যান্ত্রিক গোলযোগে এটিএম থেকে নোটবৃষ্টি‚ কুড়িয়ে নিল দুজনে‚ কিন্তু রাখতে পারল কি ?

এক রকম টাকার বৃষ্টিই বলা যায় । হোক না সে ২ সেকেন্ডের জন্য । তাই বা কম কী । তবে আকাশ থেকে নয় । বরং খোদ ব্যাঙ্কের এটিএম থেকে । হু হু করে বেড়িয়ে আসছে টাকা । মাটিতে লুটোপুটি অবস্থা । এত টাকা দেখে কি লোভ সামলানো যায় ।

সম্প্রতি চীনের ঝেজিয়াং প্রদেশের নিনগো শহরের এক এটিএমের সিসিটিভি ফুটেজ এমনই দৃশ্য ধরা পড়ল ।এটিএমের যান্ত্রিক গোলযোগের কারণে কয়েক সেকেন্ডের জন্য হু হু করে বেড়িয়ে আসছে টাকা । ছড়িয়ে থাকে এটিএম কক্ষের মেঝেতে। কিছু পরেই সেই এটিএমে দু’জন টাকা তুলতে আসেন । চোখের সামনে এত্তগুলো টাকা অবলীলায় পড়ে ! কালবিলম্ব না করে কুড়িয়ে নিলেন নোটগুলি । আনুমানিক ৩০০০ ইয়েন ,ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৩২৫০০ টাকা ।পুরোটাই আত্মসাৎ !

সিসিটিভির বিপরীতে পুরো ঘটনাটি ঘটায় পুলিশের কাছে এখনো অধরা ওই দুই ব্যক্তি। তবে সিসিটিভি ফুটেজটি সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোডের পরই তা নিমেষে ভাইরাল হয় ।ফুটেজে মুখ না দেখা গেলেও রেকর্ড হয়েছে দুই ব্যক্তির কথোপকথন । যেখানে এক ব্যক্তি ওই টাকা নেওয়া উচিত কিনা সে বিষয়ে দ্বিধা প্রকাশ করছে ।আরেক ব্যক্তি উত্তরে তাঁকে বলছে টাকা যে খুঁজে পাবে তার ! 

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও আপলোড হতেই সরব হন কিছু মানুষ। জানান,টাকা অবশ্যই তাঁদের হত যদি তারা এই টাকা রাস্তায় বা টয়লেটে কুড়িয়ে পেতেন । কিন্তু এটিএম এলাকা থেকে পাওয়া টাকা কখনোই তাঁদের নিজেদের কাছে রাখা উচিত হয়নি । কারণ এটিএম কোনো পাব্লিক প্লেস নয় ।

আরেকজনের প্রতিক্রিয়া , কোনো কোনো দেশে এই ধরণের কাজ একরকম অপরাধ ।প্রথমত ওই দুই ব্যক্তি জানেন টাকা তাঁদের নয় । দ্বিতীয়ত টাকা ব্যাঙ্কের অর্থাৎ জনগণের। কারোর ব্যাক্তিগত নয় ।

উন্নত প্রযুক্তির দৌলতে এটিএমে টাকা পাওয়া হয়েছে সহজলভ্য ।তবে এটিএম মেশিনও তো যন্ত্র । ত্রুটি তো হতেই পারে কখনো সখনো  !সারালেই সেরে উঠবে রোগ ।কিন্তু মানুষের লোভ ! তা কমাতে প্রযুক্তিও চিরতরে ফেল !

চিনের এই ঘটনায় প্রথমে পগারপাড় হলেও পরে পুলিশ পাকড়াও করেছে দুই মূর্তিমানকে | উদ্ধার করা হয়েছে কুড়িয়ে নেওয়া টাকা |

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

Please share your feedback

Your email address will not be published. Required fields are marked *

pakhi

ওরে বিহঙ্গ

বাঙালির কাছে পাখি মানে টুনটুনি, শ্রীকাক্কেশ্বর কুচ্‌কুচে, বড়িয়া ‘পখ্শি’ জটায়ু। এরা বাঙালির আইকন। নিছক পাখি নয়। অবশ্য আরও কেউ কেউ