স্বাস্থ্যোজ্জ্বল ত্বকের দিশারী দারচিনি!

1095

ত্বককে উজ্জ্বল এবং ল্যাবণ্যে ভরপুর করে তুলতে দারচিনির অবদান অনেক। দারচিনিতে রয়েছে শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা সব ধরনের দাগ দূর করে ত্বক সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। আর এর অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান জীবাণু সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচাতে সাহায্য করে। ব্রণ-র সমাধান করে এবং মেচেদার দাগও পুরোপুরি দূর করে।

জেনে নিন ত্বকের যত্নে কীভাবে ব্যবহার করবেন দারচিনি…

* প্রথমে দারচিনি গুঁড়ো করে নিয়ে তাতে একে একে জায়ফল গুঁড়ো এবং মধু খুব ভাল করে মিশিয়ে নিতে হবে, তবে ত্বক খুব স্পর্শকাতর হলে জায়ফল গুঁড়ো না ব্যবহার করাই ভাল। তারপরে এতে ৪-৫ ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে নিতে হবে। চাইলে সামান্য দুধও মিশিয়ে নেওয়া যেতে পারে। এরপরে মুখ ক্লিনজার দিয়ে ভাল করে পরিষ্কার করে নিয়ে ওই প্যাক লাগিয়ে ২০-৩০ মিনিট অপেক্ষা করতে হবে। প্যাকটি শুকিয়ে এলে জল দিয়ে ভাল করে মুখ ধুয়ে নিতে হবে।

* ব্রণ দূর করতে দারচিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। ১ টেবিল চামচ দারচিনি গুঁড়োর সঙ্গে সমপরিমাণ মধু মেশাতে হবে। মিশ্রণটি পাতলা করে ত্বকে লাগিয়ে রেখে ২০ মিনিট পর ঠাণ্ডা জল দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। সপ্তাহে দুইদিন ফেসপ্যাকটি ব্যবহার করলে ব্রণর হাত থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।

* পায়ের যত্নেও খুব ভাল কাজ দেয় দারচিনি। ১ কাপ ঈষত উষ্ণ গরম জলে ৫ ফোঁটা লেবুর রস ও ৫ ফোঁটা ল্যাভেন্ডার অয়েল মেশাতে হবে। সেইসঙ্গে ১-চা চামচ মধু ও ১-চা চামচ দারচিনি গুঁড়া মিশিয়ে পা ভিজিয়ে রাখতে হবে ১৫ মিনিট। পা ধুয়ে ফেলার আগে শক্ত ব্রাশ দিয়ে স্ক্রাব করে নিতে হবে।

* ত্বকের থেকেও অনেক কোমল হয় ঠোঁট। ঠোঁটের যত্ন নিতেও দারচিনি বিশেষ ভুমিকা পালন করে। ১ চা চামচ পেট্রোলিয়াম জেলির সঙ্গে ১ চিমটি দারচিনি গুঁড়ো মেশাতে হবে। প্রায় ১৫ মিনিট মিশ্রণটি ঠোঁটে লাগিয়ে রাখতে হবে। তবে এতে কিন্তু ঠোঁটে হাল্কা জ্বালা অনুভব হতে পারে। অতিরিক্ত জ্বালা অনুভব হলে কিন্তু সঙ্গে সঙ্গে জল দিয়ে তা ধুয়ে ফেলবেন। তবে এটি ব্যবহার করলে আপনার ঠোঁট হবে নরম, সঙ্গে যোগ হবে এক গোলাপী আভাও।

* দারচিনি ত্বককে দুষণের হাত থেকেও রক্ষা করতে সাহায্য করে। তাই রোজকার খাদ্যতালিকায় কোনও একটি পদে দারচিনি রাখা উচিত।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.