এম্মা! ব্যাপারটা জানেন না? সত্যি! তাহলে আপনাদের একটি কথোকথন শোনাই| কথোপকথন বললে ভুল বলা হবে| কারণ, কথা শুধুই একতরফা| অপর পক্ষ তখন বিস্ময়ের আঘাতে বোবা| তার আগে সামান্য গৌরচন্দ্রিকা| এক সুন্দরী, জনপ্রিয় নায়িকা পরিচালকের কাছে নিজের চরিত্র বুঝতে গেছেন| ছবির চরিত্র বোঝাতে গিয়ে নায়িকার রূপে মজে নিজেকে সামলাতে না পেরে পরিচালক নিভৃতে সেদিন নিজের ‘চরিত্র’ বেআব্রু করে ফেলেছিলেন| তাঁর কথার ধাঁচ এই রকম…

Banglalive

–আরও নাম চাও? যশ? কত চাও! আমার কাছে তোমার সব চাওয়ার উপকরণ মজুত| ফ্যালো কড়ি মাখো তেল|

–কী বললে? ভুল বলছি? ওহো, তেল নয়! তুমি তো আলো জ্বালাতে চাও| তোমার প্রতিভার আগুনে! ঝলসে দিতে চাও ঝিকমিকে রুপোলি পর্দা| তোমার হাস্যে-লাস্যে-কটাক্ষে-শরীরের মোচড়ে|

–কিন্তু তার জন্য যে তোমায় জ্বলতে হবে! শুধুই ‘নিবে?’ ‘দিবে’ না? এমনি এমনি কেন করব তোমার জন্য?

–আজ সন্ধ্যেয় কী করছ? চলে এসো আমার কাছে| আগে তোমায় ভালো করে দেখি| পরখ করি| ছুই| তবে না বুঝব জ্বালানোর মত তোমার মধ্যে কত ‘রসদ’ জমা আছে!

–আমার চারপাশে তুমি ভোগের আরতি সাজাও| আমি তোমার পায়ে উপভোগের সবকিছু অঞ্জলি দেব| রাজি?    

গুলাবি আঁখে…জো তেরি দেখি

এই ঘটনার একপক্ষ পরিচালক রাজকুমার সন্তোষী| অপরপক্ষে, মমতা কুলকার্নি| পরিচালকের ‘চায়না গেট’ ছবির নায়িকা মমতা| তাঁর রূপে, আবেদনে বলিউড ততদিনে সত্যি-ই জ্বলছে| স্বাভাবিকভাবেই নায়িকা আরও উন্নতির প্রত্যাশী| নাম-যশ-খ্যাতি কে না চায়? কিন্তু তার বদলে প্রবীণ, নামি পরিচালকও এই পথে হাঁটবেন? বোধহয় স্বপ্নেও ভাবেননি মমতা| কিন্তু এটাই বাস্তব| নায়িকা হতে গেলে, নাম পেতে হলে এভাবেই যুগ যুগ ধরে নিজেকে নিবেদন করতে হয়েছে ইচ্ছুক-অনিচ্ছুক বহু সম্ভাবনাকে| কারণ, নায়িকা, নতুন মেয়ে দেখলে এভাবেই নাকি সুড়সুড়ি লাগে পরিচালক, প্রযোজকদের অঙ্গে! তাঁরা শীত ঘুম ভেঙে জেগে ওঠেন| একটু ছোঁয়া, হালকা ইশারা| তারপরেই…| মেয়ে বুঝলে ভালো| না বুঝলে ‘ভোগে গেল’! এভাবেই ভাগ করে ভোগ করা সিনে দুনিয়ার অনেক প্রাচীন ঐতিহ্য| আধুনিক ভাষায় ইহাই কাস্টিং কাউচ!

