দেশের মধ্যে প্রথম ট্র্যাফিক পুলিশ বুথ লাগোয়া বায়ো-টয়লেট ব্যবস্থা চালু হচ্ছে কোয়েম্বাটোরে

113

ট্রাফিক পুলিশদের জন্য স্বস্তির বার্তা।এবার সিগন্যালে পুলিশ কিয়স্কের পাশেই তৈরি হবে বায়োটয়লেট বুথ।

রোদ, জল, বৃষ্টি, নিত্যদিন তারই মাঝে ডিউটি করে যেতে হয় , রাস্তার ধুলো ধোঁয়ার মাঝে দাঁড়িয়ে। একটু অন্যমনস্ক হলেই বিশৃঙ্খল হয়ে পড়বে ট্রাফিক ব্যবস্থা। শুরু হয়ে যাবে যানজট । পাশাপাশি কড়া নজরেও রাখতে হবে সবকিছু । ওনারা যে ট্রাফিক পুলিশ। এটাই ওনাদের নিত্য কাজ । ওনারাও অসুস্থ হন , ওনাদেরও ডিউটির মাঝে শৌচালয়ে যাওয়ার প্রয়োজন হয় , সে বিষয়ে কোনোদিনই ভাবেনি কোনো সরকার । বছরের পর বছর ধরে এভাবেই দিন কাটে ওনাদের । তবে এবার ট্রাফিক সিগন্যালে কিয়স্কের পাশেই টয়লেট হওয়ায় স্বস্তি মিলতে চলেছে ওনাদের।

কোয়েম্বাটোরে প্রথম চালু হতে চলেছে এই ধরণের বায়ো টয়লেট । কোয়েম্বাটোর অবিনাশি রোড মেডিক্যাল কলেজ ট্রাফিক সিগন্যালের কিয়স্কের সঙ্গে প্রথম প্রতিস্থাপিত করা হয়েছে এই টয়লেট বুথ । টয়লেট ছাড়াও এই বুথে মিলবে এগজস্ট পাখা , এলইডি আলো , আপতকালীন আলো ও মোবাইল চার্জ দেওয়ার সুবিধা ।

কোয়েম্বাটোরের দুই বেসরকারি সংস্থার পক্ষ থেকে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে । সম্পূর্ণ বায়ো টয়লেট বুথ প্রতিস্থাপন করতে খরচ হয়েছে ৪ লক্ষ টাকা । ট্রাফিক পুলিশের ডেপুটি কমিশনার সুজিত কুমার জানান , সাধারণত ট্রাফিক পুলিশদের বুথের পাশে কোনোদিনই কোনো টয়লেটের ব্যবস্থা থাকে না । ব্যস্ত সময়ে বা ভিআইপি ডিউটির সময় শৌচকর্মের প্রয়োজন হলেও যাওয়ার ফুরসত মেলে না । বেশি সমস্যায় পড়েন মহিলা ট্রাফিকগার্ডেরা । এবার হয়তো সেই সমস্যা থেকেই মুক্তি পাবে ট্রাফিক পুলিশকুল ।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.