রূপচর্চায় বেসন

শুধুমাত্র জিভে জল আনা ভাজাভুজিতেই নয়‚ প্রাচীন কাল থেকেই রূপচর্চার ক্ষেত্রে বেসনের জুড়ি মেলা ভার | আমাদের রান্না ঘরে হাতের কাছেই থাকা এই উপাদানটি দিয়েই আমাদের এই ব্যস্ত জীবনে আমরা নিতে পারি নিজেদের রূপের যত্ন | বেসন ত্বকের মৃত কোষ দূর করে ত্বককে উজ্জ্বল করে তোলে।  ত্বক ফর্সা ও টানটান করতে এবং ত্বকের অবাঞ্ছিত লোম ও মুখের বিভিন্ন সমস্যা দূর করতে ব্যবহার করতে পারেন বেসন। চটজলদি বেসন ব্যবহার করেই কীভাবে আমরা করতে পারি রূপচর্চা – আসুন জেনে নেওয়া যাক |

১| বেসন মুখের কালচে ভাব কমাতে খুবই কার্যকরী | ৪ চামচ বেসন, ১ চামচ লেবুর রস, ১ চা চামচ টক দই মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করে নিন। মুখে এবং ঘাড়ে লাগিয়ে শুকিয়ে যাওয়া অবধি অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই মিশ্রণ ত্বককে নরম এবং উজ্জ্বল করে। সপ্তাহে ৪ থেকে ৫ বার ব্যবহার করতে পারেন এই প্যাকটি।

২| অ্যান্টি পিম্পল মাস্ক হিসেবে বেসনের গুণাবলী সবারই জানা | ২ চামচ বেসন, ২ চামচ চন্দন গুঁড়োর সঙ্গে ১ চামচ দুধ মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে নিন। মুখে লাগিয়ে শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ব্রণর সমস্যা অনেকটাই কমে আসতে দেখতে পাবেন |

৩| ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে লেবু এবং বেসনের মিশ্রণ কাজে আসে। ৪ চামচ বেসন, ১ চামচ লেবুর রস এবং এক চামচ কাঁচা দুধ ভালো করে মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে নিন। এই মিশ্রণটি মুখে সারকুলার মোশনে স্ক্রাবের মতো হাল্কা করে ঘষে নিন। শুকিয়ে যাওয়া অবধি অপেক্ষা করুন। এরপর ঠান্ডা জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

৪| ঘাড়ের বা বগলের কালো দাগ আমাদের অনেকেরই সমস্যা। এ নিয়ে বিব্রত বোধ করি অনেকেই। এইসব জায়গার কালো দাগ দূর করতে বেসনের একটি মিশ্রণ ব্যবহার করলে সুফল মিলবে। বেসন, টক দই এবং কাঁচা হলুদ পরিমাণ মতো নিয়ে ঘাড়ে এবং বগলের কালো জায়গায় লাগান। ৩০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। এরপর ভেজা জায়গাটি ভাল ভাবে মুছে নিয়ে সেখানে তিলের তেল দিয়ে মাসাজ করুন। সপ্তাহে অন্তত ৩ বার ব্যবহার করুন। দেখবেন‚ আস্তে আস্তে কালো দাগ হাল্কা হয়ে আসবে |

৫| ব্রণের কালো দাগ দূর করতে বেসনের সাথে শশা এবং লেবুর রস মিশিয়ে মুখে লাগান। ২০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে ব্রণের দাগ হাল্কা হয়ে আসবে |

৬|  মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করতে অনেক আগে থেকেই ব্যবহার হয়ে আসছে বেসন। মেথি গুঁড়ো এবং বেসনের সাথে জল মিশিয়ে মিশ্রণ বানিয়ে নিন। মুখের যেসব জায়গায় লোম রয়েছে সেখানে এই মিশ্রণ লাগান। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিন এই মিশ্রণটি ব্যবহার করলেই ফল ভাল পাবেন |

৭| একটি ডিমের সাদা অংশ, ২ চামচ বেসন, ১ এক চামচ টক দই এবং আধ চামচ লেবুর রস ভাল ভাবে মিশিয়ে নিন। এরপর চুলে লাগিয়ে ৩০ থেকে ৪০ মিনিট রেখে শ্যাম্পূ করে ধুয়ে ফেলুন। এই হেয়ার মাস্কটি সপ্তাহে ১বার বা ২ বার ব্যবহার করে দেখুন | চুলের স্বাস্থ্য ফিরবে |

৮| কোথাও ঘুরতে বেরোচ্ছেন ? ফেস ওয়াশ দিয়ে মুখ না ধুয়ে চেহারায় মুহূর্তের মধ্যে উজ্জ্বলতা আনতে ২ চামচ বেসন, ১ চামচ কমলালেবুর শুকনো খোসার গুঁড়ো এবং আধ চামচ দুধ মিশিয়ে মুখে এবং ঘাড়ে লাগিয়ে নিন। লাগানোর সময় মুখে হালকা ভাবে সারকুলার মোশনে মাসাজ করুন। ১৫ মিনিট রেখে ঠাণ্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই মিশ্রণ ত্বককে উজ্জ্বল এবং মসৃণ করবে।

৯|  ৩ চামচ বেসন, ২ চামচ আমন্ড অয়েল, ৮ চামচ টক দই, ১ চামচ অলিভ অয়েল মিশিয়ে মিশ্রণ বানিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি চুলের গোড়ায় লাগিয়ে ৪০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। চুল যদি বেশি রুক্ষ – শুষ্ক হয় তাহলে এর সাথে ভিটামিন ই অয়েলের ১ বা ২ টি ক্যাপসুল যোগ করতে পারেন। এটি সপ্তাহে ২ বার ব্যবহার করুন।

১০|  ৩ চামচ বেসন, ২ চামচ কাঁচা দুধ বা ২ চামচ টক দই মিশিয়ে নিয়ে মুখে লাগান। ২০ মিনিট পর মুখ ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের অতিরিক্ত তেল তেল ভাব কমতে দেখবেন।

হাতের কাছে থাকা বেসন দিয়েই যে এতরকম ভাবে নিজের রূপের নানান সমস্যার সমাধান করতে পারেন সে কথা জানতেন কি ? জেনে নিলেন তো কত সহজেই ছোটখাটো সমস্যার সমাধান করতে পারেন বাড়িতেই মজুত থাকা একটুখানি বেসন দিয়েই ! ত্বককে উজ্জ্বল ও সুন্দর রাখতে নিয়মিত বেসন ব্যবহার করলে ফল হাতেনাতেই দেখতে পাবেন নিজের চোখে |

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

Please share your feedback

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Illustration by Suvamoy Mitra for Editorial বিয়েবাড়ির ভোজ পংক্তিভোজ সম্পাদকীয়

একা কুম্ভ রক্ষা করে…

আগের কালে বিয়েবাড়ির ভাঁড়ার ঘরের এক জন জবরদস্ত ম্যানেজার থাকতেন। সাধারণত, মেসোমশাই, বয়সে অনেক বড় জামাইবাবু, সেজ কাকু, পাড়াতুতো দাদা