কীভাবে বুঝবেন ডিহাইড্রেশন হয়েছে? হলে কি করবেন?-জেনে নিন প্রতিকার…

1494

শরীরে জলশূন্যতা বা জলের অভাব দেখা দিলে চিকিৎসার পরিভাষায় তাকে বলে ডিহাইড্রেশন। বিশেষত গরমের দিনে অত্যধিক ঘাম-এর জন্য শরীর থেকে অনেক পরিমাণে জল বেরিয়ে যায়। এর ফলেই শরীরে জলশূণ্যতা দেখা দেয়। এছাড়াও শরীরে ডিহাইড্রেশন হওয়ার কয়েকটি কারণ রয়েছে, সেগুলি হল-

১) পর্যাপ্ত পরিমাণে জল না খাওয়া।
২) কফি বা সফট ড্রিংক অতিরিক্ত পরিমাণে পান করা।
৩) অতিরিক্ত মাত্রায় শারিরীক পরিশ্রম হলে বা গরমের মধ্যে শরীরচর্চা বা ব্যায়াম করলে।
৪) পেট খারাপ বা ডায়রিয়ার ফলেও শরীর থেকে অতিরিক্ত জল নিঃসরণ হওয়ার ফলেও ডিহাইড্রেশন হতে পারে।

শরীরে কি কি লক্ষণ থেকে বুঝবেন যে আপনি জলশূণ্যতায় ভুগছেন?- থেকে থেকেই গলা শুকিয়ে যাওয়া এবং অতিরিক্ত জল পিপাসা পাওয়া। শারীরিক দুর্বলতা অনুভব করা, বুক ধড়ফড় করা, মাথা ঘোরা, প্রস্রাবের পরিমাণ কমে যাওয়া এবং গাঢ় হলুদ রঙের প্রস্রাব হওয়া, মাঝে মাঝেই অজ্ঞান হয়ে যাওয়ার প্রবণতা এবং সেইসঙ্গে অনিয়মিত হৃদস্পন্দনই প্রমাণ করে আপনার শরীরে জলের অভাব রয়েছে।

ডিহাইড্রেশন-এর সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে কী করবেন?-

১) বাইরে বেরলেই সঙ্গে জলের বোতল রাখতে হবে।
২) যদি সম্ভব হয়, নুন-চিনির জল বা গ্লুকোজ-জাতীয় খাবার সঙ্গে রাখতে হবে।
৩) অত্যধিক গরমে শারিরীক পরিশ্রম হয়-এমন কাজ না করাই ভাল।
৪) শরীরচর্চা যা যোগব্যায়ামের অভ্যাস থাকলেও গরমের দিনে অতিরিক্ত মাত্রায় ব্যয়াম বা শরীরচর্চা না করাই ভাল।
৫) কোনও জরুরী প্রয়োজন ছাড়া দুপুর-রোদে বাইরে না বেরনোই ভাল, বা বেরলেও একটানা অনেকক্ষণ রোদে না থাকাই ভাল।
৬) রাস্তায় কেউ মাথা ঘুরে পড়ে গেলে তাকে অবশ্যই ছায়ায় বসিয়ে চোখে মুখে জল দেওয়া উচিত, প্রয়োজনে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাওয়া উচিত।
৭) গরমের দিনে বাজার-চলতি সফট ড্রিঙ্ক-এর বদলে হাতে তুলে নিন ফলের রস।

ডিহাইড্রেশনের সমস্যাকে কখনওই অবহেলা করা উচিত নয়। উল্লিখিত এই প্রতিকারগুলি মেনে চললে এই সমস্যার নিয়ন্ত্রণ সম্ভব।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.