নিজে অভাব অনটনের মধ্যে থেকেও তাঁর অটোতে যাত্রীর ফেলে যাওয়া ১০ লক্ষ টাকা ফিরিয়ে দিলেন হায়দ্রাবাদের নলগোন্ডার দেবরকোন্ডার ৩০ বছরের একজন অটোচালক জে. রুমুলু | গত বুধবার গাচিবোলির শ্রীরামনগর কলোনিতে ২ জন যাত্রীকে নামানোর পর রুমুলু দেখতে পান তাঁর অটোর মধ্যে একটি ব্যাগ ফেলে গেছেন তাঁরা | ব্যাগটি খুললে পাওয়া যায় টাকার বান্ডিল | প্রথমে এত টাকা দেখে রীতিমত ঘাবড়ে গিয়েছিলেন রুমুলু | সেকেন্দ্রাবাদের জুবিলি বাস স্টেশন ( জে বি এস থেকে অটোতে উঠে শ্রীরামনগর কলোনিতে নেমেছিলেন দুজন যাত্রী | রুমুলু সেই ২ জন ছাত্রীকে খুঁজে বের করতে শ্রীরাম নগর কলোনিতে পৌঁছন |

রুমুলু জানিয়েছেন চাইলেই তিনি আত্মসাৎ করতে পারতেন ওই বিপুল অঙ্কের টাকা | কিন্তু অসৎ জীবন যাপন করতে চান না তিনি | দিনে হয়ত খুব বেশি হলে ৫০০ টাকা রোজগার হয় | কাঁধে রয়েছে ১.৫ লক্ষ টাকার অটো কেনার ঋণও | রুমুলুর স্ত্রী সংসার চালানোর জন্য মজুরের কাজ করেন | তাঁদের দু’জন সন্তান স্কুলে পড়ে | ১০ লক্ষ টাকায় দু’বছর বসে খেতে পারতেন রুমুলু | কিন্তু তাঁর সততা তাকে প্রলোভনে পড়তে দেয়নি |

দু’জন যাত্রীকে প্রসাদ ও কে. কিশোর সেই সময় শ্রীরাম নগর কলোনিতেই ছিলেন | পুলিশের সহায়তায় তাঁরা রুমুলুকে খুঁজে বের করার চেষ্টা করছিলেন | সেই সময় রুমুলু সেখানে পৌঁছে পুলিশের সামনেই তাঁদের টাকা তাঁদের হাতে তুলে দেন | দু’ভাই কে প্রসাদই কে. কিশোর সিদ্দিপেটে একটি দোকান চালান | শ্রীরাম নগর কলোনিতে তাঁদের জমিতে বাড়ির কাজের জন্যই ওই টাকা সেখানে নিয়ে যাচ্ছিলেন তাঁরা | সদ্য পা ভাঙা প্রসাদের অটো থেকে নামার সময় পায়ে খুব ব্যথা হয় | সেইদিকে নজর দিতে গিয়েই নামার সময় টাকার ব্যাগটি অটোতে ফেলে রেখে চলে যান তাঁরা | রুমুলুর সততাকে কুর্ণিশ জানাতে ১০‚০০০ টাকা তাঁকে দান করেছেন প্রসাদ ও কিশোর | মাধাপুরের ডিসিপি ভেঙ্কটেশ্বর রাও রুমুলুর সততার জন্য তাঁর প্রশংসা করেন |

আরও পড়ুন:  বছরের নির্দিষ্ট সময়ে টানা ৪২ দিন কথা না বলাই এই গ্রামের নিয়ম

NO COMMENTS