২৫ বছর স্বামীর থেকে আলাদা আছেন অলকা ইয়াগ্নিক‚ তবু কমেনি ভালবাসা (আজ জন্মদিন)

২০০০ এরও বেশি গানের রেকর্ডিং করেছেন উনি | ১৪ বছর বয়সে গানের ইন্ডাস্ট্রিতে পা রাখেন | ১৬ টা বিভিন্ন ভাষায় গান গেয়েছেন | কোনো সন্দেহ নেই নয়-এর দশকের মেলোডি কুইন উনি | আমরা কথা বলছি অলকা ইয়াগ্নিকের | অলকার ব্যক্তিগত জীবনও কিন্তু ছকে বাঁধা নয় | উনি ১৯৮৯ সালে নীরজ কপূরকে বিয়ে করেন | নীরজ শিলং এর একজন সফল ব্যবসায়ী | এই দম্পতি ২৫ বছরেরও বেশি আলাদা আছেন কিন্তু একে অপরের জন্য ভালোবাসা এক বিন্দুও কমেনি |

১৯৮৬ সালে অলকা ওঁর মায়ের সঙ্গে দিল্লি গিয়েছিলেন ট্রেনে করে | অলকার মায়ের বান্ধবীর বোনের ছেলে নীরজ কপূর ওঁদের স্টেশনে নিতে আসেন | সেই প্রথম অলকা ও নীরজের দেখা |

মুম্বই ফিরে যাওয়ার পরেও নীরজের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছিলেন অলকা | এমনকি নীরজ ব্যবসার কাজে মুম্বই গেলে অলকার সঙ্গে এক দু বার দেখাও করেন | প্রায় ৬ মাস বাদে ওঁরা বুঝতে পারেন ওঁদের সম্পর্ক বন্ধুত্বের থেকে বেশি |

দু বছর প্রেম করার পর ওঁরা বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন | ১৯৮৮ সালটা অলকার কাছে খুবই স্পেশাল | এই বছর মুক্তি পায় ওঁর প্লেব্যাক করা গান  এক দো তিন  যা খুবই জনপ্রিয় হয় | ওই একই বছর অলকা ওঁর পরিবারকে জানান উনি নীরজকে বিয়ে করতে চান |

দুই পরিবারই এই বিয়ের বিরুদ্ধে ছিলেন | তাঁরা অলকা এবং নীরজ দুজনকেই বোঝান আলাদা জায়গায় থেকে কোনমতেই ওঁদের বিবাহিত জীবন সফল হতে পারে না | কিন্তু শেষ অবধি তাঁরা হার মানেন | এবং ১৯৮৯ এর ফেব্রুয়ারি মাসে অলকা ও নীরজ বিয়ে করেন | বিয়ের পর অলকা মুম্বইতে থেকে যান আর নীরজ ফিরে যান শিলং | ওই একই বছর ওঁদের একমাত্র মেয়ে শায়েশা জন্মায় | শায়েশা বরাবর মায়ের কাছেই থেকেছে |

অলকা একা হাতেই মেয়ে শায়েশাকে মানুষ করেছেন | উনি কিছুতেই নিজের কেরিয়ার বিসর্জন দিয়ে নীরজের কাছে শিলং এ যেতে রাজি হননি | অলকা অবশ্য বরাবর বলেছেন নীরজ কোনদিনই ওঁকে কোন ব্যাপারে জোর করেননি | এবং স্ত্রীর কেরিয়ারকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়েছেন | নিজের কাজ সামলে নীরজ মাঝে মধ্যেই মুম্বইতে স্ত্রীর কাছে যেতেন | অন্যদিকে অলকা প্রতি বছর এক মাস করে নীরজের সঙ্গে শিলং-এ সময় কাটাতে লাগলেন নিয়ম করে |

অলকা এও জানান নীরজ মুম্বাইতে ব্যবসা আরম্ভ করেছিলেন যাতে উনি অলকার সঙ্গে একসঙ্গে থাকতে পারেন | কিন্তু বড় অঙ্কের অর্থ ক্ষতি হওয়ায় উনি আবার বাধ্য হয়ে শিলং  ফিরে যান |

মাঝে মতের পার্থক্যের জন্য ৪-৫ বছরের জন্য অলকা ও নীরজ আলাদ হয়ে যান | কিন্তু পরে দুজনে পার্থক্য ভুলে আবার এক হওয়ার সিদ্ধান্ত নেন |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.