বরাবরের পছন্দ লম্বা মেয়ে‚ দুটো প্রেমের পর বিয়ের ক্ষেত্রেও পছন্দ পাল্টাননি সঞ্জয় কপূর

অনিল কপূরের ভাই সঞ্জয় কপূর যে মুহূর্তে বলিউডে পা রাখেন প্রায় তখনি রিয়েল লাইফেও প্রেমে পড়েন | বলিউডে ওঁর প্রথম ছবি ‘ প্রেম ‘ | বনি কপূর ছিলেন এই ছবির প্রযোজক | এই ছবি শেষ হতে ৬ বছর সময় লেগে যায় | অবশেষে ১৯৯৫-এ এই ছবি মুক্তি পায় | সঞ্জয় কপূরের বিপরীতে এই ছবিতে ছিলেন টাবু | ‘প্রেম’ মুক্তি পাওয়ার পর খুব একটা সাফল্য পায়নি | কিন্তু ছবির নায়িকা টাবু সত্যিকারের জীবনে সঞ্জয়ের কাছাকাছি চলে আসেন |

এই দুজন অবশ্য কোনদিন অফিসিয়ালি ওঁদের সম্পর্কের কথা মেনে নেননি | কিন্তু দুজনকে তখন সব জায়গাতেই একসঙ্গে দেখা যেত | টাবু ও সঞ্জয় বেশ কিছুদিন একসঙ্গে ছিলেন | কিন্তু শেষ অবধি ওঁদের প্রেম ভেঙে যায় | ওঁদের কী কারণে ব্রেক আপ হয়ে যায় তা জানা যায় নি | কিন্তু ব্রেক আপের পর দুজনেই একে অপরের সঙ্গে কথা অবধি বলতেন না | বিভিন্ন কারণের মধ্যে এটাও একটা কারণ যার জন্য ‘প্রেম’ মুক্তি পেতে এত সময় লাগে |

সঞ্জয় কপূর নিজে বেশ লম্বা‚ তাই বরাবার ওঁর লম্বা মেয়ে পছন্দ | উনি নিজেই স্বীকার করে নিয়েছেন লম্বা মেয়ে ওঁর দুর্বলতা | তাই টাবুর সঙ্গে ব্রেক আপের পর উনি বি-টাউনের আরো একজন ‘ টল বিউটি ‘-র প্রেমে পড়েন | উনি হলেন সুস্মিতা সেন |

সঞ্জয় ও সুস্মিতার আলাপ হয় ‘ সির্ফ তুম ‘ ছবির শ্যুটিং চলাকালীন | এই ছবির গান’ দিলবর দিলবর ‘ সেই সময় খুব জনপ্রিয় হয়েছিল | যাই হোক‚ ওঁদের প্রেম কিছুদিনের মধ্যে শেষ হয়ে যায় |

সুস্মিতার সঙ্গে ব্রেক আপের ঠিক পর পরই সঞ্জয়ের আলাপ হয় মাহীপ সান্ধুর সঙ্গে | সাধারণ মেয়েদের তুলনায় মাহীপ বেশ লম্বা | আর বলাই বাহুল্য এই কারণের জন্যেই মাহীপের সঙ্গে আলাপ হওয়ার কিছুদিনের মধ্যে ওঁর প্রেমে পড়েন সঞ্জয় | মাহীপ অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক ছিলেন | বলিউডে অভিনয়ের ডাক পেয়ে উনি মুম্বই এসেছিলেন | একটাই ছবি করেছেন উনি | আর সেই ছবি একেবারেই অসফল হয় | কিন্তু মুম্বইতে এসে সঞ্জয়কে পান উনি |

কয়েকবছর প্রেম করার পর সঞ্জয় ও মাহীপ বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন | ওঁদের ১৯৯৭ সালে বিয়ে হয় | ওঁদের এক ছেলে ও এক মেয়ে আছে |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.