স্বাধীনতার পরে পাকিস্তানে ব্যবহৃত হতো ভারতীয় মুদ্রাই

986

প্রত্যেক দেশের একটা টাকা দিয়ে সেই দেশের অনেক অজানা তথ্য জানা যায়। সে রকমই আমাদের দেশের টাকার ও রয়েছে নানা তথ্য যা অনেকেরই অজানা।

# ভারতের অন্যতম প্রাচীন টাঁকশালটি ছিল কলকাতায়। বর্তমানে তা কলকাতার আলিপুর অঞ্চলে অবস্থিত। ১৭৫৯-৬০ সালে কলকাতায় প্রথম টাঁকশালটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এই সময় এই টাঁকশালের নাম ছিল “ক্যালকাটা মিন্ট”।

# প্রথম ভারতে টাকার প্রচলন করেন সম্রাট শেরশাহ সুরি। আজ থেকে ৫০০ বছর আগে। বর্তমান ভারতে প্রথম কাগজের নোট ইস্যু করে ব্যাঙ্ক অফ হিন্দুস্তান।

# স্বাধীন ভারতে যে নোট প্রথমবারের জন্য ছাপা হয়েছিল তা হল এক টাকা মূল্যের নোট। আর এই নোট ইস্যু করে ভারতীয় অর্থ মন্ত্রক। তাই এই নোটে ভারতীয় অর্থ মন্ত্রকের সচিবের স্বাক্ষর থাকত। দুই টাকা ও পাঁচ টাকার নোটেও সচিবের স্বাক্ষর থাকে।

# স্বাধীনতার পরেও পাকিস্তানে ভারতীয় মুদ্রাই ব্যবহৃত হত কারণ, পাকিস্তানে তখনও পর্যাপ্ত মুদ্রা ছেপে উঠতে পারেনি । তবে সেখানে  পাকিস্তান  কথাটা লেখা থাকত |  

# বর্তমানে ভারতীয় নোটের সর্বোচ্চ মূল্য যা ছাপা যায় তা হল ২,০০০ টাকা। কিন্তু ১৯৩৮ সালে ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক বাজারে যে সর্বোচ্চ মূল্যের নোট ছেড়েছিল তা ছিল ৫,০০০টাকা এবং ১০,০০০টাকার। ১৯৭৮ সালে তার ব্যবহার আবার বন্ধ করে দেওয়া হয়।

# বিংশ শতকের গোড়াতে আদেন, ওমান, কুয়েত, বাহরিন, কাতার, কেনিয়া, উগান্ডায় ‘টাকা’ চালু ছিল।

# ১৯১৭ সালে মার্কিন ডলারের থেকেও দামি ছিল টাকা। সে সময় এক টাকার দাম ১৩ মার্কিন ডলারের সমান ছিল।

# আমাদের দেশের টাকা কে আমরা বলি “রুপি”, যা সংস্কৃত শব্দ “রৌপ্য “থেকে এসেছে, যার অর্থ রুপা বা মূল্যবান ধাতু।

ভারতীয় নোটে যে ছবি ছাপা থাকে, ছবিগুলি ভারতীয় ভূখণ্ডের ছবি। যেমন ২০ টাকার নোটে আন্দামানের ছবি ছাপা থাকে।

# একটি নোটে ১৭টি ভাষায় টাকার অঙ্ক লেখা থাকে।

# আপনার কাছে একটি ছেঁড়া নোট থাকলে, এমনকী তার ৫১ শতাংশ ছিঁড়ে গেলেও আপনি ব্যাঙ্কের কাছ থেকে একটি নতুন নোট পেতে পারেন।

# একটি ১০ টাকার কয়েন তৈরির খরচ হয় ৬ টাকা ১০ পয়সা।

# কম্পিউটার কি-বোর্ডে একসঙ্গে ‘Ctrl+Shift+$’ টিপলে মনিটরে টাকার চিহ্ন দেখতে পাবেন।

২০১০ সালে বর্তমান ভারতীয় নোটের প্রতীক চিহ্ন ডিজাইন করেছিলেন আই আই টি কানপুরের এক অধ্যাপক ড.উদয় কুমার। এই প্রতীক চিহ্ন টি দেবনাগরী হরফ ‘₹’ এবং ল্যাটিন হরফ “R” সংমিশ্রনে তৈরি করা হয়। এই প্রতীকের উপর সমান্তরাল দাগ ভারতীয় পতাকার আকার দেয়।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.