গরমে শরীর ঠান্ডা রাখে, দ্রুত এনার্জি বাড়ায়… ছাতু থেকে আর কী কী উপকার মেলে?

‘ছাতু’ কি শুধুই অবাঙালিদের? একটা সময় ‘ছাতু’ সত্যিই বিহার, ইউপি, মধ্যপ্রদেশে একচেটিয়া রাজত্ব করত| নানা গুণের নিধি হওয়ায় এখন বাংলাও একে আপন করে নিয়েছে| হবে নাই বা কেন? ছাতু মানেই প্রচুর ফাইবার, ম্যাঙ্গানিজ, আয়রন আর ম্যাগনেশিয়ামের আকর| যা শরীর গড়তে, সুস্থ থাকতে প্রচন্ড সাহায্য করে| তাই ছাতুর আরেক নাম ‘দেশি হরলিক্স’| এছাড়া, ত্বক, চুল ভালো রাখতেও সাহায্য করে ছাতু| রোজের ডায়েটে ছাতু খেতে পারেন দু’ভাবে— সকালে জল, নুন, পাতিলেবুর রস, বিটনুন মিশিয়ে সরবত করে কিংবা মুড়ির সঙ্গে মেখে| জেনে নিন ছাতুর বাকি উপকারিতা—

১. শরীর ঠান্ডা রাখে: ছাতু প্রচুর পরিমাণে জল শোষণ করে| তাই ছাতু খেলে গরমে যেমন ডিহাইড্রেন এড়াতে পারেন তেমনি ছাতু পেট ঠান্ডা করে| হজমে সাহায্য করে| ফলে, আপনা থেকেই শরীরও ঠান্ডা থাকে| অনেকেই তাই সারা গরম সকালে খালি পেটে ছাতুর সরবত খাওয়ার পরামর্শ দেন|

২. এনার্জি বাড়ায়: গরম মানেই প্রচুর ঘাম| এবং এনার্জি লেভেল তলানিতে| শরীর জুড়ে ক্লান্তি, ঘুম ঘুম ভাব| এসব সরিয়ে নিমেষে চাঙ্গা হতে চাইলে রোজ এক গ্লাস ছাতুর সরবত যথেষ্ট| যাঁরা নিয়মিত ওয়ার্কআউট করেন তাঁরা শরীরচর্চার পর এই সরবত খেলে প্রয়োজনীয় পুষ্টি পাবেন|

৩. কোষ্ঠকাঠিন্য কমায়: ছাতুর মধ্যে থাকা ফাইবার পেট পরিষ্কার রাখতে খুব সাহায্য করে| যাঁরা কোষ্ঠকাঠিন্যে ভোগেন তাঁরা নিয়মিত ছাতু খেলে উপকার পাবেন| শুধু পেট পরিষ্কার নয়, খাবারের সঙ্গে অনেক তেল-মশলা লিভারে জমে হজমে সমস্যার সৃষ্টি করে| ছাতু খাবারের সঙ্গে আসা ক্ষতিকারক তেল সরিয়ে তাজা রাখে লিভার|

৪. ডায়াবেটিস, প্রেশার নিয়ন্ত্রণে রাখে: ছাতুর মধ্যে থাকা গ্লাইসেমিক রক্তে সুগার জমতে দেয় না| তাই ছাতু সুগারের রোগীদের পক্ষে খুব ভালো| একই ভাবে হাই প্রেশারের রোগী ছাতুর সঙ্গে অল্প নুন মিশিয়ে জলে গুলে নির্ভয়ে খেতে পারেন| এতে প্রেশার নিয়ন্ত্রণে থাকবে|

৫. গর্ভাবস্থা, ঋতুকালীন দুর্বলতা সারায়: সন্তান ধারণের সময় এবং প্রতিমাসের ঋতুস্রাবে মেয়েরা প্রচন্ড দুর্বল হয়ে পরে| ছাতুতে যেহেতু আয়রন থাকে তাই এই সময় এই খাবার খেলে রক্তাল্পতাজনিত সমস্যা কমে| সঙ্গে দুর্বলতাও| এছাড়া, ছাতু বুকের দুধ বাড়াতেও সাহায্য করে| এবং এর মাধ্যমে বাচ্চাও পুষ্ট হয়|

৬. ত্বক, চুল ঝলমলে: ছাতুর গুণে| কীভাবে? এর মেধ্যে থাকা ভিটামিন, মিনারেলস, প্রোটিন এবং anti-oxidant ভিতর থেকে চুল, ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায়| ত্বকের মধ্যে থাকা কোষ নষ্ট হতে দেয় না| শরীর থেকে দূষণের মাত্রা কমিয়ে চুল পরা, অকালপক্কতা, বলিরেখা কমিয়ে দেয়|

৭. বার্ধক্যেও চনমনে: বয়সের ভারে আপনি জবুথবু? অবসাদ শরীর-মন জুড়ে? কিছুতেই এনার্জি পান না? নো প্রবলেম| রোজ ছাতু মাখা বা ছাতুর পাতলা সরবত খান| শরীর পুষ্ট হবে| পেট পরিষ্কার থাকবে| খিদে বাড়বে| হজম হবে| এনার্জি বাড়বে আপনা থেকেই|

৮. বাড়তি ওজন ঝরাবে: ছাতু খেলে অনেকক্ষণ পেট ভরা থাকে| ফলে, টুকটাক মুখ চালানোও বন্ধ| পরিমিত খাবার খেলে এমনিতেই ওজন বাড়ে না| আর আপনি থাকেন ছিপছিপে|

৯. দেশি হরলিক্স: সব বয়সের জন্যই ছাতু ভালো| আর বাচ্চাদের? ওদের জন্য আরও বেশি উপকারী| তাই ছাতুকে এই বিশেষ নামে ডাকা হয়| সহজপাচ্য হওয়ায় বাড়ন্ত বয়স থেকে ছাতু খেলে এর মধ্যে থাকা ক্যালসিয়াম, ফাইবার, পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম আর আয়রন বাচ্চার শরীর গঠনে যথেষ্ট সাহায্য করে| 

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here