সুরের মূর্ছনা কোমা থেকে ফিরিয়ে আনল রোগীকে

491

তানসেনের সুরের মূর্ছনায় আকাশ থেকে বৃষ্টি নেমে এসে ভিজিয়ে দিত শাহী দরবার | দিনের যেকোনও সময়ে মনখারাপ বা একঘেয়েমি থেকে মুক্তি দিতে ওষুধের মত কাজ করে সুরের আবহ | সুরের ব্যবহার করে বহুদিন ধরেই রোগীদের চিকিৎসা করার পদ্ধতির চল হয়েছে | কিন্তু সাফল্যের মাত্রা কমই | কন্নড় রাগ দরবারির সুর কোমা থেকে ফিরিয়ে আনল সঙ্গীতা দাসকে | কলকাতার এসএসকে এম হাসপাতালে এই চমৎকার ঘটনাটি ঘটেছে |

গত বছরের অক্টোবরের ২৮ তারিখ থেকেই ডেঙ্গুতে ভুগছিলেন সঙ্গীতা | সাংঘাতিক জ্বরের মধ্যে অক্টোবরের ৩০  এ তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় নৈহাটির সরকারি হাসপাতালে | তাঁর বাবা শিবপ্রসাদ দাস নৈহাটির সরকারি হাসপাতালেরই অ্যাম্বুলেন্স চালক | কিন্তু সেখানে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকলে নভেম্বরের ৩ তারিখে তাঁকে এসএসকেএম হাসপাতালে পাঠানো হয় তাঁকে | ডেঙ্গু নেক্রোটিক হেমোরেজিক মেনিনগো এনকেফেলাইটিসের রোগী সঙ্গীতার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে হতে ক্রমশ তিনি কোমায় চলে যান |

এসএসকেএম হাসপাতালের কার্ডিওভাসকুলার অ্যানাস্থেসিস্ট ও একজন ভায়োলিন বাদক সন্দীপ কুমার করের পরামর্শে নভেম্বরের ১৫ তারিখ থেকে  সঙ্গীতাকে মিউজিক থেরাপি দেওয়া শুরু হয় বলে জানিয়েছেন অ্যানাস্থেসিওলজির সহযোগী অধ্যাপক রজত চৌধুরি | সঙ্গীতার ক্ষেত্রে বিখ্যাত ভায়োলিন বাদক এন রজমের বাজানো সুর ব্যবহার করা হয় | প্রথমিক অবস্থায় দিনে ১ বার ও পরে দিনে ৩ বার সঙ্গীতাকে এই সুর শোনানো হয় | এই থেরাপি চলাকালীন ডাক্তারেরা তাঁর অন্যান্য অঙ্গপ্রত্যঙ্গগুলিকে সচল করার প্রচেষ্টা চালাতে থাকেন |


প্রথমে সঙ্গীতার চোখে জল আসতে দেখা যায় | বোঝা যায় থেরাপিতে অবস্থার উন্নতি হচ্ছে | ক্রমশ সঙ্গীতা জড়িয়ে জড়িয়ে কিছু অস্পষ্ট শব্দ উচ্চারণ করতে থাকেন | পরের ৭ দিনে তিনি তাঁর মায়ের নাম ধরে ডাকেন | এইভাবে ধীরে ধীরে নিজের কথা বলার শক্তি ফিরে পান তিনি | কোমা থেকে বেরিয়ে আসেন |

সঙ্গীতার কাকা বিজয় দাস জানিয়েছেন যে তাঁরা ভাবতেই পারেননি আর কোনওদিন সঙ্গীতাকে ফিরে পাবেন তাঁরা | কিন্তু মিউজিক থেরাপির কল্যাণে ও ডাক্তারদের সহায়তায় কোমা থেকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পেরেছেন সঙ্গীতা | সুরের এই অসামান্য শক্তির কাছে কৃতজ্ঞ তিনি ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.