নিস্তেজ সূর্যের এই দেশে একটা ফুলের বেঁচে থাকাও বীরত্বের‚ তারা বিশ্বকাপ ফুটবলে খেলছে কী করে !

1069

রেইকাভিক বিমানবন্দরের চৌহদ্দি পেরোতেই বুনো কনকনে বাতাসের দাপটে শরীর জুড়ে শীতল স্রোত বয়ে গেল | প্রায় জনমানবহীন বাসস্ট্যান্ডে অপেক্ষারত একটা বাস ছাড়া‚ দূরদূরান্তে ছোট ছোট কিছু আলোর বিন্দু চোখে পড়ল | তা ব্যতীত নিকষ অন্ধকার | 

একে ডিসেম্বর‚ তারপর সন্ধে সাড়ে আটটা‚ বড়দিনের বাকি মাত্র দুদিন | মনকে সান্ত্বনা দিলাম এই বলে যে এই সময়ে আর কারও না থাকাই স্বাভাবিক | বিশ্বাস করতে পারছিলাম না আইসল্যান্ডে দাঁড়িয়ে আছি | 

কিছুক্ষণ পর বাস ছাড়ল | চালক উঠেই বাসের আলোগুলো নিভিয়ে দিলেন | জানালার বাইরে তাকিয়ে থাকলাম | রাস্তাটুকু আলো করেছে সারি দেওয়া বাতিস্তম্ভ | তার ওপারে যতদূর চোখ যায় শুধু অন্ধকার | 

বেশ কিছুক্ষণ চলার পর আমার গন্তব্যস্থলে পৌঁছলাম | শুনশান বাসস্টপে নামিয়ে দিয়ে অন্ধকারে মিশে যাওয়ার আগে বাসের পিছনে চোখে পড়ল বিরাট একটা ছবি | ছবিটা আইসল্যান্ডের জাতীয় ফুটবল দলের | 

মুহূর্তের জন্য মনে এসে গেল স্টেডিয়ামে বসে থাকা আইসল্যান্ডের ফুটবলপ্রেমীদের বিখ্যাত ভাইকিং ক্ল্যাপ বা গগনভেদী সমর্থন | সম্মোহন কাটিয়ে হোটেলে ঢুকে দেখলাম রিসেপশনে বসে থাকা যুবকটি আমারই বয়সী | প্রশ্নটা করেই বসলাম‚  তোমরা পারলে কী করে ?’ প্রথমটায় একটু হকচকিয়ে গেলেও উত্তর এল‚  আমরা ফুটবল ভালবাসি | আর সরকারও আমাদের অনেক সাহায্য করেছে | 

পরের চারটে দিন কেটেছিল স্বপ্নের মতো | মনে হতো যেন পৃথিবীর বাইরে অন্য একটা পৃথিবীকে প্রত্যক্ষ করছি | শীতকালে সূর্য ওদেশে ঘণ্টা পাঁচেকের বেশি দেখা দেন না | এই সূর্যটাও যেন কেমন অচেনা | অদ্ভুত নিস্তেজ‚ শান্ত আর প্রখরতাহীন | 

রেইকাভিক শহরের বাইরে বেরোতেই স্তিমিত সূর্যের আলোয় চোখে পড়ল বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে শুধু অনন্ত শূন্যতা | তার সঙ্গে মাঝে মাঝে ধূসর প্রকাণ্ড পাহাড় | ওই রুক্ষ আবহাওয়ায় একটা ফুলের বেঁচে থাকাও নিঃসন্দেহে বীরত্বের |  

আইসল্যান্ড জুড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ওই ধূসর পাহাড়গুলোর অনেকগুলোই সুপ্ত আগ্নেয়গিরি | ভূমিকম্পপ্রবণ এই দেশে প্রকৃতি এক কথায় ভয়ঙ্কর সুন্দর | লক্ষ করলাম প্রতি ২০-২৫ কিমি অন্তর ভূপ্রকৃতি পাল্টে যাচ্ছে | এরকম তো বইয়ে পড়েছি | বাস্তবেও হতে পারে‚ ধারণাই ছিল না | 

