হৃদস্পন্দন দু ঘন্টা বন্ধ থাকার পরেও নতুন জীবন শিশুর

প্রায় দুঘন্টা যাবৎ হৃদস্পন্দন থেমে থাকার পরেও মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়াইয়ে জয়ী পাঁচ বছরের একজন শিশু | চিনের ইয়িবিন সিটির জংচ্যাঙের ঘটনা এটি | পাঁচ বছরের খুদেটি পা ফস্কে হঠাৎই সেখানকার একটি পুকুরের জলের মধ্যে পড়ে যায় | একজন পথচারী বাচ্চাটিকে জলে পড়ে যেতে দেখে সঙ্গে সঙ্গে তাকে উদ্ধারের জন্য জাঁপিয়ে পড়েন এবং মাথা জলের নিচের দিকে ডুবে থাকা বাচ্চাটিকে উদ্ধার করেন | তারপরে তাকে হাসপাতলে নিয়ে যাওয়া হয় |

হাসপাতালের প্যারামেডিক্সরা দেখেন বাচ্চাটি একেবারেই মৃতপ্রায় অবস্থায় রয়েছে | তাঁরা প্রায় চল্লিশ মিনিট ধরে বাচ্চাটির কার্ডিওপালমোনারি রেসাসসিটেশন বা সিপিআর করতে থাকেন | বাচ্চাটির মা ও দাদুর অনুরোধে তাঁরা তার সিপিআর থামাননি এবং ১১০ মিনিটের ক্রমাগত প্রচেষ্টা চলার পর বাচ্চাটি আবার নিঃশ্বাস নিতে শুরু করে |

এরপরেও তার নিঃশ্বাসপ্রশ্বাস স্বাভাবিক রাখতে ডাক্তাররা অ্যাসিস্টেড ব্রিদিং করাতে থাকেন | ইয়িবিন অর্থোপেডিকস হাসপাতালের ড. ওয়ান বো জানান বাচ্চাটির বেঁচে যাওয়া আদতেই একটি মিরাক্যল | এত দীর্ঘ সময় ধরে হৃদস্পন্দন বন্ধ থাকার পরেও কারও বেঁচে যাওয়ার মত ঘটনা নিজের চোদ্দ বছরের ডাক্তারি জীবনে তিনি কখনও ঘটতে দেখেননি |

বাচ্চাটির পরিচয় গোপন রাখা হয়েছে | সঠিকভাবে জানা না গেলেও অনুমান করা হচ্ছে বাচ্চাটির ব্রেন ড্যামেজ হয়েছে | সেইজন্য তাকে অক্সিজেন ট্রিটমেন্ট দেওয়া হচ্ছে | ভবিষ্যতে কোনও দীর্ঘমেয়াদী বড়সড় অসুখে তার ভোগার সম্ভাবনা আছে কিনা তাও সঠিকভাবে জানতে পারা যায়নি |

দীর্ঘসময় ডুবে থাকলে মানুষের শ্বাসপ্রশ্বাস নেওয়ার ব্যবস্থা বিকল হয়ে পড়ে | অনেক সময় ডুবে যাওয়ার ছঘন্টা বা তার বেশি সময় বাদেও দেখা দিতে পারে উপসর্গগুলি | বাচ্চাটির নতুন কোনও সমস্যা দেখা দিলে যাতে চিকিৎসা করা সম্ভব হয় তার জন্য বাচ্চাটিকে হাসপাতালে ডাক্তারদের তত্ত্বাবধানে রাখা হয়েছে |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here