কনস্টিপেশন ঠিক করতে জেনে নিন কী কী খাবেন

কোষ্ঠকাঠিন্য বা কনস্টিপেশন খুবই সাধারণ ব্যাপার কিন্তু এটা একই সঙ্গে হতে পারে ব্যথাদায়ক এবং অস্বস্তিকর | কিন্তু প্রশ্ন হলো কতো বার মলত্যাগ করা উচিত? বিশেজ্ঞদের মতে এর কোনো সঠিক উত্তর নেই | এটা ব্যক্তি অনুয়াযী পাল্টাতে পারে | কেউ দিনে তিনবার যেতে পারে আবার কেউ সপ্তাহে দু বার | কিন্তু পরপর তিনদিন যদি মলত্যাগ করতে অক্ষম হন তখন সেই পরিস্থিতিকে বলা হয় কোষ্ঠকাঠিন্য বা কনস্টিপেশন |

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করার জন্য দোকানে অনেক রকমের ওষুধ পাওয়া যায় | কিন্তু আমাদের ঘরেই এমন অনেক খাবার মজুত থাকে যা কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে সাহায্য করে | আজকে রইলো সেরকমই কয়েকটা খাবারের হদিস |

) ন্যাসপাতি‚ পিয়ার : এই ফলে ভিটামিন আর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আছে | একই সঙ্গে এই ফলের মধ্যে জল আর ফাইবারের পরিমাণ খুব বেশি যা কনস্টিপেশন কমাতে সাহায্য করবে | আপেল আর প্লামও খেতে পারেন |

) পপকর্ণ : এই সুস্বাদু স্ন্যাক্স যে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে পারে বিশ্বাস হচ্ছে না তো? এটা কিন্তু সত্যি | পপকর্ণ একই সঙ্গে লো ক্যালোরি এবং এতে উপস্থিত ফাইবার সাহজেই পেট পরিষ্কার করতে সহায্য করবে |

) আমন্ড : আমন্ড বাদামও সহজেই কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে পারে | তবে মনে রাখবেন পরিমাণে খুব বেশি আমন্ড কোনদিন খাবেন না | কয়েকটা আমন্ড আর তার সঙ্গে অনেকটা জল পান করুন | দেখবেন তাড়াতাড়ি রিলিফ পাবেন |

) লেন্টিল : যে কোনো ধরণের ডাল-এ প্রচুর ফাইবার থাকে | পেট পরিষ্কার করতে স্প্রাউটও খেতে পারেন |

) বেকড এবং সেদ্ধ আলু : আলুতে ফাইবার তো আছেই একই সঙ্গে এতে resistant starch থাকে যা পেটের মধ্যে  গুড ব্যাকটেরিয়া  তৈরি হতে সাহায্য করে | পেট পরিষ্কার করতে আলুর খোসাও খুব উপকারী | তাই কোষ্ঠকাঠিন্য কমাতে আলু খেলে অবশ্যেই খোসাটা ফেলে দেবেন না |

) তরমুজ : গরমকালে তরমুজের থেকে ভালো কিছুই হতে পারে না | একই সঙ্গে এই ফল কোষ্ঠাকাঠিন্য দূর করতেও সাহায্য করে | এই ফলের ৯২% জল দিয়ে তৈরি যা পেট সাফ করতে সাহায্য করে |

) ওটস : এতে soluble and insoluble fiber দুই ধরণের ফাইবার পাওয়া যায় | Insoluble fiberস্টুলের পরিমান বাড়িয়ে দেয় ফলে তা তাড়াতাড়ি শরীর থেকে বেড়িয়ে যায় | অন্য দিকে soluble fiber জলের মধ্যে মিশে গিয়ে জেল-এর মত পদার্থ তৈরি করে | এরা একসঙ্গে স্টুলের পরিমাণ বাড়ায়‚ তাকে নরম করে এবং শরীর থেকে সহজেই বেরিয়ে যেতে সাহায্য করে |

) কফি : বিশেষজ্ঞরা মনে করেন কফি খাওয়ার পর শরীরের মাসল নড়াচড়া করে‚ আর এর ফলে কোষ্ঠকাঠিন্য চলে যায় |

) দই : দই-তে প্রোবায়োটিকস থাকে যা পেটে  গুড ব্যাকটেরিয়া  তৈরি করে | এছাড়া দই হজমেও সাহায্য করে |

১০) পালং শাক : অন্য যে কোনো ফল বা সব্জির মতই পালং শাকে উচ্চ পরিমাণে ফাইবার থাকে | এছাড়াও এতে ম্যাগনেসিয়ামও আছে যা কনস্টিপেশন কমায় |

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

কফি হাউসের আড্ডায় গানের চর্চা discussing music over coffee at coffee house

যদি বলো গান

ডোভার লেন মিউজিক কনফারেন্স-এ সারা রাত ক্লাসিক্যাল বাজনা বা গান শোনা ছিল শিক্ষিত ও রুচিমানের অভিজ্ঞান। বাড়িতে আনকোরা কেউ এলে দু-চার জন ওস্তাদজির নাম করে ফেলতে পারলে, অন্য পক্ষের চোখে অপার সম্ভ্রম। শিক্ষিত হওয়ার একটা লক্ষণ ছিল ক্লাসিক্যাল সংগীতের সঙ্গে একটা বন্ধুতা পাতানো।