অভিষেক বচ্চনের সঙ্গে করিশ্মা কপূরের বিয়ে ভেঙে যাওয়ার পর কপূর আর বচ্চনের পরিবারের মধ্যে চিড় ধরে | এর কয়েকবছর বাদে অমিতাভ রাজি হন করিনা কপূরের সঙ্গে সত্যাগ্রহ ছবিতে অভিনয় করতে | দুই পরিবারই পুরনো কথা ভুলে আবার নতুন করে বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়ে দেয় একে অপরের দিকে |

Banglalive

বিগ বি সোশ্যাল মিডিয়াতে খুবই জনপ্রিয় | উনি নিয়মিত ব্লগ লেখেন | সত্যাগ্রহসিনেমার শ্যুটিং এর সময় উনি একটা ব্লগ লেখেন করিনাকে কেন্দ্র করে | সেই ব্লগ থেকে জানা যায় একবার করিনা কীভাবে দৌড়ে এসেছিল ওঁর বাবা রণধীর কপূরকে বাঁচাতে যখন অমিতাভ ওঁকে মাটিতে ফেলে মারছিলেন | আসুন দেখ নিন বিগ বি কী লিখেছিলেন |

আমি এখনো করিনার সঙ্গে এই নিজে মজা করি | একই সঙ্গে আমি আশ্চর্য হয়ে যাই এই দেখে যে ও কীরকম তাড়াতাড়ি বড় হয়ে গেল | ও যখন ছোট ছিল তখন আমি আর ওর বাবা (রণধীর কপূর) একসঙ্গে অনেকগুলো ছবিতে অভিনয় করেছি |

আমরা গোয়াতে পুকার ছবির শ্যুটিং করছিলাম | করিনা একটা মিষ্টি টুপি যাতে গোলাপী ফুল আঁকা ছিল সেটা পরে শ্যুটিং দেখতে এসেছিল | কিন্তু একটা অ্যাকশন সিকোয়েন্সে যেখানে আমাকে রণধীরকে মারতে হতো তা দেখে করিনা ভীষণ আপসেট হয়ে পড়ে |

ও তখন শ্যুটিং বুঝতো না | ও দৌড়ে এসে তার বাবাকে জড়িয়ে ধরে আমার(বদমাশ লোক) হাত থেকে বাঁচানোর জন্য |

করিনার চোখে জল ছিল | একই সঙ্গে ও ওর বাবার জন্য খুবই চিন্তিত ছিল | করিনা খালি পায়েই দৌড়ে এসেছিল ওর বাবাকে বাঁচাতে | এর ফলে বালি আর কাদা লেগে ওর পা নোংরা হয়ে গিয়েছিল | আমি ওকে শান্ত করার জন্য ওর ছোট্ট ছোট্ট পা জল দিয়ে ধুয়ে দিই | এতে ও একটু আশ্বস্ত হয় এবং বুঝতে পারে আমি বদমাশ লোক নই | পরে ওকে অনেক কষ্টে বোঝানো হয় আমি ওর বাবাকে মিছিমিছি মারছিলাম | করিনা এখনো এই ঘটনার কথাটা মনে রেখেছে |

প্রসঙ্গত রাজ কপূরের বড় মেয়ে ঋতুর ছেলে নিখিলের সঙ্গে বিয়ে হয়েছে অমিতাভ বচ্চনের মেয়ে শ্বেতার |

আরও পড়ুন:  বিচ্ছেদের পথে জয়-লোপামুদ্রা!?

NO COMMENTS