ঘরোয়া পদ্ধতিতে কনুই এবং হাঁটুর কালো দাগ দূর করার সহজ উপায় জেনে নিন…

প্রায়শই আমাদের কনুই বা হাঁটুতে কালো দাগ দেখা যায়। কনুই এবং হাঁটুর ত্বক এমনিতেই সাধারণ ত্বকের তুলনায় মোটা হয়। হাত এবং পায়ের নাড়াচারার ফলে এই অংশগুলিতে ভাঁজের সৃষ্টি হয়। পাশাপাশি ত্বকের এই অংশগুলিতে ঘর্মগ্রন্থি থাকে না বলে এই ত্বক শুষ্ক হওয়ারও একটা প্রবণতা দেখা যায়। তাই সঠিকভাবে যত্ন না নেওয়ার ফলে শরীরের অন্যান্য অংশের তুলনায় হাঁটু এবং কনুইয়ের ত্বকে কালো দাগ পড়ে যায়। সাধারণ সাবানে এই দাগ দূর করা যায়না। কিন্তু কয়েকটি প্রাকৃতিক উপায় অবলম্বন করলে এই দাগ দূর করা অনেক সহজ হয়ে ওঠে। এক ঝলকে দেখে নেওয়া যাক কোন কোন উপায়ে কনুই এবং হাঁটুর এই কালো দাগ দূর করা যেতে পারে।

* নারকেল তেল- নারকেল তেলে রয়েছে ভিটামিন ‘ই’, যা ত্বকের আর্দ্রতা রক্ষা করার মাধ্যমে ত্বকের শুষ্কতা প্রতিরোধ করে এবং স্কিন টোন হালকা হতে সাহায্য করে। এটি ক্ষতিগ্রস্থ ত্বকের মেরামতে সাহায্য করে। প্রতিবার স্নানের পরে কনুই ও হাঁটুতে নারিকেল তেল লাগিয়ে ১/২ মিনিট ম্যাসাজ করুন, ফল পাবেন। এছাড়াও ১ টেবিল চামচ নারিকোল তেল ও আধ চা-চামচ লেবুর রস ভালো করে মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি কনুই ও হাঁটুতে ভালোভাবে ম্যাসাজ করুন এবং ১৫-২০ মিনিট রাখুন। তারপর নরম কাপড় না তোয়ালে দিয়ে মুছে নিন।

* দই ও লেবুর রস- এই মিশ্রণটি ব্যবহারের পূর্বে একটি ব্রাশ দিয়ে কনুই ও হাঁটুর চামড়ার অংশটি ভাল করে ঘষে নিন। তারপর একটি কাপে দই ও লেবুর রস  মেশান এবং এর  সঙ্গে এক চামচ জল দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। এবার মিশ্রণটি আপনার কনুই ও হাঁটুতে লাগান এবং শুঁকিয়ে যাওয়া অবধি অপেক্ষা করুন। প্রায় ১০-২০ মিনিট পর তা ধুয়ে ফেলুন। তারপর সাবান ও জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন এবং নরম তোয়ালে দিয়ে মুছে ফেলুন। এরপর ময়েশ্চারাইজার লাগান।

* বেকিং সোডা ও দুধ- বেকিং সোডা ও দুধ কনুইয়ের কালো দাগ কমাতে সাহায্য করে। বেকিং সোডা মরা চামড়া দূর করতে সাহায্য করে এবং দুধের ল্যাকটিক এসিড ত্বকের রঙ হালকা হতে সাহায্য করে। ২ টেবিলচামচ দুধের সঙ্গে ১ টেবিলচামচ বেকিং সোডা মেশান। এই মিশ্রণটি কনুই ও হাঁটুতে লাগিয়ে বৃত্তাকারে ঘষুন এবং ২০ মিনিট রেখে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

* অ্যালোভেরা-  ত্বক নমনীয় করে অ্যালোভেরা ভীষণভাবে সাহায্য করে। অ্যালোভেরার জেলির মতো অংশটি শুষ্ক ত্বকের ওপর সরাসরি লাগানো যেতে পারে। এরপর তা ২০ মিনিট পর্যন্ত রেখে দিয়ে ঠাণ্ডা জলে ধুয়ে নিতে হবে।

* বেকিং সোডা- দুধের সঙ্গে বেকিং সোডা মিশিয়ে একটি ঘন পেস্ট তৈরি করুন। ওই পেস্ট কনুই এবং হাঁটুর শুষ্ক ত্বকে লাগান। পাঁচ মিনিট রেখে তা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। প্রতি সপ্তাহে একবার এই পেস্ট টানা দু’মাস ব্যবহার করে দেখুন। ফলাফল চোখে পড়বে।

এর পাশাপাশি কয়েকটি বিষয় মেনে চললে খুব তাড়াতাড়ি আরও ভাল ফল পাওযা যেতে পারে। সেগুলি হল-

* টমেটো, আঙুর-এর মতো ফলে ‘ব্লিচ’-এর উপাদান রয়েছে, যা লাগালেও উপকার পাওয়া যাবে।

* স্নানের পর বা রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে,ত্বকে  ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। শিয়া বাটার, জোজোবা অয়েল ও অলিভ অয়েল সমৃদ্ধ লোশন ব্যবহার করতে পারেন।

* রাতে ঘুমানোর আগে ওই কালো দাগের উপর পেট্রোলিয়াম জেলি বা অলিভ অয়েল লাগিয়ে নিতে হবে। এরপর সুতির মোজার সামনের অংশটি কেটে নিয়ে তা কনুই ও হাঁটুতে পরে নিন। তারপর সারা রাত ওই অংশটি এইভাবে ঢেকে রাখুন।

* কনুই বা হাঁটুর উপর ভর দিয়ে করতে হয়, এমন কাজ থেকে বিরত থাকুন।

ঘরোয়া পদ্ধতিতে ব্যবহৃত যেকোনও টোটকা নিজ দ্বায়িত্বে ব্যবহার করুন। প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here