মানবিকতায় নজির গড়লেন প্রাক্তন দৃষ্টিহীন ক্রিকেট অধিনায়ক

63

 অন্ধজনে দেহ আলো / মৃতজনে দেহ প্রাণ ” – রবীন্দ্রনাথের এই গানের বাণী রয়েছে আমাদের মননে | কিন্তু নিত্যদিনের জীবনে নিজেরটুকু গোছাতে গিয়ে আমরা অন্যদের দিকে তাকাতে ভুলে যাই অনেক সময়েই | হয়ত অতিরিক্তটুকুও তুলে দিতে পারি না যাদের নেই তাদের হাতে | কিন্তু এই ছুটে চলা জীবনের মাঝে আশার আলো দেখাচ্ছেন দৃষ্টিহীন ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক |

পুরোনো বছরের শেষে ও নতুন বছরের শুরুতে আমরা সবাই যখন আনন্দে উৎসবে মত্ত তখনই অন্যরকম করে আনন্দ উদযাপন করলেন ভারতীয় দৃষ্টিহীন ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক‚ শেখর নায়েক | তিনি ছিলেন জন্মান্ধ | ছোটবেলায় বাবাকে হারান | ১৯৯৪-এ অস্ত্রোপচারে ফিরে পান আংশিক দৃষ্টিশক্তি |

ব্যাঙ্গালোরের হুলিমাভুর বাসিন্দা বছর ৩০  এর শেখর পদ্মশ্রী সম্মানপ্রাপ্ত | ২০০০ সালে তিনি কর্ণাটকের দৃষ্টিহীনদের ক্রিকেট দলের সঙ্গে যুক্ত হন | ২০১০ সালে তিনি দলের অধিনায়ক মনোনীত হন | তাঁরই অধিনায়কত্বে ২০১২ তে ভারত দৃষ্টিহীনদের টি-২০ ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপ ও ২০১৪ তে বিশ্বকাপে জয়ী হয় |

বর্তমানে জিম ইন্সট্রাক্টর হিসেবে কর্মরত শেখরের মাসিক আয় প্রায় কুড়ি হাজার টাকা | নিজের রোজগারে সংসার চালিয়ে টাকা বাঁচান | তিনি ও তাঁর বন্ধু সাগর দুজনে মিলে গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর ও নতুন বছরের ১ জানুয়ারি ফুটপাতবাসী মানুষদের হাতে তুলে দেন খাবার ও কম্বল |

এক সর্ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন তিনি যে হস্টেলে থাকতেন সেখানকার ওয়ার্ডেন বছরে একবার তাঁকে কম্বল‚ নতুন জামা‚ নতুন ব্রাশ দিতেন | এই দেখে তিনি অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন | নতুন বছরে যারা কিছু পায় না তাদেরই মুখে হাসি ফোটাতে এই উদ্যোগ নিয়েছিলেন তিনি | পরিবর্তে কিছু আশা না করে সাহায্য করতে পারার মধ্যে এক অদ্ভুত আনন্দ আছে বলে মনে করেন | বন্ধু সাগর‚ স্ত্রী ও দুই মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে মুম্বইয়ের ফুটপাতে হাসি ছড়াতে সফল হয়েছেন |

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.