ঋতুকালীন মহিলাদের ‘বন্দি’ রাখার ঘর চিরতরে বন্ধ করলেন জেলাশাসক

528

আজও ভারতের নানা জায়গায় ঋতুস্রাব চলাকালীন মহিলারা ব্রাত্য থেকেছেন। এখনও অনেক জায়গাতেই এমন মানুষও রয়েছেন, যাঁদের একটা ঘরে বন্ধ করে রাখার রেওয়াজ রয়েছে। কিন্তু এবার সরকারি টাকায় পিরিয়ডের সময় মহিলাদের বন্ধ করে রাখার ঘর তৈরি হওয়ার খবর সামনে এল।

উত্তরাখণ্ডের চম্পাওয়াত জেলার গুরচুম গ্রামে গ্রাম-পঞ্চায়েতের টাকায় তৈরি হয়েছে ‘পিরিয়ড হাট’! তবে খবর পেয়েই জেলাশাসক তরিঘরি ঘরটি বন্ধ করে দিয়েছেন।

২০১৭ সালে ১৪তম ফিন্যান্স কমিশন গ্রামে উন্নয়নমূলক কাজ করতে উত্তরাখণ্ডের চম্পাওয়াত জেলার গুরচুম গ্রামে অর্থ বরাদ্দ করে। সেই টাকা থেকে ২ লক্ষ টাকা দিয়ে গ্রামের মধ্যেই তৈরি করা হয় ওই ‘পিরিয়ড হাট’। অর্থাৎ ঋতুকালীন সময়ে মহিলাদের বন্ধ করে রাখার ঘর। দু’বছর আগে এই ঘর তৈরি হলেও সম্প্রতি তা জেলাশসক রণবীর সিং চৌহানের নজরে আসে। গুরচুম গ্রামের বাসিন্দা রমেশচন্দ্র যোশী বিষয়টি জেলাশাসক-কে জানান। তারপরই গ্রামে গিয়ে ঘরটি বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ দেন তিনি। তিনি জানিয়েছেন, সরকারি টাকায় কী করে এমন একটি ঘর তৈরি করা হল, তা খতিয়ে দেখা হবে বলে।

গ্রামের প্রধান মুকেশ যোশী অবশ্য জানিয়েছেন, তাঁর বিরুদ্ধে চক্রান্ত করা হচ্ছে। তিনি জানিয়েছেন, গ্রামে এই ঘরটি ‘জনমিলন কেন্দ্র’ হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.