অতীতে উন্মেষের কেন্দ্র তাঁর প্রাসাদ আজ জরাজীর্ণ…কে ছিলেন রাজা সুবোধ মল্লিক ?

1495

উত্তর কলকাতার পুরোনো হলদে আলোর স্ট্রিটলাইট আর রকের আড্ডার সঙ্গে সঙ্গে মনকে টানে পুরোনো দিনের বাড়িগুলির গঠন | দক্ষিণ কলকাতার বাড়িগুলিতে হাল আমলের ফ্যাশনের ছাপ পড়লেও উত্তর কলকাতার বেশিরভাগ বাড়িই রয়ে গেছে পুরোনো দিনের আমেজ মাখানো | আর কলকাতার অন্যতম পুরোনো ঐতিহ্যশালী বাড়ি হিসেবে আমরা রাজা সুবোধ মল্লিকের বাড়ির কথা অনেকেই জানি | রাজা সুবোধ মল্লিকের বাড়ির সংলগ্ন পার্কটি বর্তমানে ওয়েলিংটন স্কোয়্যার নামে পরিচিত | ১২‚ রাজা সুবোধ মল্লিক স্কোয়্যার‚ কলকাতা – ৭০০০১৩ – এর এই ঐতিহ্যশালী বাড়িটিতে আজ ঝুলছে কলকাতা পৌরসংস্থার বিপজ্জনক বাড়ির নোটিশ |

বর্তমানে আইনি জটিলতার ফাঁদে পড়ে বট – অবস্থানের গ্রাসে ভগ্নপ্রায় অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছে রাজা সুবোধ মল্লিকের বাড়িটি | এখন বাড়িটির কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বাড়িটির সংস্কার কার্যে বিশেষ এগোতে পারেনি | ক্রিক রোয়ের পাশে ইট বেরিয়ে যাওয়া‚ পলেস্তারা খসে পড়া‚ গাছের শিকড়ে জরাজীর্ণ হয়ে যাওয়া এই বিরাট বাড়িটি এক সময় ছিল ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের আঁতুড়ঘর |

রাজা সুবোধ মল্লিক ১৮৭৯ সালের ফেব্রুয়ারির ৯ তারিখে পটলডাঙায় জন্মগ্রহণ করেন | ছোটোবেলায় সেন্ট জেভিয়ার্স স্কুলে পড়াশোনা করেছেন | তারপরে ভর্তি হন প্রেসিডেন্সি কলেজে | ১৯০০ সালে স্নাতক হওয়ার পরে সুদূর কেম্ব্রিজের ট্রিনিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তর পর্যায়ের পড়াশোনা করতে যান | বিদেশে থাকাকালীন কিছু পারিবারিক সমস্যার জন্য পড়াশোনা অসম্পূর্ণ রেখেই তাঁকে দেশে ফিরে আসতে হয় |  শ্রী অরবিন্দের অন্যতম সহায়ক ছিলেন | পরবর্তী কালে তিনি কংগ্রেসের চরমপন্থী আন্দোলনের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন | ১৯০৫ সালের বঙ্গভঙ্গ আন্দোলনের সময়ের একজন অতি সক্রিয় স্বাধীনতা সংগ্রামী ছিলেন তিনি | মুজফফরপুরের ডিস্ট্রিক্ট জাজ কিংসফোর্ডকে হত্যার চেষ্টার ষড়যন্ত্রে শ্রী অরবিন্দ‚ চরুচন্দ্র দত্তের সঙ্গে সঙ্গে সুবোধ মল্লিকও জড়িত ছিলেন বলে অনুমান করা হয় | স্বদেশিয়ানার দায়ে কারাদণ্ডও হয় তাঁর | কিন্তু ১৪ মাস পরে তিনি কারাগার থেকে মুক্তি পান |

