আলি জাফর ২০১০ সালের মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি  তেরে বিন লাদেন -এর মাধ্যমে বলিউডে আত্মপ্রকাশ করেন | কম বাজেটের ছবি হলেও এই ছবি বেশ হিট হয় আর আলি জাফর সবার মন জিতে নেন | অবশ্য শুধু অভিনয়ই নয় পরে জানা যায় আলি ভালো গানও করেন | অনেকেই জানেন না অভিনয় আর গান ছাড়াও ভালো ছবিও আঁকেন উনি | এমনকি ওঁর জীবনসঙ্গী আয়েষা ফাজলির সঙ্গে ওঁর ছবি আঁকতে গিয়েই আলাপ হয় |

Holi Hai

কিশোর বয়স থেকেই পাকিস্তানের একটা হোটেলের লবিতে বসে ছবি আঁকতেন উনি | কয়েকবছর বাদে ২০০২ সালের অক্টোবর মাসে একদিন এক তরুণী ওঁকে দিয়ে নিজের পোট্রেট আঁকান | সেই তরুণীই হলেন আয়েষা | আলাপ থেকে কদিনের মধ্যেই প্রেম হয় ওঁদের |

বহুবছর প্রেম করার পর দুজনে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন | দুই পরিবারের একে অপরের সঙ্গে আলাপ হয় | আয়েষার বাবার প্রথম আলাপেই আলিকে পছন্দ হয়ে যায় | কিন্তু এই সময় ওঁদের জীবনে ঘটে এক আশ্চর্য ঘটনা |

২০০৮ সালে একদিন আলি আর আয়েষা একটা রোম্যান্টিক ডিনারে যান | দিনটা ছিল শনিবার | ডিনার সেরে বাড়ি ফেরার সময় কিডন্যাপ হন ওঁরা | পরে ২৫ লাখ টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেওয়া হয় ওঁদের | তবে কারা ওঁদের অপহরণ করেছিল তা আজ অবধি জানা যায় নি |

অবশেষে দীর্ঘদিন প্রেম করার পর ২০০৯ সালে পাকিস্তানের লাহোরে একে অপরকে  কবুল হ্যায়  বলেন ওঁরা | ২০১০ সালে জন্মায় ওঁদের প্রথম সন্তান ছেলে আজান জাফর | এর পাঁচ বছর বাদে ওঁদের দ্বিতীয় সন্তান মেয়ে আলিজা জন্মায় |আলি জাফর স্ত্রীর প্রতি এতটাই কমিটেড যে ছবির ক্ষেত্রে  নো কিসিং ক্লজ  মেনে চলেন উনি |  লন্ডন‚ প্যারিস‚ নিউ ইয়র্ক  ছবিতে বডি ডাবল ব্যবাহার করা হয়েছিল চুম্বন দৃশ্যের জন্য | আলি জাফরকে শেষ গতবছরের মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ডিয়ার জিন্দেগি  তে দেখা গিয়েছিল |

আরও পড়ুন:  কী এমন হলো !? কেন টুইটার ছাড়ছেন অমিতাভ!?

NO COMMENTS