স্ট্রেটনিং-এর পর চুলের যত্ন নেবেন কীভাবে? রইল কয়েকটি ঘরোয়া উপায়…

অনেকের মুখেই শোনা যায়, চুল স্ট্রেটনিং করার পর চুল পড়ে যাচ্ছে। তবে শুধু স্ট্রেটনিং-ই নয়, স্মুদনিং, কার্লিং বা হেয়ার কালার করার পরেও চুলের ঠিকমতো যত্ন না নিলে চুল রুক্ষ  অকালে ঝরে যেতে পারে। বিশেষত চুল স্ট্রেটনিং করার পরে চুলের যত্ন নেওয়া একান্ত প্রয়োজন। কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি অবলম্বন করলেই স্ট্রেটনিং করা চুলের স্বাস্থ্যের উন্নতি সম্ভব।

* ১টি ডিম, ১ চা-চামচ ক্যাস্টর অয়েল, ১ চা-চামচ লেবুর রস এবং সম-পরিমাণ মধু মিশিয়ে একটা প্যাক তৈরি করে নিতে হবে। এবার এই প্যাক শ্যাম্পু করার আগে মাথার তালুতে লাগিয়ে রাখতে হবে প্রায় এক ঘণ্টা। তারপর শ্যাম্পু করে নিতে হবে।

* এছাড়া গরম জলে তোয়ালে ভিজিয়ে আধ ঘণ্টা চুলে পেঁচিয়ে রাখুন। এইভাবে রেখে নিয়ে তারপর শ্যাম্পু করে নিলে চুলের রুক্ষভাব কমবে।

* বেশিরভাগ মহিলাই স্ট্রেটনিং করা চুল খুলে রাখতেই বেশি পছন্দ করেন। আর এই কারণেই চুলে ময়লা জমে অনেক বেশি। তাই সপ্তাহে অন্তত তিনবার শ্যাম্পু করা উচিত। সেক্ষেত্রে অবশ্যই সাধারণ শ্যাম্পু ব্যবহারের বদলে মাইল্ড শ্যাম্পু ব্যবহার করুন। শ্যাম্পু ব্যবহার করার পর অবশ্যই কন্ডিশনার ব্যবহার করা উচিত।

* নারকেল তেলের সঙ্গে কাঁচা আমলকী ফুটিয়ে নিয়ে ঠান্ডা করে নিতে হবে। এবার স্নান করার এক ঘণ্টা আগে এই মিশ্রণটি স্কাল্পে লাগিয়ে হালকা হাতে মাসাজ করুন। এরপর রিঠা ভেজানো জল দিয়ে চুল ধুয়ে নিন।

* সপ্তাহে অন্তত একবার হট অয়েল মালিশ করা উচিত। এতে চুল ভেঙে যাওয়ার সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

* সপ্তাহে দু’দিন নারকেল তেল বা অলিভ অয়েল দিয়ে হালকা হাতে চুলের গোড়ায় মালিশ করতে হবে।

* খুশকির সমস্যা বাড়লে মাথার তালুতে লেবু এবং পেঁয়াজের রস লাগিয়ে রেখে দিন। খানিকক্ষণ রেখে স্নান করে নিন।

* চুলের ঔজ্জ্বল্য বাড়িয়ে তুলতে এক কাপ জলে চা-পাতা ফুটিয়ে নিয়ে সেই জল ঠান্ডা করে তা দিয়ে চুল ধুয়ে নিন।

* চুল রুক্ষ মনে হলে স্নানের এক মগ জলে এক চামচ মধু মিশিয়ে নিয়ে সেই জলে চুল ধুলে চুলের রুক্ষতা দূর করা সম্ভব।

আরও ভাল ফল পেতে হলে আপনার হেয়ার ড্রেসারের পরামর্শ নিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here