এসি ব্যবহার করার ক্ষতিকর দিকগুলোর বিষয়ে জানেন কি?

তাপমাত্রার পারদ যখন চড়ে তখন অনেকের জন্যেই এয়ার কন্ডিশনর লাইফ সেভার হয়ে ওঠে | কিন্তু এসি বা এয়ার কন্ডিশনরের বেশ কয়েকটা ক্ষতিকারক দিকও আছে‚ সেগুলো আপনার জানা তো?

) ডিহাইড্রেশন : দেখা গেছে যে ব্যক্তিরা এসি রুমে থাকে তারা অনেক বেশি ডিহাইড্রেটেড থাকে | আসলে এসি ঘরের মধ্যে থেকে সব আর্দ্রতা শুষে নেয় | তাই দীর্ঘ সময় ধরে যদি এসি রুমে থাকার অভ্যাস থাকে তাহলে একটু বেশি জল পান করুন |

) মাথা ব্যথা : এসি ঘরে থাকার সব থেকে বড় সাইড এফেক্ট বোধহয় মাথা ব্যথা | দেখা গেছে বহুক্ষণ এসি ঘরে থাকার পর মাথা ব্যথা আর মাইগ্রেনের ব্যথা অনেকেটাই বেড়ে যায় | এটা হয় কারণ এসি চললে আবহাওয়ার কোয়ালিটি কমে যায় | এছাড়াও আগেই বলেছি বেশিক্ষণ এসি ঘরে থাকলে শরীর শুকিয়ে যায় ফলে মাথা ব্যথার প্রবণতা অনেকটাই বেড়ে যায় |

) শ্বাস-প্রশ্বাস জনিত সিম্পটম বেড়ে যায় : চোখ‚ নাক‚ গলায় অসুবিধা হতে পারে‚ যেমন বন্ধ নাক‚ ড্রাই থ্রোট বা rhinitis হতে পারে বা চোখ দিয়ে জল পড়া | রিসার্চ করে দেখা গেছে যারা এসি ঘরে থেকেছে তাদের এইসব হওয়ার প্রবণতা অনেকেটাই বেড়ে গেছে তাদের তুলনায় যারা খোলামেলা ঘরে থেকেছে |

) সহজেই ক্লান্ত লাগা : ঘর বা অফিসের এসি এমনভাবে বানানো হয় যাতে শরীর ঠান্ডা হয় | কিন্তু রিসার্চ বলছে যে সব বড়িতে বা অফিসে এসি চলে তারা সহজেই ক্লান্ত হয়ে পড়ে |

) ড্রাই ইচি স্কিন : সাধারণত গরমকালে আমরা এসির ব্যবহার বেশি করি | এই সময় সূর্যের এক্সপোজারও অনেক বেশি থাকে | এর ফলে ত্বক রুক্ষ হয়ে যায় | দেখা দিতে পারে চুলকানির সমস্যাও | এটার একটা নামও আছে  সিক বিল্ডিং সিন্ড্রোম  |

) অ্যাজমা আর অ্যালার্জি বেড়ে যেতে পারে : দীর্ঘ সময় এসি রুমে থাকলে অ্যাজমা আর অ্যালার্জি বেড়ে যেতে পারে | দেখা গেছে যে এসিগুলো নিয়মিত পরিষ্কার করা হয় না সেইরকম ঘরে থাকলে অ্যাজমা আর অ্যালার্জি হওয়ার প্রবণতা অনেকটা বেড়ে যায় |

) ড্রাই আইজ : দীর্ঘসময় এসি ঘরে থাকলে চোখ শুষ্ক হয়ে যায় এর ফলে চোখ কড়কড় করবে বা চুলকোবে | চোখ জ্বালাও করতে পারে | অনেকের ক্ষেত্রে আবার দেখা গেছে তারা অস্পষ্ট দেখছে |

) ইনফেকশাস ডিজিজ হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যায় : যেহেতু দীর্ঘ সময় এসিতে থাকার ফলে নাকের প্যাসেজ ড্রাই হয়ে যায়‚ তার ফলে মিউকাস মেমব্রেনে ইরিটেশন হতে পারে বা মিউকাস শুকিয়ে যেতে পারে | এর ফলে ভাইরাস সহজেই শরীরে প্রবেশ করতে পারে |

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

Please share your feedback

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Illustration by Suvamoy Mitra for Editorial বিয়েবাড়ির ভোজ পংক্তিভোজ সম্পাদকীয়

একা কুম্ভ রক্ষা করে…

আগের কালে বিয়েবাড়ির ভাঁড়ার ঘরের এক জন জবরদস্ত ম্যানেজার থাকতেন। সাধারণত, মেসোমশাই, বয়সে অনেক বড় জামাইবাবু, সেজ কাকু, পাড়াতুতো দাদা