রামচন্দ্রের মৃত্যু হয় কীভাবে?

দশরথের প্রথম পুত্রকে বলা হয় পুরুষোত্তম| কিন্তু জানেন কি কীভাবে মৃত্যু হয়েছিল রামচন্দ্রের? যদিও বলা হয়, বিষ্ণুর অবতাররা প্রয়াত হন না | মর্ত্যে ধর্ম প্রতিষ্ঠা করে ফিরে যান অমর্ত্যলোকে |

তবে রামায়ণে রামের মৃত্যুর প্রসঙ্গ আছে | ১১ হাজার বছর শাসনকালে রাম বহু যজ্ঞ করেন | রামচন্দ্র এবং তাঁর ভাইয়ের পুত্ররা বিশাল রাম-রাজত্বের বহু অংশ শাসনভার পান | সীতা ফিরে যান তাঁর মা, পৃথিবীর কাছে | ক্রমে রাম বোঝেন, মর্ত্যে তাঁর কাজ শেষ হয়েছে | এবার ফিরে যেতে হবে দেবলোকে |

পদ্ম পুরাণ বলে, একদিন রামের কাছে একজন ঋষি আসেন | বলেন, রামচন্দ্রের সঙ্গে তাঁর একান্তে ব্যক্তিগত কথা আছে | কেউ যেন সেই সময় ঘরে না ঢোকে | রাম সেইমতো পাহারায় রাখেন লক্ষ্মণকে | নির্দেশ দেন, কেউ ঘরে ঢুকলে তাঁকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হবে | বলা হয়, এই ঋষি হলেন আসলে কালদেব| সময়ের দেবতা|

সেই সময় সেখানে আসেন ঋষি দুর্বাসা | ঢুকতে না পেরে তিনি রঘু বংশ এবং অযোধ্যাকে অভিশাপ দিতে যান | সবাইকে বাঁচাতে অভিশাপ নিজের ঘাড়ে নিয়ে নেন লক্ষ্মণ | তিনি অনুভব করেন এই পরিস্থিতি আসলে কালের খেলা |

তাঁর চলে যাওয়ার সময় এসেছে বুঝতে পেরে লক্ষ্মণ চলে যান সরযূ তীরে | বিলীন হয়ে যান নদীতে |রাম যখন খবর পান, তিনিও সরযূতে গিয়ে বিলীন হয়ে যান | সেইসময় ভগবান বিষ্ণুর ‘অনন্ত শেষ’ অবতার এসে আশীর্বাদ করেন ভক্তদের |

রামায়নের অন্য একটি সূত্র আবার রামের মৃত্যু অন্যভাবে ব্যাখ্যা করে | সেখানে বলা হয়, রামচন্দ্র বুঝতে পারেন মর্ত্যের কাজ শেষ করে এবার তাঁর সুরলোকের ফিরে যাওয়ার সময় | তিনি যমরাজের অপেক্ষায় থাকেন | কিন্তু অযোধ্যার দ্বারে পাহারায় ছিলেন স্বয়ং হনুমান | ফলে ভয়ের চোটে যমরাজ ঢুকতে পারছিলেন না |

জানতে পেরে রামচন্দ্র নিজের আংটি ফেলে দেন প্রাসাদে পাথরের খাঁজে | হনুমানকে আদেশ দেন খুঁজে আনতে | হনুমান তখন পোকার আকার ধরে সেই ফাঁকে গলে যান | কিন্তু তিনি পৌঁছে যান নাগলোকে |

সেখানে বাসুকি নাগের সঙ্গে সাক্ষাৎ হয় হনুমানের | বাসুকিকে হনুমান বলেন, তিনি রামের আংটি খুঁজতে এসেছেন | শুনে বাসুকি বিশাল আংটির পাহাড় দেখিয়ে দেন | গিয়ে হনুমান দেখেন, সেখানে সবই রামের আংটি| হনুমান বিভ্রান্ত হয়ে যান |

এরপর বাসুকি নাগ হনুমানকে বোঝান | বলেন, জন্ম-মৃত্যু চক্রের কথা | হনুমান তখন বুঝতে পারেন, রামচন্দ্রের বৈকুণ্ঠে ফিরে যাওয়ার সময় আসন্ন | এভাবেই পুরাণ-সাহিত্যে মহাকাব্যিক বিদায় পেয়েছেন বিষ্ণুর সপ্তম অবতার রামচন্দ্র |

ত্রেতা যুগে রামচন্দ্র ছাড়াও অবতীর্ণ হয়েছিলেন বিষ্ণুর আরও দুই অবতার, পরশুরাম এবং বামন | দ্বাপর যুগে কৃষ্ণ এবং বুদ্ধ | বাকি আছে শুধু দশম অবতার| কল্কিদেব| যিনি নাকি সাদা ঘোড়ায় চেপে আসবেন ঘোর কলিকালে|

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.