বাজারে চলতি অনলাইন ফুড ডেলিভারি অ্যাপের জন্য আজ অনেক মানুষই নিশ্চিন্ত। একটা ক্লিকে দিনের যেকোনও সময়ে হাতের কাছে পৌঁছে যাবে খাবার। তবে এর আগে এই ফুড ডেলিভারি অ্যাপগুলি অনেক দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়েছে। তবে এবার যে ঘটনা ঘটেছে তার জেরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে সাধারণ মানুষের মনে।

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, চেন্নাইয়ের সিলাউর অঞ্চলের বাসিন্দা বালামুরুগান গত রবিবার ‘চপ অ্যান্ড স্টিকস’ নামের এক রেস্তোরাঁ থেকে নুডলস অর্ডার দেন সুইগি মারফত। খাবার বাড়িতে আসতেই তিনি খুলে দেখেন নুডলসের ভেতরেই রয়েছে একটি রক্তমাখা ব্যান্ডেজ। শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি। খাবারের মধ্যে রক্তমাখা ব্যান্ডেজের টুকরো দেখে খুবই অসুস্থ বোধ করেন ওই ব্যক্তি এবং সেইসঙ্গে তার বমি শুরু হয়ে যায়! এরপরে তিনি সুইগিতে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তাতে কোনও লাভ হয়নি। কারণ, একবার খাবার ডেলিভারি হয়ে গেলে সেই খাবার সংক্রান্ত বিষয়ে ফোন করে যোগাযোগ করার উপায় থাকে না।

বালামুরুগানের কথায়, তিনি বারবার সুইগির সঙ্গে যোগাযোগ করেও ব্যর্থ হন। পরে ওই রেস্তোরাঁয় অভিযোগ জানাতে গেলে, ওই রেস্তোরাঁর পক্ষ থেকে জানানো হয় যে, তারা আবার ওই একই খাবার পুনরায় পাঠিয়ে দেবে। কিন্তু এই পথে যেতে নারাজ বালামুরুগান। তাঁর কথায়, জেনে শুনে আবার ওই একই রেস্তোরাঁ থেকে খাবার খেতে তাঁর রুচি হয়নি। এরপরে তিনি সুইগির ফেসবুক পেজে যোগাযোগ করেন। সুইগির তরফ থেকে তাঁকে এই ঘটনার তদন্তের আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। তবে বালামুরুগানের অভিযোগ সবটুকু জানার পরেও ‘চপ অ্যান্ড স্টিকস’ নামে ওই রেস্তোরাঁ থেকে দেদার অর্ডার নিচ্ছে সুইগি ! অস্বাস্থ্যকর খাবার পরিবেশিত হচ্ছে জেনেও কেন রেস্তোরাঁ বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হল না- সেই প্রশ্নের উত্তর এখনও অধরা।

আরও পড়ুন:  ৩০০ বছরে একবার তুষার প্রান্তরে নির্বিচারে চলে উট বলিদান

NO COMMENTS