শ্বাসকষ্ট এড়ানোর কিছু সহজ ঘরোয়া পদ্ধতি

শীতকালে শ্বাসকষ্টের সমস্যা বাড়ে। আবহাওয়া শুষ্ক থাকার জন্য শ্বাসতন্ত্রের নানা সমস্যা দেখা দেয়। ঠান্ডা বাড়লে শিশু ও বয়স্ক মানুষরা বেশি শ্বাসকষ্টের সমস্যায় পড়েন। আর এমনিতেই যাঁদের অ্যাজমা বা হাঁপানির বা টানের রোগ আছে শীতকালে তাঁদের সমস্যা আরও বেশি বেড়ে যায়। নিয়মিত ডাক্তারের পরামর্শ ও ওষুধপত্র তো রয়েছেই | পাশাপাশি চলতে পারে কিছু ঘরোয়া টোটকাও

১. আদা শ্বাসনালীর প্রদাহ কমিয়ে অক্সিজেনের প্রবেশ স্বাভাবিক রাখে। চায়ের সঙ্গে আদা বা আদার রস ও মধু মিশিয়ে খান। শ্বাসকষ্টের সমস্যায় উপশম মিলবে।

২. খুব বেশি গন্ধযুক্ত জিনিস যেমন সুগন্ধি পারফিউম, মশা তাড়ানোর ধূপ‚বা পুজোয় ব্যবহৃত ধূপ বর্জন করুন।

৩. ১ গ্লাস ঈষদুষ্ণ জলে ১ চামচ মধু মিশিয়ে পান করুন। নিয়মিত এই পানীয় পান করলে শ্বাসকষ্ট কমে।

৪. কফি শ্বাসকষ্টে নিয়ন্ত্রণে সহায়ক। নিয়মিত গরম কফি পান করলে শ্বাসনালী পরিষ্কার হবে। কিন্তু দিনে ৩ কাপের বেশি ব্ল্যাক কফি খাওয়া উচিত নয়।

৫. ঘরদোর বিশেষত শোয়ার ঘরটিকে ধুলোবালি মুক্ত রাখুন। প্রতি সপ্তাহে আপনার বিছানার চাদর ও বালিশের কভার গরম জল দিয়ে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন।

৬. শ্বাসকষ্ট কমাতে আধ কাপ দুধ ও এক চামচ রসুন কুচি ফুটিয়ে ঠাণ্ডা করে পান করুন। খাবারের সঙ্গে কাঁচা পেঁয়াজ ও রসুন খেলেও শ্বাসকষ্টে বেশি উপকার পাওয়া যায়।

৭.  ১ কাপ দুধে ১ চামচ হলুদ মিশিয়ে প্রতিদিন পান করুন। শ্বাসকষ্টের সমস্যায় উপশম মিলবে।

৮. ফুসফুসের কর্মক্ষমতা বাড়াতে ডুমুর ভাল কাজ করে। কয়েকটি ডুমুর সারা রাত জলে ভিজিয়ে রাখুন। সকালে খালি পেটে ডুমুর ভেজানো জল খেয়ে ফেলুন। ডুমুরের তরকারিও খাবারের তালিকায় রাখতে পারেন।

৯. ফুসফুস ঠিক মতো কাজ করলেই শ্বাস-প্রশ্বাসও স্বাভাবিকভাবে হতে শুরু করে। সর্ষের তেল হালকা গরম করে বুকে, পিঠে, গলায় ভাল করে মালিশ করলে শ্বাসকষ্ট কমে।

১০. ম্যাগনেসিয়াম ও ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড আছে এমন খাবার খাওয়ার চেষ্টা করুন। আর ধূমপান বর্জন করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here