এত অচেনা অনুভূতির মাঝেও আইসল্যান্ডের খেলোয়াড়দের কথা মনে ফিরে ফিরে আসছিল | এই অসীম প্রতিকূলতা তারা অতিক্রম করল কী করে ! হতে পারে অত্যাধুনিক ইন্ডোর অ্যাকাডেমিতে সারা বছর প্রশিক্ষণ | ইউরোপের নামী ক্লাব থেকে প্রশিক্ষকদের আনা | সঙ্গে ভুললে চলবে না আইসল্যান্ডের জাতীয় দলের অনেক ফুটবলার প্রথমে পেশাদার ফুটবলার ছিলেন না | তাঁদের কোচ যে পেশায় দন্ত চিকিৎসক‚ এ কথা আজ সর্বজনবিদিত | এহেন দেশের বিশ্বকাপে খেলা রূপকথার থেকে কম কীসে !

তাদের ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের বর্তমান সভাপতির একটি সাক্ষাৎকার জার্মান দৈনিকে পড়েছিলাম | সেখানে তিনি জানিয়েছেন কী ভাবে তারা অনূর্ধ্ব ২১ দল আর খেলোয়াড়দের প্রতি মনোযোগ দিচ্ছেন | তারা যে দেশের ফুটবলের ভবিষ্যৎ | উল্লেখ্য আরও একটি বিষয় হল‚আইসল্যান্ডের মহিলা ফুটবল দলকে নিয়েও তারা কতটা আন্তরিক | এ বছর থেকে জাতীয় দলের ফুটবলার‚ ছেলে মেয়ে নির্বিশেষে একই বেতন পাবেন | এই বিরল দৃষ্টান্ত অন্যান্য উন্নত দেশের কাছেও ইঙ্গিতবাহী | 

দু বছর আগে গত ইউরো কাপে দেশকে সমর্থন করার জন্য দেশের জনসংখ্যার ১০% মানুষ‚ প্রায় ৩৩ হাজার জন গিয়েছিলেন ফ্রান্সে | এই বিপুল ফ্যানকুল আইসল্যান্ডের দলের  টুয়েলভথ ম্যান | ষোলো তারিখ‚ শনিবার আইসল্যান্ড যখন ফুটবলের জাদুকর মেসির সম্মুখীন হবে‚ মন আর্জেন্তিনার দিকে ঝুঁকে থাকলেও হৃদয়ের টান থাকবে আইসল্যান্ডের জন্যই | হয়তো আইসল্যান্ডের প্রিয় টুয়েলভথ ম্যান-এর ভাইকিং ক্ল্যাপ সুদূর রাশিয়া থেকে ভারতীয়দের মনে সংক্রামিত হবে | আর আমরা আমাদের ফুটবলারদের নিয়ে আরও বেশি স্বপ্ন দেখতে পারব |

ছবি : লেখক | ছবিতে ধরা পড়েছে আইসল্যান্ডের আকাশে বিখ্যাত সুমেরুপ্রভা বা অরোরা বোরেয়ালিস )

Advertisements

2 COMMENTS

  1. দারুন লাগলো লেখাটা পড়ে। ??এর পর আশা করবো লেখক তাঁর আইস্ল্যাণ্ড যাত্রার অভিজ্ঞতা নিয়ে লিখবেন। ?

  2. এটা ঠিক লেখা নয়, মনে হচ্ছে স্বপ্ন পড়ছি।সত্যি কথা বলতে আইসল্যান্ড মানে ভূগোলে পড়া জ্ঞান। এখন আইসল্যান্ড বলতে একটা ছবি চোখের উপরে ভাসছে। ঘটনাক্রমে আর ঘন্টা দুয়েক পরেই আর্জেন্টিনা বনাম আইসল্যান্ডের খেলা আর যখন খেলাটা দেখবো তখন এই আইসল্যান্ডের ছবিটাই চোখে দেখা দেবে। তোমার লেখাটা খুবই মনোগ্রাহী হয়েছে। চালিয়ে যাও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.