৭৭ বারের চেষ্টাতেও স্ত্রীকে সন্তানসম্ভবা করতে না পারায় বন্ধুর বিরুদ্ধে মামলা

3766

নিজে সন্তান জন্ম দিতে অক্ষম, কিন্তু স্ত্রী সন্তান ধারণে সক্ষম। আর সেইজন্যই সন্তানের আশা পুরোপুরিভাবে ছাড়তে পারেননি তানজানিয়ার এক পুলিশকর্মী। বাবা হবেন এই আশা নিয়েই নিজের এক ঘনিষ্ঠ বন্ধুর দ্বারস্থ হয়েছিলেন ওই পুলিশকর্মী। কিন্তু ব্যর্থ হন বন্ধুও। সেইজন্য রাগে, ক্ষোভে বন্ধুর বিরুদ্ধেই মামলা দায়ের করলেন ওই পুলিশকর্মী!

ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসতেই নেটদুনিয়ায় হাসির রোল উঠেছে। কিন্তু ঠিক কী ঘটেছিল?- আফ্রিকার একটি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুসারে, ঘটনাটি ২০১৬ সালের। ডাক্তারি পরীক্ষায় সন্তান উৎপাদনে অক্ষমতার কথা জানতে পেরেছিলেন তানজানিয়ার পঞ্চাশ বছর বয়সী ডারিয়াস মাকাম্বাকো। ডারিয়াস পেশায় তানজানিয়ার ট্রাফিক পুলিশকর্মী। বিয়ের ছ’বছর পেরিয়ে যাওয়ার পরও সন্তান না আসায় রীতিমতো অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়েছিলেন তাঁর স্ত্রী প্রেসিয়াস। এমন সময়ে স্ত্রীকে সন্তানসম্ভবা করে তোলার জন্য এক অদ্ভুত বুদ্ধি খেলে তাঁর মাথায়।

এই সমস্যা থেকে উদ্ধার পেতে তিনি দ্বারস্থ হন, বন্ধু ইভান্স মাসতানোর। স্ত্রীকে অন্তঃসত্ত্বা করতে হবে এই অনুরোধ নিয়েই হাজির হন বন্ধুর কাছে। প্রথমে এমন অদ্ভুত আবদার মেনে নেননি বাহান্ন বছরের ইভান্স। তারপর কুড়ি লক্ষ তানজানিয়ান সিলিং (ভারতীয় মুদ্রায় ষাট হাজার টাকার কিছু বেশি)-এর বিনিময়ে এই কাজে রাজি হন ইভান্স। ডারিয়াস তাঁকে শর্ত দেন, এর বিনিময়ে বন্ধুকে আগামী দশ মাসে সপ্তাহে অন্তত তিনবার করে মিলিত হতে হবে ডারিয়াসের স্ত্রীর সঙ্গে। জানা গিয়েছে, বন্ধুর স্ত্রীকে সন্তানসম্ভবা করতে মরিয়া হয়ে উঠেছিলেন ইভান্স। কিন্তু লাগাতার সাতাত্তর বারের চেষ্টার পরও ব্যর্থ হন তিনি। আর এই ক্ষোভ থেকেই চুক্তি লঙ্ঘন করার দাবিতে বন্ধুর বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা দায়ের করেন ওই পুলিশকর্মী।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.