১০ বছর পর ফের ভারতীয়র হাতে উঠল অস্কার

‘PERIOD,END OF SENTENCE’ নামটা হয়তো অনেকেরই চেনা আবার অনেকেরই অচেনা। তবে সিনেপ্রেমীদের কাছে যে ২৫ মিনিটের এই ছবিটি শুধুই একটি ডকুমেন্টরি নয়, ঋতুকাল নিয়ে একটি বিশেষ বার্তা তা বোঝা গিয়েছে যখন অ্যাকাডেমি আওয়ার্ডে সম্মানিত হয়েছে ছবিটি। ২০১৯ সালে দেওয়া হল ৯১তম অ্যাকাডেমি পুরস্কার। ওই পুরস্কারের Documentary Short Subject বিভাগে জায়গা পায় এই তথ্যচিত্রটি। ঠিক ১০ বছর আগে ২০০৯ সালে স্লামডগ মিলিয়ানিয়রের জন্য অস্কার পেয়েছিলেন সুরকার এআর রহমান ও সাউন্ড ইঞ্জিনিয়র রেসুন পুকুট্টি। ২০১৯ সালে এবার সেই পুরস্কার ঝুলিতে এল গুরণীত মঙ্গার।    

ইরানি-মার্কিনি চিত্রপরিচালক রায়কা জেটাবচি উত্তর প্রদেশের কয়েকজন মহিলাকে নিয়ে  তৈরি করেছেন এই তথ্যচিত্রটি। মহিলাদের ঋতুকাল নিয়ে তৈরি হওয়া এই ছবিটি মুক্তি পায় নেটফ্লিক্সে। প্রযোজনার দায়িত্বে ছিলেন ভারতীয় প্রযোজক গুণীত মোঙ্গা এবং লস এঞ্জলেসের কয়েকজন ছাত্র এবং তাদের শিক্ষিকা মেলিসা বার্টন | 

ঋতুকাল বা পিরিয়ডের সম্পর্কে ভারতের কিছু প্রত্যন্ত এলাকার ধারণা,মহিলাদের কষ্ট ও নিষিদ্ধকরণের গল্প বলে এই তথ্যচিত্রটি। একদিকে যেমন মহিলাদের এই সময় ব্যবহার করা ‘স্যানিটারি প্যাড’র সম্পর্কে একেবারেই অবহিত নন অনেকেই। আবার অন্যদিকে সেই গ্রামেরই কিছু মহিলাদের দিয়ে তৈরি করানো হয় কম খরচের স্যানিটারি প্যাড। যেটি চালু করেছেন হাপুর জেলার এক মহিলা। একসময় অচলায়তন ভাঙতে বাস্তব জগতে এমনই প্রয়াস করেছিলেন অরুণাচলম মুরুগানতাম। এবার উত্তপ্রদেশেও একইভাবে প্রচেষ্টা করে চলেছেন কিছু মহিলা।  

https://youtu.be/wnumuGTM1LA

অস্কারে অন্যতম তথ্যচিত্রের তালিকায় এই ছবিটির পাশাপাশি নাম ছিল ‘ব্ল্যাক স্লিপ’,’এন্ড গেম’,’ অ্যা নাইট অ্যাট দ্য গার্ডেন’, এবং ‘লাইফবোট’র। অস্কারে শেষ্ঠ তথ্যচিত্র হিসেবে পুরস্কৃত হওয়ার পর পরিচালক জানান,’আমি ভাবতে পারিনি যেখানে আজও ঋতুকালের নাম অবধি নিষিদ্ধ, সেই ঋতুকাল নিয়ে তৈরি করা ছবিই ভারতকে অস্কার উপহার দেবে।’ 

https://youtu.be/72tThkmKQIc

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here