আদর্শ স্ত্রী বা প্রেমিকা হতে গেলে কি ভাল রান্না করা খুব জরুরি ?

আদর্শ স্ত্রী বা প্রেমিকা হতে গেলে কি ভাল রান্না করা খুব জরুরি ?

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

অতিচালাকের গলায় দড়ি | বেশি চালাকি করতে গিয়ে নিজেই বিপদে পড়ার অবস্থায় একথাই বলা হয়ে থাকে | নিজেদের সংস্থার রান্না শেখানোর কোর্সের প্রচার করতে গিয়ে নিজেই নিজেদের অস্বস্তি ডেকে আনল হংকঙের এই কোম্পানি |

হংকং ও চিনের গ্যাস কোম্পানি দ্বারা পরিচালিত একটি সংস্থা টাউনগ্যাস কুকিং সেন্টার | নিজেদের রান্না শেখানোর একটি কোর্সের প্রচার করতে গিয়েই বহু মানুষের মনে প্রশ্নের উদ্রেক করেছে এই সংস্থা | তাঁদের প্রচার পুস্তিকার বিজ্ঞাপনে লেখা শহরের সেরা স্ত্রী বা প্রেমিকা হতে চাইলে আপনার জন্যেই রয়েছে ” এক্সেলেন্ট ওয়াইফ ” কুকিং কোর্স | রান্নার নানা উপকরণ বেছে নেওয়া থেকে শুরু করে আলাদা আলাদা  খাবার রান্নার নানা পদ্ধতি – রোজকার দিনের জন্য নানা সুস্বাদু খাবার রান্না করার পদ্ধতি ৫ টি সেশনেই শিখে নিতে পারেন | কোম্পানির ওয়েবসাইটের সূত্রে জানা যাচ্ছে ৩২০ ডলারের ( ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ২২‚০০০ টাকা ) এই কোর্সে নানান রকমের পদ রান্নার নানান পদ্ধতি শেখানো হবে |

কিন্তু আদর্শ স্ত্রী বা প্রেমিকা হতে কি সুস্বাদু খাবার রান্না করতে পারা খুবই জরুরি? বহু মানুষের করা এই প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছে এই সংস্থা | হংকঙের সমানাধিকার কমিশনের অন্যতম মুখপাত্র ডেভিড ওয়েব এই প্রচারপুস্তিকার একটি ছবি তাঁর ট্যুইটার প্রোফাইলে শেয়ার করে ক্যাপশনে লিখেছেন যে তিনি জানতে চান পুরুষরাও এই কোর্সটি করতে পারবেন কিনা | ডেভিড এও বলেন যে তাঁর মতে টাউনগ্যাস সংস্থার প্রচারের ধারণা হয়ত এবারে বদলাবার সময় এসেছে | হংকঙ খুবই রক্ষণশীল মানসিকতাসম্পন্ন জায়গা | উদাহরণ হিসেবে তিনি বলেন যে সমকামিতা বা সিভিল উইনিয়ন এখনও সেখানে অনুমোদিত নয় |

একটি ইমেইলে হংকং ও চিনের গ্যাস কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে তাঁদের সদস্যরা যাতে নিজেদের প্রেমিক বা স্বামীদের জন্য সুস্বাদু খাবার রান্না করতে পারেন তাই এই রান্না শেখানোর কোর্সটি তাঁরা শুরু করেছেন | পুরুষরাও কোর্সটিতে অংশগ্রহণ করতে পারেন | পরবর্তীকালেও তাঁরা আরও রান্না শেখানোর কোর্সের আয়োজন করতে চলেছেন | এই কোর্সটি তাঁদের প্রচারেরই একটি মাধ্যম |

সমানাধিকার কমিশন ও হংকঙের চাইনিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের করা একটি সমীক্ষর ফলাফল হিসেবে দেখা যাচ্ছে হংকঙের বেশিরভাগ কোম্পানিই মহিলাদের কর্মী হিসেবে নিতে নারাজ | সেক্ষেত্রে এই ধরণের বিজ্ঞাপন মানুষের মনে আরও ঋণাত্মক প্রভাব ফেলতে পারে | এই মানসিকতার প্রচার সমাজের পক্ষে সুস্থ কিনা তা নিয়েও নানা প্রশ্ন উঠছে | এই মানসিকতার প্রচার সমাজের পক্ষে সুস্থ কিনা তা নিয়েও নানা প্রশ্ন উঠছে |

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

Leave a Reply

Handpulled_Rikshaw_of_Kolkata

আমি যে রিসকাওয়ালা

ব্যস্তসমস্ত রাস্তার মধ্যে দিয়ে কাটিয়ে কাটিয়ে হেলেদুলে যেতে আমার ভালই লাগে। ছাপড়া আর মুঙ্গের জেলার বহু ভূমিহীন কৃষকের রিকশায় আমার ছোটবেলা কেটেছে। যে ছোট বেলায় আনন্দ মিশে আছে, যে ছোট-বড় বেলায় ওদের কষ্ট মিশে আছে, যে বড় বেলায় ওদের অনুপস্থিতির যন্ত্রণা মিশে আছে। থাকবেও চির দিন।