নিখুঁতভাবে কাজল লাগানোর কয়েকটি সহজ স্টেপ!

নিয়মিত চোখে কাজল দেন যারা, তাদের সবার একটি সাধারণ সমস্যা হল কাজল ছড়িয়ে যাওয়া। ওয়াটার প্রুফ বা স্মাজ প্রুফ যতো ধরনেরই কাজল হোক না কেন, কয়েক ঘন্টা গেলেই কমবেশি সবারই এই কাজল ছড়িয়ে যাবার অভিযোগটি শোনা যায়। আসলে কাজল জিনিসটিই এমন, ২-৪ ঘণ্টায় একটু হলেও তা ছড়ায়। তবে সবথেকে বড় বিষয় হল, আপনি কাজল কীভাবে লাগাচ্ছেন, তার উপর অনেক কিছু নির্ভর করে। তাই সুন্দর করে কাজল পরা এবং তা স্মাজপ্রুফ রাখার ব্যাপারে আপনাকে জানতে হবে কয়েকটি পদ্ধতি, তার জন্য রইল কিছু টিপস!

# বাজারে অনেক ব্র্যান্ডের কাজল পাওয়া যায়। সব ব্র্যান্ড সকলের জন্য নয়। আপনার চোখের ধরন ও ত্বক বুঝে নিজের জন্য সঠিক ব্যান্ড বেছে নিন।

# গ্লিটার বা শিমার দেওয়া কাজল এড়িয়ে চলুন। কাজলে গ্লিটার জাতীয় কিছু থাকলে তা চোখের ক্ষতি করতে পারে।

# যাদের চোখের পাতা তৈলাক্ত, তাদের চোখে কাজল দেওয়ার আগে আই প্রাইমার দিয়ে চোখের পাতাকে কাজল দেওয়ার উপযুক্ত করে নিন আর যাদের আই প্রাইমার নেই, তারা কাজল দেওয়ার পর সামান্য সাদা পাউডার নিন, আইশ্যাডো ব্রাশের সাহায্যে কাজলের ওপর হালকা করে পাউডার দিয়ে নিন। ব্লাশ ব্রাশ দিয়ে অতিরিক্ত পাউডার ঝেড়ে ফেলুন। পাউডার আপনার চোখের পাতার অতিরিক্ত তেল শুষে নিয়ে আপনার কাজলকে দীর্ঘস্থায়ী করবে।

# কাজল অনেক রকম করে অনেক স্টাইলে পরা যায়। সব চেহারার সঙ্গে সব রকম লুক মানায় না। নিজেকে কোনটা মানাবে সেটা বুঝে লুক তৈরি করুন।

# কমদামি কাজল কিনবেন না। ভালো মানের কাজল হলে তবেই কিনুন। কাজল মানেই শুধু কালো নয়। চোখ বড়ো দেখাতে বাদামি বা গাঢ় বাদামি শেডের কাজল পরতে পারেন।

# কাজল কখনও এক টানে পরবেন না। ছোট ছোট স্ট্রোকই সবচেয়ে ভালো কাজল পরা যায়। চোখের নিচের পাতার বাইরের দিকের কোনা থেকে কাজল পরা শুরু করুন। তাতে রং গাঢ় করতে পারবেন।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

Please share your feedback

Your email address will not be published. Required fields are marked *

pakhi

ওরে বিহঙ্গ

বাঙালির কাছে পাখি মানে টুনটুনি, শ্রীকাক্কেশ্বর কুচ্‌কুচে, বড়িয়া ‘পখ্শি’ জটায়ু। এরা বাঙালির আইকন। নিছক পাখি নয়। অবশ্য আরও কেউ কেউ