হোটেলের ওয়েটার থেকে চৌকিদার‚ বি-টাউনে পা রাখার আগে ভিন্ন জীবিকার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন এই তারকারা

বলিউডে এন্ট্রি মানেই একজন শিল্পীর জীবন সার্থক। আর কোনদিনও পিছনে তাকাতে হয় না তাঁদের। তবে জানেন কি এর মধ্যে কিছু সেলেব এমনও রয়েছেন যাঁদের বলিউড সফর শুরু হওয়ার আগে সামান্য বেতনের চাকরি করতেন। যাঁদের অভিনয়ের জগতে ঢুকে পড়া কিছুটা কাকতালীয়ই বটে।

১। অমিতাভ বচ্চন

অমিতাভ বচ্চনের প্রথম চাকরি ১৯৬২ সালে কলকাতায় একটা কয়লা খনিতে | সেখানে উনি ৭-৮ বছর কাজ করেন | এরপর উনি ওয়ালেস এবং বার্ড অ্যান্ড কোম্পানি নামে একটি শিপিং ফার্মে একজন মালবাহী ব্রোকার হিসেবে কাজ করেন। এমনকি তাঁর ভারিক্কি গলার জোরে রেডিও ঘোষক হওয়ার ও চেষ্টা করেছিলেন, তবে অল ইন্ডিয়া রেডিও তাঁকে প্রত্যাখ্যান করে সেইসময়।

২। দিলীপ কুমার

দিলীপ কুমারের বাবা ছিলেন একজন ফল ব্যবসায়ী। ১৯৪০-এর প্রথম দিকে দিলীপ কুমার (তখন ইউসুফ খান) পুনেতে একটি ক্যান্টিন ব্যবসা শুরু করেন এবং শুকনো ফল সরবরাহ করতে শুরু করেন।

৩। দেব আনন্দ

মুম্বইয়ের চার্চ গেট এলাকায় অবস্থিত সেন্সর অফিসে একজন সামান্য ক্লার্ক হিসেবে কাজ করতেন বলিউডের বর্ষীয়ান অভিনেতা দেব আনন্দ। এবং সেখানে তাঁর মাসিক বেতন ছিল মাত্র ১৬৫ টাকা।

৪। অক্ষয় কুমার

বলিউডের খিলাড়ী খুব স্ট্রাগলের পর আজ এই যায়গায় পৌঁছেছেন। একসময় ব্যাংককে মার্শাল আর্টের প্রশিক্ষণ নিতে গিয়েছিলেন তিনি। তখন সেখানে একটি হোটেলে ওয়েটার হিসেবে কাজ করতেন। পরে সেখান থেকে ব্ল্যাক বেল্ট জিতে মুম্বাই-এ মার্শাল আর্টের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র খুলেছিলেন তিনি। আর সেই শিক্ষার্থীদের সাহায্যেই প্রথম মডেলিং-এ পা রাখতে পেরেছিলেন অক্ষয় কুমার।

৫। রণবীর সিং

বি-টাউনে প্রবেশ করার জন্য অনেক স্ত্রাগল করেছেন বলেই দাবি করেন এই অভিনেতা।  যদিও তাঁর বাবার পয়সার জোরেই বলিউডের টিকিট পেয়েছেন বলেও শোনা যায়  কিন্তু জানেন কি,একসময় বেশ কয়েকটি বিজ্ঞাপন সংস্থায় কপি রাইটার হিসেবে কাজ করতেন অভিনেতা।

৬। নাওয়াজুদ্দিন সিদ্দিকি

বলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা নাওয়াজুদ্দিন সিদ্দিকি।  রূপ রঙ কোনটাই যে প্রাথমিক নয় অভিনয়ের আগে সেটি বুঝিয়ে দিয়েছেন এই অভিনেতা। তবে জানেন কি,এই সম্মান পাওয়ার পিছনে রয়েছে তাঁর অক্লান্ত পরিশ্রম। উত্তপ্রদেশের এক কৃষকের ঘরে জন্ম তাঁর। বড় হয়েছেন ৮ জন ভাইবোনের সঙ্গে। তাই অভাবের খাতিরে প্রথমে একজ কেমিস্ট হিসেবে কাজ করতেন নাওয়াজ। কিন্তু মনে প্রাণে অভিনয়কে ভালবাসায় দিল্লি চলে আসেন তিনি। তারপর থিয়েটার করার পাশাপাশি দেড় বছর ধরে পাহারাদার হিসেবে কাজ করেছেন।

৭। বোমন ইরানি

সেইভাবে কোনদিনও অভিনয় আসার উদ্দেশ্য ছিল না এই অভিনেতার। প্রথমে মুম্বই-এর তাজ হটেলে রুম সার্ভিস অ্যাটেন্ডেন্ট হিসেবে কাজ করতেন উনি। পাশাপাশি নিজেদের বেকারির দোকানেও মাকে সাহায্য করতেন । পরে একজন ফটোগ্রাফার হিসেবে বলিউডে এন্ট্রি হয় অভিনেতার। তারপর থিয়েটার এবং আপাতত বি-টাউনের অন্যতম শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত বোমন।

৮। আরশদ ওয়ার্সি

বলিউডে সার্কিট হিসেবেই পরিচিত আরশদ। দারুণ অভিনেতার পাশাপাশি অসামান্য নৃত্যশিল্পীও তিনি। কিন্তু জানেন কি,অভিনয়ে প্রবেশ করার আগে একটি বিউটি প্রোডাক্ট-এর কোম্পানিতে সেলসম্যান হিসেবে কাজ করতেন আরশদ। পরে আকবর শামি-এর ডান্স একাডেমিতে ভর্তি হন তিনি। আর সেই থেকেই বলিউডে ডান্স কোরিওগ্রাফার হিসেবে কাজ করা শুরু করেন। পরবর্তিকালে মহেশ ভট্টের ছবিতে সহ পরিচালক হিসেবেও কাজ করেন এই অভিনেতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.