মোটেই না| বুলবুল বলছেন, তিনি দিব্যি আছেন! স্বামী হিমালয় দাসানিকে নিয়ে| এক ছেলে, এক মেয়ে নিয়ে! চিত্রনাট্য পছন্দ হলে বড়-ছোট পর্দায় কাজ করছেন| আর ৪৯ বছরের শরীরে জাদুটোনা করে ১৯ বছরের যৌবনকে বন্দি করে  রেখেছেন!

Banglalive

ভাগ্যশ্রী…নামটা উচ্চারণ করলেই নয়ের দশকের রোমান্টিক নস্টালজিয়া ছায়া ফেলে মনে| যত্নে স্মৃতির ভেলভেটে মোড়া একটা ছবি এক ঝলক বসন্তের বাতাস হয়ে এলোমেলো করে দেয় সব ভাবনা| ‘ম্যায়নে প্যায়ার কিয়া’| ভাগ্যশ্রী সেই ছবির নায়িকা| টুলটুলে মুখ| ভাসা চোখ| পর্দা জুড়ে হাসলেই মন গলে মাখন! দুটো সংলাপ মুখে মুখে ফিরত তখন…‘এক লড়কা অউর লেড়কি কভি দোস্ত নেহি বন সকতি’ কিংবা ‘দোস্তি কী হ্যায় নিভানি তো পড়েগি’…|

ছবিটা পরিচিতি দিয়েছিল নতুন নায়ক সলমন খানকে| ছবিটা ঘরে ঘরে সব্বার মনে পৌছে দিয়েছিল প্রেমের রেপ্লিকা ভাগ্যশ্রীকে| পুজোয় সেবার বাজার ছেয়ে ‘ভাগ্যশ্রী’ জামা! আরব সাগরের তির ছুঁয়ে ফ্যাশন ঢেউ তুলেছিল গঙ্গা পাড়ের অলিতে-গলিতে| সেই সাজে মন খুলে ‘ভাগ্যশ্রী’ সেজেছিল রিঙ্কি-পিঙ্কির দল! কোনমতে ‘নায়িকা’ হতে পারলেই বাস্তবে যদি ‘ম্যায়নে প্যায়ার কিয়া’ ঘটেই যায়!!

আর ভাগ্যশ্রী কী ভীষণ সৃষ্টিছাড়া! সারা দেশ যাঁর সামনে হাঁটু মুড়ে পদানত, তিনি একহাতে মুঠো মুঠো ছবির অফার ফেরাচ্ছেন| অন্য হাত শক্ত করে ধরে হিমালয়কে!! দুনিয়া চুলোর দোরে যাক, হিমালয় থাক তাঁর হয়ে, ‘প্যায়ার কিয়া হ্যায়, নিভানি তো পড়েগি হি’!!

নাম ছেড়ে, যশ ছেড়ে, অর্থ ছেড়ে ২ বছরের মধ্যে সাতপাক ঘুরে ঘোষণা করলেন, ছবি করলে বরের সঙ্গে করবেন| পরপুরুষ ছুঁতে পারবে না তাঁকে| এটা ভাগ্যশ্রীর মনের কথা না হিমালয়ের নির্দেশ, জানা নেই কারো| তবে ভাগ্যশ্রীর ক্রেজ পরিচালকদের সেই আবদার মানতে বাধ্য করেছিল| বরের নায়িকা হয়ে তিনটি ছবি করেছিলেন, ‘ত্যাগী’, ‘পায়েল’, ‘কয়েদ মে হ্যায় বুলবুল|’ শেষ ছবির নামটা অনেকের মনেই ধন্দ জাগিয়েছিল| বাস্তব কি রিল-এ ধরা পড়েছিল?

সত্যি যেটাই হোক, তিনটি ছবি বক্স অফিসে ধরাশায়ী| তিন ফুঁয়ে ভ্যানিশ ভাগ্যশ্রী| তাতে তাঁর খুব একটা আফশোষ নেই দেবীর| তিনি মন দিয়ে সংসার করেছেন| দুই ছেলেমেয়ের মা হয়েছেন| আদর্শ মা হয়ে তাঁদের লালন করেছেন| বিশ্ব ভ্রমণ সেরেছেন| আর ২০১৪-য় আবার তারার দুনিয়ায় কাম ব্যাক করেছেন…

যদিও ভাগ্যশ্রী তাঁর ফেরাকে কাম ব্যাক বলতে নারাজ| তাঁর যুক্তি, ‘আমায় তো ভক্তরা ভোলেননি! আমি তো তাঁদের কাছে এখনো সুমন!’

ইতিমধ্যে ভাগ্যশ্রীকে দেখা গেছে ‘কাগজ কি কস্তি’, ‘সিআইডি’, ‘ঝলক দিখ লা যা ৩’, ‘লট আও তৃষা’য়| এত বছর পর তিনি কেন ফিরেছেন জানেন? ১৯ বছরের মেয়ে আর ২২ বছরের ছেলে তাঁকে দিয়ে প্রমিস করিয়ে নিয়েছে, ‘আমাদের জন্য জীবনের অনেকটা সময় ফুরিয়ে ফেলেছ| এবার শুধু নিজের জন্য  নিজের মত করে বাঁচো|’

ছেলেমেয়ের সেই প্রমিস অক্ষরে অক্ষরে মানছেন ‘সুমন’… ‘ওয়াদা কিয়া হ্যায়, নিভানি তো পড়েগি হি’!!   

 

আরও পড়ুন:  ‘ববি’ ডিম্পল শুটের সময় নিজের হাত লুকিয়ে ছিলেন! কেন?

NO COMMENTS