বয়স ৩০ ছাড়িয়েছে? কী কী খাবেন না জেনে নিন

4237

আমাদের বয়স বাড়ার সঙ্গে এমন অনেক খাবার আছে যা আমরা এড়িয়ে চলি | কিন্তু এমনও অনেক খাবার আছে যা আমরা মনে করি শরীরের জন্য ভালো | আসলে কিন্তু এই খাবারগুলো খেলে ভালোর থেকে ক্ষতিই বেশি হয় | আজকে রইলো কয়েকটা খাবারের নাম যা আমাদের এড়িয়ে চলা উচিত | বিশেষ করে যদি আপনার বয়স ৩০-এর ওপর হয় |

8) ফ্রুট জুস : দোকানে যে ফলের রস পাওয়া যায় তার কথা তো বাদই দিলাম | ঘরে তৈরি ফলের রস যাতে চিনি বা জল কিছুই মেশানো নেই সেটাও কিন্তু আমাদের শরীরের জন্য ভালো নয় | বলা যেতে পারে ফলের মধ্যে যে চিনি থাকে সেটাই কিন্তু রস হয়ে বেরিয়ে আসে | একইসঙ্গে ফলের মধ্যে যে ফাইবার বা উপকারী নিউট্রিয়েন্টস থাকে তার কিন্তু একটুও ফলের রসে থাকে না | কিছু ক্ষেত্রে এক গ্লাস ফলের রস খাওয়া মানে ৩০গ্রাম চিনি খাওয়া যা একটা বড় চকোলেটে বারের সমান |

7) মার্জারিন : আমরা অনেকেই ভাবি মাখনের বদলে মার্জারিন খাওয়া হয়তো ভালো | কিন্তু এই ধারণা একদম ভুল | মার্জারিন তৈরি হয় হাইড্রোজেনেটেড তেল দিয়ে বা যাকে ট্রান্স ফ্যাট বলা হয় তাই দিয়ে | ট্রান্স ফ্যাট থেকে হার্ট ডিজিজ‚ ইনফ্লেমেশন এবং ত্বক কুঁচকে যওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায় |

6) ভেজিটেবিল অয়েল : মার্জারিনের মতোই ভেজিটেবিল অয়েলও শরীরের জন্য ক্ষতিকারক | এই তেল খেলে হাই কোলেস্টেরল‚ হার্ট ডিজিজ হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটাই বেড়ে যায় |

10) আর্টিফিসিয়াল সুইটনার : আর্টিফিসিয়াল সুইটনার খেলে ব্লাড সুগার বাড়ে না ঠিকই কিন্তু এর থেকে বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা যেমন পেটের সমস্যা ইত্যাদি দেখা দিতে পরে  |

5) Sugary Cereals : সকালে ব্রেকফাস্টে চিনি লাগানো কর্নফ্লেক্স এক আধ দিন খেতে পারেন | কিন্তু এমনিতে এড়িয়ে চলাই ভালো | cereal কেনার সময় দেখে কিনুন | যাতে প্রতি সার্ভিং-এ ৫ গ্রামের কম চিনি থাকে তেমন cereal কিনুন |

4) হোয়াইট ব্রেড : হোয়াইট ব্রেড বা ময়দা দিয়ে বানানো পাঁউরুটি শরীরে গিয়ে চিনির মতোই কাজ করে | তাই সত্ত্বর হোয়াইট ব্রেড খাওয়া বন্ধ করুন |

3) সোডা : সোডা যে কোনো বয়সের জন্যই খারাপ | সোডাতে মাত্রাহীন চিনি তো থাকেই এছাড়াও এতে সিন্থেটিক ডাই আর প্রিসার্ভেটিভ থাকে যা শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকারক |

2) ডেয়ারির দুধ : এই দুধ বা ডেয়ারি প্রডাক্ট শরীরের জন্য ক্ষতিকারক কারণ গরুদের বেশি দুধ উৎপাদনের জন্য হর্মোন দেওয়া হয় | এছাড়াও এই গুরুদের নিয়মিত অ্যান্টিবায়োটিকও দেওয়া হয় | ফলে গরুর দুধে ক্ষতিকারক টক্সিন থাকে | তাই পারলে অর্গানিক ডেয়ারির দুধ বা ডেয়ারি প্রডাক্ট খান |

1) মাইক্রোওয়েভড পপকর্ন : নন অর্গ্যানিক মাইক্রোওয়েভড পপকর্নে carcinogens থাকে এছাড়াও প্যাকেটের গয়ে PFOAs লাগানো থাকে যার থেকে ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায় | এছাড়াও এতে ট্রান্স ফ্যাটও থাকে |

9১০) ফ্লেভারড ইয়োগার্ট : শুধুমাত্র চিনি খাওয়া ছেড়ে দিলেই হবে না | যে সব খাবারে চিনি মেশানো থাকে সেই খাবারও এড়িয়ে চলতে হবে | টক দই শরীরের জন্য খুব ভালো | কিন্তু যখনি তাতে ফ্লেভার অ্যাড করা হচ্ছে তা শরীরের জন্য ক্ষতিকারক হয়ে যাচ্ছে | দেখা গেছে একটা সোডার ক্যানে যতটা চিনি থাকে তার থেকেও বেশি চিনি থাকে এতে | তাই টক দই খান আর ফ্লেভার চাইলে এতে ফ্রেশ ফ্রুট যোগ করুন |

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.