স্বদেশী শিক্ষা প্রসারের জন্য সুবোধ মল্লিক বিখ্যাত শিক্ষাবিদদের নিয়ে ন্যাশনাল কাউন্সিল ফর এডুকেশন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন | বেঙ্গল ন্যাশনাল কলেজ‚ যা পরবর্তীকালের যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়‚ সেখানেও শিক্ষা প্রসারে এক লক্ষ টাকা দান করেছিলেন তিনি | লাইফ এশিয়া বীমা কম্পানির জনকও তিনিই | দানধ্যানের জন্যই সুবোধ মল্লিককে ‘ রাজা ‘ উপাধিতে ভূষিত করা হয় |

১৮৮৩ সালে যখন সুবোধচন্দ্র বছর চারেকের শিশু‚ তৈরি হয়েছিল তাঁদের পারিবারিক বসতবাড়িটি | পরবর্তীকালে যা হয়ে ওঠে নবজাগরণ ও স্বদেশিয়ানার অন্যতম ঘাঁটি | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর‚ চিত্তরঞ্জন দাশ‚ বাল গঙ্গাধর তিলকের মত বিখ্যাত মনীষীরাও এই বাড়িটিতে এসেছেন | আতিথ্য গ্রহণ করে এ ভবনে দীর্ঘদিন কাটিয়েছেন শ্রী অরবিন্দ | তিন তলার এই বিরাট বাড়িটিতে রয়েছে ভারতীয় ও ইউরোপীয় স্থাপত্যের মিশ্রণ | তবে বর্তমান অবস্থা দেখে বোজার উপায় নেই এককালে কতখানি জৌলুস ছিল এই বাড়িটির | যে বাড়িটির দেওয়ালে এক কালে শোভা পেত গিলবার্ট স্টুয়ার্টের আঁকা জর্জ ওয়াশিংটনের একটি ছবি‚ তারই আজ ভগ্নদশার চূড়ান্ত |

বড়িটির একেবারে নিচের তলায় ছিল কালো মার্বেল পাথরে মোড়া একটি বিরাট খাওয়ার ঘর ও বিলিয়ার্ডস খেলার জন্য একটি ঘর | একতলায় ছিল গ্রন্থাগার | সদর থেকে অন্দরমহলে মহিলাদের যাতায়াতের জন্য তৈরি করা হয়েছিল একটি কাঠের সংযোগসেতুও | মল্লিক বাড়ির প্রথা অনুযায়ী নববিবাহিত বধূরা বাড়ির খিড়কি দরজা দিয়েই বাড়িতে প্রবেশ করতে পারত |বাড়ির বিরাট লোহার ফটক আজ বন্ধ ও জরাজীর্ণ |

এই বাড়িটি পরবর্তীকালে আইনি ও শরিকি জটিলতার জালে পড়েছে | বাড়িটির একতলা ও দোতলা কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় অধিকৃত হলেও তৃতীয় তলাটি অধিগ্রহণ করেছে মিশ্র পরিবার | ১৯৯৮ সালে এই বাড়িটিকে হেরিটেজ সাইট হিসেবে ঘোষণ করা হলেও উন্নতি হয়নি তার ভগ্নদশার | বাড়িটির দুটি অংশ অর্থাৎ U – এর ঠিক মাঝখানে অবস্থিত ক্রিক রো | ক্রিক রোর বাড়িটির বাঁদিকের অংশটি বর্তমানে প্রায় ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে | আর ডানদিকের ভাঙাচোরা অংশটির নিচের ফুটপাথে এখন কয়েকটি পরিবার বসবাস করে | বেশ কয়েকদিন আগেই এই ঐতিহ্য বাড়ির অংশ ভেঙে পড়ায় ক্রিক রো-এ গাড়ি চলাচল বন্ধ রাখতে হয়েছিল | খুব তাড়াতাড়ি মেরামত করা না হলে হয়ত কালের গ্রাসে হারিয়ে যাবে উত্তর কলকাতার ঐতিহাসিক গুরুত্বসম্পন্ন ঐতিহ্যশালী রাজা সুবোধ মল্লিকের বাড়িটি |

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.