প্রিয়াঙ্কার মেট গালা সাজে মমতার মুখ‚ শেয়ার করে গ্রেফতার বিজেপি যুবনেত্রী

494

মেট গালা ২০১৯-এ প্রিয়ঙ্কা চোপড়ার ‘লুক’ নিয়ে বিস্তর আলোচনা চলেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তৈরি হয়েছে মিম-ও। তেমনই এক মিম শেয়ার করায় গ্রেফতার হয়েছেন প্রিয়ঙ্কা শর্মা নামের এক তরুণী। তিনি বিজেপির এক যুবনেত্রী। অভিযোগ, ওই মিমে সম্পাদনা করে প্রিয়ঙ্কা চোপড়ার মুখে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখ বসানো হয়েছিল। প্রিয়ঙ্কার মা দাবি করেছেন, তাঁর মেয়েকে গ্রেফতার করার পিছনে আসল কারণ প্রিয়ঙ্কা একজন বিজেপি কর্মী। এর পিছনে তৃণমূ‌লের হাত রয়েছে বলে অভিযোগ তোলেন তিনি।

সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘‘আমার মেয়েকে গ্রেফতার করা হয়েছে কারণ সে বিজেপির হয়ে কাজ করে। এটা একটা বড় ষড়যন্ত্রেরই অংশ। এই প্রথম ও আমাদের থেকে বহু দূরে রয়েছে। সে যদি তৃণমূলকর্মী হত, তাহলে তার সঙ্গে এমন খারাপ কিছু হত না। এ সবই তৃণমূ‌লের কীর্তি। ও জেলে থাকায় আমাদের উদ্বেগ বাড়ছে।’’

বিজেপি কর্মী প্রিয়ঙ্কা শর্মার বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি তাঁর ফেসবুকের টাইমলাইনে একটি ছবি শেয়ার করেন, যেখানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখটি ফোটোশপ করে অভিনেত্রী প্রিয়ঙ্কা চোপড়ার মুখে বসিয়ে দেওয়া হয়। নিউ ইয়র্কে অনুষ্ঠিত মেট গালায় অংশ নিয়েছিলেন প্রিয়ঙ্কা। সেই অনুষ্ঠানে প্রিয়ঙ্কার মুখটির জায়গায় বসানো ছিল মমতার মুখ।

ছবি শেয়ার করার পরে পুলিশ এসে প্রিয়ঙ্কাকে তাঁর বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। দু’সপ্তাহের জন্য তাঁকে জেল এজলাসে পাঠানো হয়েছে।

প্রিয়ঙ্কার ভাই অভিযোগ জানিয়েছেন, তাঁদের সঙ্গে প্রিয়ঙ্কাকে দেখা করতে দেওয়া হচ্ছিল না। শেষে অনেক চাপ দেওয়ার পরে রাজি হয় পুলিশ। প্রিয়ঙ্কার ভাই জানাচ্ছেন, তাঁরা প্রিয়ঙ্কার ব্যাপারে উদ্বিগ্ন। তাঁদের দাবি, গ্রেফতার করার চব্বিশ ঘণ্টার পরেও তাঁর এন্ট্রি রেকর্ড করা হয়নি।

বিজেপি যুব মোর্চার এই নেত্রীর বিরুদ্ধে দাশনগর পুলিশ স্টেশনে অভিযোগ দায়ের করা হয়। হাওড়া পুলিশের সাইবার শাখার তরফ থেকে জানানো হয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে ‘কমিউনিটি গাইডলাইন’ ভঙ্গের অভিযোগ তোলা হয়েছে।

অভিযুক্ত প্রিয়ঙ্কার পাশে দাঁড়াচ্ছে বিজেপি। প্রিয়ঙ্কার ভাই জানিয়েছেন, তিনি বোনকে বাঁচাতে প্রয়োজনে সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত যেতে চান। বিজেপি নেত্রী পুনম মহাজন তাঁকে দিল্লিতে আসতে বলেছেন বলেও জানান প্রিয়ঙ্কার ভাই।

এদিকে কলকাতায় বিজেপির যুব শাখার মুখ্য ওমপ্রকাশ সিংহও প্রিয়ঙ্কার সমর্থনে মুখ খুলেছেন। তিনি জানিয়েছেন, ‘‘সোশ্যাল মিডিয়া একটা এমন জায়গা যেখানে সবাই নিজেকে প্রকাশ করার স্বাধীনতা রয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেভাবে সেই স্বাধীনতাকে দমন করছেন তা অত্যন্ত লজ্জাজনক। প্রিয়ঙ্কা একটা সম্পাদিত ছবি শেয়ার করেছে, যেটা ততক্ষণে ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল। ছবিটায় কুৎসিত বা লজ্জাজনক কিছু নেই।’’

প্রিয়ঙ্কার ঘটনার সূত্রে আলোচনায় উঠে আসছে অম্বিকেশ মহাপাত্রর ঘটনাটিও। সেবারেও একটি মিম শেয়ার করার জন্য অম্বিকেশবাবুকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। প্রিয়ঙ্কার ঘটনায় কেবল বিজেপিই নয়, সাধারণ নেটিজেনদের মধ্যেও ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, মেট গালায় প্রিয়ঙ্কা সেজেছিলেন ‘অ্যালিস ইন ওয়ান্ডারল্যান্ড’-এর রেড কুইন। ওই শো-তে সকলকেই ‘থিম’ অনুযায়ী সাজতে হত। সেই ছবি প্রকাশ পেতেই প্রিয়ঙ্কার মজাদার লুক নিয়ে তৈরি হতে তাকে একাধিক মিম।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.