নার্ভাস ব্রেকডাউন হলে নিজেকে সামলাবেন কী করে?

1514

কর্মব্যস্ত এই জীবনযাত্রায় স্ট্রেস-এর পরিমাণ অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। কোনও বড় কাজ করার আগে, পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা দিত যাওয়ার আগে, কর্মক্ষেত্রে কোনও কঠিন সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে, এ রকম অনেক পরিস্থিতিতেই হতে পারে নার্ভাস ব্রেকডাউন। এই সমস্যায় বর্তমানে আক্রান্ত অনেকেই। স্নায়বিক চাপ ক্রমশ বাড়তে থাকলে এই সমস্যা মারাত্মক আকার নিতে পারে। নার্ভাস ব্রেকডাউনের সেই চরম পর্যায়ে পৌঁছনোর আগে জেনে নিন কীভাবে সামলে নেবেন নিজেকে।

টেনসন হলে অনেকেরই হৃদস্পন্দন বেড়ে যায়। হাত, পা ঠান্ডা হয়ে যাওয়া, অনিয়মিত হৃদস্পন্দন, দুর্বলতা প্যানিক অ্যাটাকের লক্ষণ। চিকিৎসাবিদ এবং মনোবিদরা পরামর্শ দিচ্ছেন, ওষুধ না খেয়ে কী করে এই নার্ভাস ব্রেকডাউনের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

⦁ এই সমস্যা থেকে মুক্তির একমাত্র উপায় হল নিয়মিত যোগাসন। এর ফলে নার্ভাস সিস্টেম স্বাভাবিক থাকবে এবং এই সমস্যার হাত থেকে ধীরে ধীরে মুক্তি পাবেন। এর পাশাপাশি অবশ্যই আপনাকে পর্যাপ্ত পরিমানে বিশ্রামও নিতে হবে।

⦁ নার্ভাস ব্রেকডাউন হওয়ার আগেই মোবাইলে বা কমপিউটারে মজার ভিডিও দেখতে শুরু করুন। মানসিক চাপ বা নার্ভাস ব্রেকডাউন সামলাতে তাৎক্ষণিক কাজে দেবে এই পদ্ধতি।

⦁ মানসিক চাপ খুব বেড়ে গেলে, যে কাজ করতে আপনি সবথেকে বেশি পছন্দ করেন সেই কাজ করুন। চাইলে মোবাইল গেমে নিজেকে ব্যস্ত রাখুন। চটজলদি নার্ভাস ব্রেকডাউনের হাত থেকে বেরিয়ে আসতে পারবেন।

⦁ সব সময় নিজের সাফল্যের কথা ভাবুন। যে কাজগুলোতে আপনি সাফল্য পেয়েছেন, সেই সমস্ত কাজ নিয়ে ভাবুন। চেষ্টা করুন এমন কোনও ঘটনার কথা মনে করতে, যখন আপনি খুব আনন্দে পেয়েছিলেন।

এই উপায়গুলোতে আপনি খুব সহজেই মানসিক চাপ কাটিয়ে উঠতে পারবেন। এতেও যদি সমস্যার সমাধান না হয় তাহলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.