন | এই পেস্ট এবার ঘামাচির ওপর লাগান | দ্রুত আরাম পাবেন |

১০) চন্দন এবং ধনে পাতা : চন্দন পাউডার বা চন্দন বাটাতে ধনে পাতা বেটে মেশাতে হবে | এই পেস্ট এবার ঘামাচির ওপর লাগান | শুকিয়ে যাওয়া অবধি লাগিয়ে রাখতে হবে | শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে নিন | ধনে পাতায় অ্যান্টি সেপ্টিক গুন আছে | আর চন্দন জ্বালা আর চুলকানি কমাতে সাহায্য করে |

ওপরের ঘরোয়া পদ্ধতি ছাড়াও ঘামাচিতে বরফ‚ মধু‚ লেবুর রস‚ শসার রস‚ পাকা পেঁপে‚ ট্যালকম পাউডার বা ল্যাভেন্ডার তেলের মধ্যে যে কোন একটা লাগাতে পারেন |এছাড়াও যতটা পারবেন সুতির পোশাক পরুন | বেশি পরিমাণে জল পান করুন | দিনে অন্তত দুবার ভালো করে চান করুন |

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

One Response

Leave a Reply

Handpulled_Rikshaw_of_Kolkata

আমি যে রিসকাওয়ালা

ব্যস্তসমস্ত রাস্তার মধ্যে দিয়ে কাটিয়ে কাটিয়ে হেলেদুলে যেতে আমার ভালই লাগে। ছাপড়া আর মুঙ্গের জেলার বহু ভূমিহীন কৃষকের রিকশায় আমার ছোটবেলা কেটেছে। যে ছোট বেলায় আনন্দ মিশে আছে, যে ছোট-বড় বেলায় ওদের কষ্ট মিশে আছে, যে বড় বেলায় ওদের অনুপস্থিতির যন্ত্রণা মিশে আছে। থাকবেও চির দিন।