হতদরিদ্র অবস্থায় জীবন থেকে বিদায় নিতে হয় যে প্রতিভাদের

50

সীমাহীন প্রতিভার মালিক হয়েও অনেককে চলে যেতে হয়েছে হতদরিদ্র অবস্থায় | কেউ কেউ স্বীকৃতি পেয়েছেন‚ আর্থিক সুখ পাননি | কেউ কেউ দুটোর কোনওটারই মুখ দেখেননি | এরকম দশ জনের মধ্যে প্রথম পাঁচ জনের কথা ছিল প্রথম পর্বে | বাকি পাঁচ জনকে নিয়ে শেষ পর্ব |

(প্রথম পর্বের পরে)

হার্মান মেলভিল:

মৃত্যুর ৩০ বছর পরে লেখক হিসেবে স্বীকৃতি পান মবি ডিক-এর স্রষ্টা | যখন কলম ধরতেন‚ কেউ জানত না তিনি লেখক | ১৯ বছর ধরে কাস্টমস ইন্সপেক্টর-এর চাকরি করে সংসার চালিয়েছেন তিনি | ১৮৯১ সালে যখন তিনি প্রয়াত হন‚ মার্কিন সাহিত্য জগতে তিনি কার্যত পরিচয়হীন |

জোসেফ গ্যান্ডি :

এখন তাঁকে অন্যতম সেরা ‘আর্কিটেকচারাল ড্রয়িং’-এর শিল্পী বলে মানা হয় | অথচ‚ উনিশ শতকের শুরুতে তিনি যখন ব্রিটেনে একের পর এক সেরা ড্রয়িং করছেন‚ কেউ চিনত না তাঁকে | অর্থকষ্টে থাকা এই প্রতিভার শেষ কটা দিন কাটে গরাদহীন পাগলা গারদে | সেখানেই রেখে এসেছিল তাঁর পরিজনরা | এমনকী‚ কোথায় তাঁর সমাধি‚ তাও কেউ জানে না |

স্টিফেন ফস্টার :

তাঁকে বলা হয় আমেরিকান সঙ্গীতের জনক | সঙ্গীতের হল অফ ফেম-এ অনায়াসে স্থান করে নেওয়া এই গীতিকার জীবনকালে যা পারিশ্রমিক পেতেন তাতে সংসারে অনটনের বদলে স্বচ্ছলতা আসেনি | ১৮৬৪-তে নিউ ইয়র্কের বেলভিউ হাসপাতালে মারা যান তিনি | শেষ সময়ে পকেটে ছিল ৩৮ ডলার আর একটা টুকরো কাগজ | লেখা ছিল‚ ‘Dear friends and gentle hearts’…

যোয়ান গুঠেনবার্গ :

তাঁর ছাপাখানা আবিষ্কারকে অনেকেই বলেন বিশ্বের ইতিহাসে সেরা আবিষ্কার | মানবসভ্যতাকে তিনি যে এক ধাক্কায় বহু যোজন এগিয়ে দিয়েছিলেন‚ তাতে কোনও সন্দেহ নেই | কিন্তু শেষ দিকে দেনার দায়ে হাতছাড়া হয়ে যায় সাধের ছাপাখানা | এমনকী‚ মুদ্রিত বাইবেলের অর্ধেকের উপরেও তাঁর মালিকানা চলে যায় | হতদরিদ্র অবস্থায় ১৪৬৮ সালে মৃত্যু হয় মুদ্রণের জনক গুঠেনবার্গের | যে গির্জায় সমাহিত হন‚ সেটি ধ্বংস হয়ে যায় | কোথায় তাঁর সমাধি‚ হারিয়ে গেছে ইতিহাসের অন্ধকারে |

অ্যান্তোনিও মেউস্যি :

টেলিফোনের আবিষ্কারক কে‚ জানতে চাইলে সবাই বলবে আলেকজান্ডার গ্রাহাম বেল | কিন্তু প্রায় কেউই জানেন না অ্যান্তোনিও মেউস্যির কথা | এই ইতালিয়ান বিজ্ঞানী টেলিট্রোফোনো আবিষ্কার করেছিলেন | বলা হয়‚ তিনি তাঁর পেপারস পাঠিয়েছিলেন আলেকজান্ডার গ্রাহাম বেলের অফিসে | উদ্দেশ্য ছিল‚ আর্থিক স্বাচ্ছন্দ্য | কিন্তু অভিযোগ‚ গ্রাহাম বেল তাঁর আবিষ্কার চুরি করে নিজের বলে প্রচার করেন | গ্রাহাম বেল একদিকে চলে আসেন লাইমলাইটের কেন্দ্রে | আর মেউস্যি‚ আইনি লড়াইয়ে হেরে‚ কপর্দকহীন হয়ে জীবন থেকে বিদায় নেন ১৮৮৯-এ |

(সমাপ্ত)

(প্রথম পর্বের লিঙ্ক:http://www.banglalive.com/News/Detail/9793)

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.