দাঁত দিয়ে নখ কাটার বদভ্যাস দূর করুন এইভাবে!

দাঁত দিয়ে নখ কাটার বদভ্যাস দূর করুন এইভাবে!

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

দাঁত দিয়ে নখ কাটার বদভ্যাস অনেকেরই থাকে। টেনশন, নার্ভাসনেস থেকে আসে এই অভ্যাস। স্বাস্থ্যের পক্ষে বেশ ক্ষতিকর এটি। কারণ নখের মধ্যে ঢুকে থাকা নোংরা, জীবাণু পেটে যায়। যারা দাঁতে নখ কাটেন, তারা খুব ভালোমতোই জানেন যে অভ্যেসটি অত্যন্ত বিরক্তিকর এবং লোকজনের সামনে রীতিমতো লজ্জাজনক পরিস্থিতিতে পড়তে হয়।

এই অভ্যাসের ফলে নখের চারপাশের টিস্যু ক্ষতি হয়। তাই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব, নখ চিবানোর অভ্যেসটা ছাড়ার চেষ্টা করুন। প্রথমেই ঠিক কোন কারণে দাঁতে নখ কাটার প্রবণতা হার বাড়ছে, সেটা বোঝার চেষ্টা করুন। অনেকে টেনশন থেকে এমনটা করেন, কেউ আবার খিদে পেলে করেন। কোন পরিস্থিতিতে সমস্যা বাড়ে, সেটা খুঁজে বের করতে পারলে সমাধানও সহজ হবে।

দাঁত দিয়ে নখ কাটার একটি কারণ হলো শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি। ডায়েটে দুধ ও দুগ্ধজাত খাবার রাখুন। এতে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি মিটবে।

সারাক্ষণ দাঁতে নখ কাটার অভ্যেস আছে যাদের , তারা হাতের কাছে স্ট্রেস বল এবং চিউয়িং গাম রাখুন। চিউয়িং গাম চিবোলেই অন্যমনস্ক হবেন। স্ট্রেস বা অ্যাংজ়াইটি আপনার ক্ষেত্রে যেটি প্রধান সমস্যা হিসেবে কাজ করে, তা বাড়লেই হাতের মুঠোয় ভরে নিন স্ট্রেস বল।

ধীরে ধীরে সচেনভাবে অভ্যেসটা ছাড়ার চেষ্টা করুন। যে কোনও নেশা তাড়াতে খানিকটা সময় লাগে, তাই রাতারাতি ফল পাওয়ার আশা করবেন না। যাদের সন্তান আছে, তারা খেয়াল রাখবেন, সন্তান মা-বাবাকে দেখেই অনেক কিছু শেখে। আপনার এই কুঅভ্যেসটি সন্তানের মঙ্গলের জন্যই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ছাড়া উচিত।

নিয়ম করে ম্যানিকিওর করুন। ম্যানিকিওর বেশ খরচসাপেক্ষ এবং ম্যানিকিওর করা আর নেলপলিশ লাগানোর পর আপনার হাত দেখতে সুন্দর লাগবে ফলে দাঁত দিয়ে নখ কাটার ইচ্ছেটাও অনেকটা কমবে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

Leave a Reply

Handpulled_Rikshaw_of_Kolkata

আমি যে রিসকাওয়ালা

ব্যস্তসমস্ত রাস্তার মধ্যে দিয়ে কাটিয়ে কাটিয়ে হেলেদুলে যেতে আমার ভালই লাগে। ছাপড়া আর মুঙ্গের জেলার বহু ভূমিহীন কৃষকের রিকশায় আমার ছোটবেলা কেটেছে। যে ছোট বেলায় আনন্দ মিশে আছে, যে ছোট-বড় বেলায় ওদের কষ্ট মিশে আছে, যে বড় বেলায় ওদের অনুপস্থিতির যন্ত্রণা মিশে আছে। থাকবেও চির দিন।