তামার পাত্রে জল পানের উপকারিতা অপরিসীম

437

মানুষ জল পানের জন্য নানা ধরনের পাত্র ব্যবহার করেন। বর্তমানে ই-কমার্স সাইট সহ নানান শপিং মলেও দেখা যাচ্ছে তামার বোতল বা পাত্রের ব্যপক চল। তবে কি সেগুলো শুধুমাত্রই ফ্যাশনের জন্য। একদমই নয়, আয়ুর্বেদ বিশেষজ্ঞদের মতে তামার তৈরি পাত্র বা গ্লাসে জল পানের রয়েছে অনেক গুণ। তামার পাত্রে জল পান করলে মানুষের শরীরে বাত, সর্দি বৃদ্ধি করতে দেয় না। শরীরের সামঞ্জস্য বজায় রাখে। আয়ুর্বেদ অনুযায়ী, রাত্রিবেলায় তামার জগ বা গ্লাসে জল ঢেকে রেখে দিন। সকালবেলায় খালি পেটে সেই জল পান করলে অনেক উপকার পাওয়া যায়।

তামা ‌মানুষের শরীরে কপারের অভাবকে পূর্ণ করে। এর জন্য শরীরে রক্তের ঘটতি হয় না। রোগ সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়ার থেকে রক্ষা করে, শরীর সুস্থ রাখতে ‌সাহায্য করে।

তামার পাত্রে ‌নিয়মিত জল পান করলে হাঁটুর ব্যথা এবং বাতের সমস্যা অনেক কমে যায়। শরীরের ওজন কমাতে চাইলে তামার পাত্রে জল নিয়মিত পান করুন। ওবেসিটি রুখতে এই পাত্রের জলের জুড়ি মেলা ভার।

পেটের ‌রোগের সমস্যা সমাধান করতে সাহায্য করে। কোষ্ঠকাঠিন্য ও অম্বলের  সমস্যা আছে, অবশ্যই তামার পাত্রে রাখা জল পান করুন। হজমের সমস্যা সমাধানে সাহায্য করে।

নিয়মিত তামার পাত্রে রাখা ‌জল পান করলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ে। পাশাপাশি ত্বকের সমস্যা দূর করতে সাহায্যও করে। তামার পাত্রে রাখা ‌জলে ডায়রিয়া, জন্ডিস এবং অন্যান্য রোগের ব্যাকটেরিয়া থাকলে ধ্বংস করে।

আমেরিকান ক্যান্সার সোসাইটির মতে, তামার মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিক্যানসার উপাদান। যা ক্যান্সারের মতো গুরুতর রোগের বিরুদ্ধে মোকাবিলা করতে সাহায্য করে।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.