আরও পড়ুন:  কেতজেল পাখি (দ্রোহজ ২) পর্ব ৩

মেঘ কালো আঁধার কালো…

তার চেয়েও ছবির দুনিয়া কালো| আর সেই কালোর ওপর বাড়তি পোচ অপরাধ, অন্ধকার দুনিয়ার ছায়া| টালিগঞ্জে এই প্রভাব আছে কিনা জানা নেই| তবে, বলিউডে বেশির ভাগ ছবির পিছনে ডনদের কালো টাকা সাদা হয়| তাই প্রযোজক-পরিচালকের পরখ করার পর, তাঁদেরও পুজো দিতে হয়| সেই পুজোয় দেবতা সন্তুষ্ট হলে প্রচারের আলো গায়ে মেখে নায়িকার তখন বৃহস্পতি তুঙ্গে| প্রযোজক-পরিচালক তখন তুশ্চু! কোনও কারণে ছবি বানানোর কারিগর রুষ্ট হয়ে নায়িকাকে বাদ দিলে হিসহিসে গলায় একটা ফোন আসে| পরের দিন থেকে নায়িকা আবার স্বমহিমায়| পরিচালককে ‘সন্তুষ্ট’ করার পরেও এভাবেই ‘চায়না গেট’ থেকে বাদ পড়েছিলেন মমতা| দিন দুই পরে সোনামুখ করে পরিচলক আবার ফিরিয়ে নেন তাঁকে! এত বড় ঘটনার সৌজন্যে দাউদ ইব্রাহিম| বদলে মমতা কী করতেন? মাসে একটা করে ‘শো’ করতে যেতেন দুবাইয়ে| শুদ্ধ ইংরাজিতে এটাই নাকি ‘এসকর্ট সার্ভিস’! যাহা প্রায় প্রত্যেক নায়িকাকেই নাকি ‘দিতে হয়’…

সম্প্রতি, এই বিষয়ের ওপর বোমা ফাটিয়েছেন দিল্লির ২৩ বছরের এক উঠতি মডেল ‘জেবা’| মডেলিং ছাড়াও ছোটপর্দায় ভালোই দেখা যায় তাঁকে| ‘জেবা’ তাঁর ছদ্মনাম| সেই মডেল খুলে বলেছেন, ‘মডেলিং করুন বা অভিনয়| ব্যাপারটা বড্ড খাটনির| মাসের পর মাস, দিনের পর দিন, ঘন্টার পর ঘন্টা রং মেখে সং সেজে রঙ্গ দেখাও| তার চেয়ে মাত্র এক ঘন্টা খরচ করলে যদি প্র-চু-র টাকা পাই, সমস্যা কোথায়? আধঘন্টা গল্প করব| বাকি আধঘন্টা বিছানায়|’ তাই মডেলিং-এর থেকেও জেবা নামি এসকর্ট বা হাই প্রোফাইল গণিকা| জেবার একবার বিছানায় শোয়ার দাম কত জানেন? মাথাপিছু ২ লক্ষ টাকা!

রূপের হাটে বিকিকিনি…

যাঁরা এভাবেই আড়ালে রূপের হাটে বেচাকেনা সারেন এবার তাঁদের ঝলক—

শ্বেতা প্রাসাদ বসু: চাইল্ড আর্টিস্ট হিসেবে প্রথম আত্মপ্রকাশ| কেরিয়ার বাঁচাতে বাধ্য হয়ে এসকর্ট সার্ভিসে যোগ দিয়েছিলেন| ২০১৪-য় তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয় হায়দরাবাদ থেকে| যদিও তাঁর দাবি, সমস্তই রটনা! ঘটনা কী জানার আগেই হায়দরাবাদ সেশন কোর্ট মামলা তুলে নেয়|

আরও পড়ুন:  সাগর আই লাভ ইউ‌ (পর্ব ২৬)

শার্লিন চোপড়া: ‘কামসূত্র’-র এই তপ্ত নায়িকা এক সাক্ষাতকারে স্বীকার করেছেন, কেরিয়ার এবং টাকার জন্য তিনি একটি নামি এসকর্ট সংস্থার সঙ্গে যুক্ত|

মমতা কুলকার্নি: দাউদ ইব্রাহিম তাঁকে সিনেমায় জায়গা করে দিয়েছেন| পরে মমতা জড়িয়ে পরেন ড্রাগ কারবারি ভিকি গোস্বামীর সঙ্গে| অভিনয় শিকেয় তুলে, ভিকিকে বিয়ে করে কারবারে যোগ দেন| আজ তিনি গরাদের পিছনে|

