প্রিয় বান্ধবীর ঘর ভেঙে তাঁদের বরকে ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ এই দুই অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে

গ্ল্যামার জগতের বাইরে যতই চাকচিক্য থাক না কেন ভেতরটা অন্ধকার | এখানে সহকর্মীরা একে অপরকে ঠকাতে একবারও ভাবে না | আজকে রইল এমনই দুই অভিনেত্রীর কথা যাঁরা তাঁদের প্রিয় বান্ধবীর ঘর ভেঙে পরবর্তীকালে বান্ধবীর বরের সঙ্গে ঘর বেঁধেছেন |

অমৃতা অরোরা : মালাইকার বোন অমৃতার বিয়ে হয় ব্যবসায়ী শাকীল লাদাকের সঙ্গে | শাকীলের এটা দ্বিতীয় বিয়ে | প্রথমে ওঁর বিয়ে হয় নিশা রানার সঙ্গে | নিশা আর অমৃতার বহুদিনের বন্ধুত্ব ছিল | একই কলেজে পড়তেন ওঁরা | ২০০৬ সালে নিশার সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ হয় শাকিলের | পরে ২০০৯ সালে অমৃতা ও শাকিল বিয়ের পিঁড়িতে বসেন |

বান্ধবীর ঘর ভাঙার অভিযোগ ওঠে অমৃতার বিরুদ্ধে | অবশ্য অনেকেই বলেন নিশার সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ হয়ে যাওয়ার পর অমৃতার সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান শাকিল | কিন্তু সত্যিটা আজও জানা যায়নি | কারণ অমৃতা বা শাকিল এই নিয়ে কোনোদিন কথা বলেননি |

স্মৃতি ইরানি : ‘কিঁউকি সাস বি কভি বহু থি’ ধারাবাহিকের তুলসী ১৯৯৮ সালে মিস ইন্ডিয়া বিউটি প্যাজেন্টের একজন ফাইনালিস্ট ছিলেন | বিয়ের আগে উনি স্মৃতি মলহোত্রা ছিলেন | শোনা যায়
কেরিয়ারের প্রথমদিকে ওঁর বন্ধুত্ব হয় মোনা ইরানি নামের একজন সমৃদ্ধ পার্সী মহিলার সঙ্গে | কদিনের মধ্যে ওঁদের গভীর বন্ধুত্ব তৈরি হয় |

এইসময় স্মৃতি বেশ অর্থকষ্টের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিলেন | বন্ধুকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন মোনা | উনি ওঁর বাড়িতে স্মৃতিকে আশ্রয় দেন | এই সময়তেই নাকি স্মৃতির আলাপ হয় মোনার স্বামী জুবিনের সঙ্গে | 

২০০১ সালে স্মৃতি ও জুবিনের বিয়ে হয় | এই ক্ষেত্রেও স্মৃতির বিরুদ্ধে বান্ধবীর ঘর ভাঙার অভিযোগ ওঠে | তবে শোনা যায় মোনা ও জুবিনের বিবাহবিচ্ছদের কারণ নাকি স্মৃতি নয় | এমনকি এও শোনা যায় যে স্মৃতির সঙ্গে জুবিনের বিয়ের পরেও স্মৃতি ও মোনার গভীর বন্ধুত্ব আছে | আবার এও শোনা যায় জুবিনের মা-ই নাকি স্মৃতি ও জুবিনের বিয়ে ঠিক করেন | তবে সত্যিটা যাই হোক না কেন আগের পক্ষের এক মেয়ে ও এই পক্ষের দুই সন্তানকে নিয়ে স্মৃতি বেশ ভালোই সংসার করছেন |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here