গ্রহাণুতে জলের অস্তিত্ব-সম্ভাবনা আবিষ্কার বাঙালিনীর হাত ধরে

ভারতীয় বংশোদ্ভুত বাঙালি বিজ্ঞানী মৈত্রেয়ী বোসের আবিষ্কার মহাকাশ গবেষণায় এক বিশেষ উল্লেখের দাবি রাখে বলে জানা গিয়েছে। সম্প্রতি ইটোকাওয়া গ্রহাণুতে জলের উপস্থিতি-সম্ভাবনা আবিষ্কার করেছেন তিনি। এই সম্ভাবনার কথা প্রথমে জানান জাপানের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা হায়াবুসা-র গবেষকের এক বিশেষ দল। তাঁরাই প্রথম জানান যে, ইটোকাওয়া গ্রহাণুতে জলের উপস্থিতি থাকার কথা। এই গবেষণায় অংশ নিয়েছিলেন মৈত্রেয়ী। আর এবার সেই সম্ভাবনার কথাই সুনিশ্চিত করেছেন মৈত্রেয়ী।

কী এই ইটোকাওয়া গ্রহাণু?- জানা গিয়েছে ১,৮০০ ফুট লম্বা এবং ৭০০-১০০০ ফুট পর্যন্ত চওড়া এই গ্রহাণুর আকার অনেকখানি চিনাবাদামের মতো। সূর্যকে প্রতি আঠারো মাসে একবার প্রদক্ষিণ করে গ্রহাণু ইটোকাওয়া। এই গ্রহাণু অনেকসময়ে সূর্যকে প্রদক্ষিণ করতে করতে পৃথিবীর কক্ষপথেও ঢুকে পড়ে। মৈত্রেয়ী বোসের কথায়, ইটোকাওয়া গ্রহাণুতে যে জলের অস্তিত্ব পাওয়া যেতে পারে সেকথা আগে কেউ ভাবেননি। হায়াবুসা-র গবেষকরা বিষয়টিতে প্রথম আলোকপাত করলে গবেষণায় নামেন মৈত্রেয়ী। তিনি আরও জানিয়েছেন মানুষের চুলের ঘনত্বের অর্ধেক ঘনত্বের নমুনার ওপর গবেষণা চালান ভারতীয় বংশোদ্ভূত মৈত্রেয়ী এবং জিলিয়াং জিন নামে আর এক গবেষক। সেই নমুনাতেই তাঁরা জলের হদিশ পেয়েছেন বলে জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here