দৈনন্দিন জীবনে গৃহস্থালির কাজে বেশিরভাগ মানুষই প্লাস্টিকের বোতল, ব্যাগ এবং কন্টেনারের ওপর নির্ভরশীল। জলের বোতল থেকে শুরু করে সফট ড্রিংক-এর বোতল, খাবার রাখার কন্টেনার সবেতেই প্লাস্টিকের ব্যবহার চোখে পড়ে। সাধারণত প্লাস্টিকের ব্যবহার ঝুঁকিপূর্ণ জেনেও এর ব্যবহার একেবারে বন্ধ করে দেওয়া সম্ভব নয়। কিন্তু যদি জানা যায় যে কোন ধরণের প্লাস্টিক অপেক্ষাকৃত নিরাপদ তাহলে জীবনযাত্রার মান নিশ্চিত করা যায়। প্লাস্টিক মূলত সাত রকমের হয়ে থাকে। জেনে নিন সেগুলির বৈশিষ্ট ও ব্যবহারিক দিকগুলি-

* প্লাস্টিক ১- এই ধরণের প্লাস্টিকের মূল উপাদান হল পলিথাইলিন টেরেপথালেট। এটি সংক্ষেপে PETE নামে পরিচিত। সাধারণত জলের বোতল, সফট ড্রিংকস এর বোতল, বিভিন্ন ক্যান্ডির জার প্রস্তুত করা হয় এই জাতীয় প্লাস্টিক থেকে। এই ধরণের প্লাস্টিকে সহজেই ব্যাকটেরিয়া জন্মাতে পারে। এই ধরণের প্লাস্টিকের বোতলে গরম পানীয় রাখা একেবারেই ঠিক নয়। কারণ এই প্লাস্টিকের বোতলে গরম পানীয় রেখে তা পান করলে তা স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর। এই ধরণের প্লাস্টিক পুনঃব্যবহারের জন্য একেবারেই উপযুক্ত নয়, তাই এগুলি একবার ব্যবহারের পরেই ফেলে দেওয়া ভাল।

Banglalive-8

* প্লাস্টিক ২- এই ধরণের প্লাস্টিক হাই ডেনসিটি পলিইথাইলিন থেকে তৈরি হয়। একে সংক্ষেপে HDPE দ্বারা প্রকাশ করা হয়। এই ধরণের প্লাস্টিক থেকে বোতল, কাপ, জার, মুদি দোকানের ব্যাগ ইত্যাদি তৈরি করা হয়ে থাকে। আমেরিকার কেমিস্ট্রি কাউন্সিল এই ধরণের প্লাস্টিককে নিরাপদ হিসেবে ঘোষণা করেছেন। এই ধরণের প্লাস্টিক থেকে রাসায়নিক পদার্থ নির্গত হওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

Banglalive-9

* প্লাস্টিক ৩- এই ধরণের প্লাস্টিক মূলত পলি ভিনাইল ক্লোরাইড থেকে তৈরি। এদের সংক্ষেপে PVC বলা হয়। এই ধরণের প্লাস্টিক সাধারণত নির্মাণকার্যে ব্যবহার করা হয়। যেমন জলের পাইপ, কেবল্‌ ইত্যাদি। গবেষণায় দেখা গিয়েছে PVC তে এমনকিছু উপাদান রয়েছে যা ক্যান্সারের কারণ হতে পারে। এছাড়া এটি লিভার এবং হাড়ের পক্ষেও যথেষ্ট ক্ষতিকর। এই ধরণের প্লাস্টিকের ব্যবহার এড়ানোই ভাল।

আরও পড়ুন:  দীর্ঘদিন ধরে পুতুলের ছদ্মবেশে সংরক্ষিত মৃতদেহ সাজানো দোকানে ?

* প্লাস্টিক ৪- এই ধরণের প্লাস্টিক মূলত লো ডেনসিটি পলিইথাইলিন থেকে তৈরি হয়। তাই এগুলোকে সংক্ষেপে LDPE বলা হয়ে থাকে। মুদি দোকানের প্যাকেট, ফুড র‍্যাপার, পাউরুটির প্যাকেট এই ধরণের প্লাস্টিক থেকে তৈরি হয়। এইধরণের প্লাস্টিক ব্যবহারের ক্ষেত্রে কোনও ঝুঁকি নেই বলেই জানান বিশেষজ্ঞরা। এগুলির পুনঃব্যবহার করা যেতেই পারে।

* প্লাস্টিক ৫- এই ধরণের প্লাস্টিক তৈরি করা হয় পলিপ্রোপাইলিন থেকে। এগুলি থেকে খাবারের কন্টেনার, বালতি, জলের মগ ইত্যাদি তৈরি হয়। গবেষকরা এতে কোনও ক্ষতিকারক উপাদান পাননি।  অন্যান্য যেকোনও প্ল্যাস্টিক এর তুলনায় এগুলি অনেকটাই নিরাপদ বলে পরিচিত।

* প্লাস্টিক ৬-  এই ধরণের প্লাস্টিক তৈরি হয় পলিস্টিরিন থেকে। এগুলি থেকে কফি কাপ বা গ্লাস তৈরি করা হয়ে থাকে। এর থেকে স্টিরিন নামে একপ্রকার কেমিক্যাল ব্যবহৃত হয় যা ক্যান্সারের জন্য দায়ী। গবেষকরা বলেন এই ধরণের প্লাস্টিক পুরোপুরিভাবে এড়িয়ে চলাই ভাল।

* প্লাস্টিক ৭-  এই ধরণের প্লাস্টিক কোনও একটি নির্দিষ্ট উপাদান থেকে তৈরি হয়না। এর উপাদান মিশ্র প্রকৃতির। এই ধরণের প্লাস্টিক ব্যবহার না করাই ভাল, কারণ কী উপাদানে এই প্লাস্টিক তৈরি তা জানা যায়না। শিশুদের খেলনা, শিশুদের জলের বোতল, সিডি, ডিভিডি, কম্পিউটারের যন্ত্রাংশ তৈরিতে এই ধরণের প্লাস্টিক ব্যবহার করা হয়ে থাকে। খাদ্যদ্রব্য রাখার জন্য কোনোভাবেই এই প্লাস্টিক ব্যবহার করা উচিত নয়। এই ধরণের প্লাস্টিক পুনঃব্যবহারযোগ্য নয়।

NO COMMENTS