মোনিকা বেদী: সুনীল শেট্টি, গোবিন্দা, সলমন খানের বিপরীতে অভিনয় করেছেন কার জোরে? ডন আবু সালেম| প্রচলিত, তিনি নাকি আবুর দ্বিতীয় বউ! গ্রেপ্তার হওয়ার পর আবুকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে, রাজসাক্ষী দিয়ে আপাতত নায়িকা গরাদের বাইরে|

অনিতা আয়ুব: দাউদের খুব কাছের জন| অল্পসময় অভিনয় জগতে ছিলেন| অনিতার সব বোলবোলাও দাউদের জোরে| সেই জোর এতটাই ছিল যে প্রযোজক জাভেদ সিদ্দিকি এই পাকিস্তানি নায়িকাকে হিন্দি ছবিতে নিতে না চাওয়ায় প্রাণটাই খুইয়েছেন|

মন্দাকিনী: প্রথমে দাউদের ঘরনি| সেই জোরেই তিনি বলিউডে কিছুকাল করে-কম্মে খেয়েছেন| যদিও রাজ কপূর তাঁর প্রথম আবিষ্কারক| ‘রাম তেরি গঙ্গা ময়লি’-তে ঝরনায় সাদা বসনে তাঁর ধারাস্নান ভিজিয়েছিল দাউদকেও| এখন তিনি এসমস্ত ছেড়ে এক তিব্বতি সন্ন্যাসীকে বিয়ে করে আয়ুর্বেদের দোকান চালান|

দিব্যা ভারতী: বলিউডের ‘সেনসেশন’ এই নায়িকার নিজের প্রতিভার জোর থাকার পাশাপাশি নাকি অন্ধকার জগতের সঙ্গে জোরালো ঘনিষ্ঠতা ছিল| অল্পবয়সে মারাত্মক জনপ্রিয়তা এবং গোপন ঘটনা জেনে ফেলা কাল হয়েছিল তাঁর| স্বামী সাজিদ নাদিয়াদয়ালা নাকি নিজে জোর করে ডন-এর কাছে রাত কাটাতে পাঠাতেন দিব্যাকে| এই গোপন আতাতেই মাত্র ১৯-এ প্রাণ হারান দিব্যা|

মিষ্টি মুখার্জি: ‘লাইফ কি তো লাগ গ্যায়ী’র নায়িকা মিষ্টি নিজে লোখান্দওয়ালার বাড়িতে এসকর্ট সার্ভিস চালাতেন| সেই অভিযোগ আর পর্নোগ্রাফি সিডি বিক্রির দায়ে তাঁর বাবা-ভাইকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ|

নাচ আছে গান আছে, রূপের তুফান আছে…

যা খুশি কিনতে চাও কেনো না! শুধু আমার এই চোখের জল তুমি চেও না…! একে যায় না কেনা, একে কেউ পাবে না/ এ শুধু আমারই থাক—‘ফরিয়াদ’ ছবিতে নায়িকা সুচিত্রা সেনের ঠোঁটের এই গান রুপোলি পর্দার এই সব ‘সলমা জরি’র জীবনগাথা| আলোর ঝলমলানির পিছনে মুখ লুকোনো চাপ চাপ অন্ধকার এঁদের সারা জীবন কুরেকুরে খায়| ঝাঁঝরা করে দেয়| কোনও মতে যদিও বা ছিটকে সরে আসেন কেউ, দাগ মোছে না গঙ্গাজলেও| রূপো নিয়ে রূপ বিক্রি করে নিঃস্ব রুপোলি মালকিনদের তাই শেষ স্বম্বল চোখের জল| সত্যি-ই একে যায় না কেনা| হাসির আড়ালে এ শুধু তাঁরই সম্পত্তি|                   

আরও পড়ুন:  প্রেম, ভূত ও চুমু

NO COMMENTS

এমন আরো নিবন্ধ